ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

আনন্দে কাটুক সবার ঈদ

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জবি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১৩, ২৮ এপ্রিল ২০২২   আপডেট: ১২:২১, ২৮ এপ্রিল ২০২২
আনন্দে কাটুক সবার ঈদ

একমাস সিয়াম সাধনার পর আসে ঈদ-উল-ফিতর। দীর্ঘ সিয়াম সাধনার পর যে উৎসব, তাকে ঘিরে স্বাভাবিকভাবেই আগ্রহ বেশি। আর যেহেতু এই ঈদ-উল-ফিতর মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব, তাই তারুণ্যের উৎসাহ-উদ্দীপনাও বেশি। এর প্রভাব পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের ঈদ আনন্দেও। 

করোনা ঝুঁকিকে পেছনে ফেলে এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মনে জন্ম নিয়েছে ঈদ আনন্দের ভিন্ন অনুভূতি। করোনাকালীন ঈদকে পেছনে ফেলে এবারও ঈদের আগে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে বাস, ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করে বাড়ি ফিরছেন শিক্ষার্থীরা। প্রতিবছর ঈদকে ঘিরে তারুণদের মাঝে থাকে নানা আয়োজন, পরিকল্পনা। দীর্ঘ ছুটি পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এবার নানাভাবে এই করোনা পরবর্তী ঈদ উদযাপন করবেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের করোনা পরবর্তী ঈদ উদযাপন নিয়ে ভাবনা তুলে ধরেছেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ক্যাম্পাস সাংবাদিক মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ।

ঈদের আনন্দ হোক সবার

ঈদ মানেই দীর্ঘ এক মাসের সংযমের পর আনন্দ আর খুশী। আনন্দের সংজ্ঞা যদিও একেক জনের কাছে একেক রকমের। অন্যের জন্য কিছু করার মাঝে যে সুখ আছে, তা এই ঈদুল ফিতর এ সবচেয়ে বেশি উপলব্ধি করা যায়! আত্মীয়-স্বজন পাড়া প্রতিবেশী সবার মাঝে একটা উৎসব উৎসব ভাব দেখা যায়। সবচেয়ে বেশি আমেজ দেখা যায় ছোট ছেলেমেয়ে আর কিশোর-কিশোরীদের মাঝে। সবার নতুন জামা আর হাসি হাসি মুখ যেন জানান দেয় দীর্ঘ অপেক্ষার পর উৎসবের উপস্থিতিটুকু। দিন শেষে সবার জীবনে ঈদ খুশি আনন্দ বয়ে নিয়ে আসুক, আমাদের এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে পরোপকারী হওয়ার শিক্ষা দিক, সেই কামনাই থাকবে।

ফাইরুজ অবন্তিকা, শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ

ঈদের খুশি ভাগাভাগির মাঝেই প্রকৃত আনন্দ

ঈদ মানে হলো আনন্দ, খুশির দিন। এক মাস সিয়াম সাধনার পর মুসলমানের আনন্দ, খুশির দিন নিয়ে আসে ঈদুল ফিতর। সারাবছরে মুসলমানরা অপেক্ষায় থাকেন তাদের প্রাণের উৎসব ঈদুল ফিতর আর ঈদুল-আযহার। এক মাস সিয়াম সাধনার পর যখন ঈদুল ফিতর আসে, তা যেন আনন্দের বন্যা নিয়ে আসে। সবার সাথে এই আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে দূর-দূরান্ত থেকে সবাই শিখরের টানে চলে আসে তাদের নিজ নিজ বাড়িতে। 

সমস্ত ব্যস্ততা, ক্লান্তি আর বাকি দিনগুলোর কষ্টের কথা ভুলিয়ে দিতেই যেন উদয় হয় ঈদের দিন। তাইতো সবার বাড়িতে চলে আসা সমস্ত আনন্দকে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য। একটা ভালো সময় কাটানোর ইচ্ছা সবার সঙ্গে। সুন্দরভাবে আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে খুশিটা ভাগাভাগি করে নিতে চাই সবাই। আর এই আনন্দের মুহূর্তগুলোর মতো যেন আমাদের বাকি দিনগুলোও আনন্দের হয়ে ওঠে এই প্রত্যাশা থাকবে।

কানিজ ফাতেমা, শিক্ষার্থী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ

আনন্দে কাটুক সবার ঈদ

ঈদুল ফিতর ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের একটি। দীর্ঘ এক মাস রোজা রাখা বা সিয়াম সাধনার পর মুসলমানেরা এই দিনটিকে ধর্মীয় কর্তব্য পালনসহ খুব আনন্দের সাথে উদযাপন করে থাকে। কোভিড-১৯ এর ভয়াবহ আক্রমণের পর থেকেই মুসলমানদের পবিত্র এই উৎসব ঈদ উল ফিতর উদযাপনে যেন এক গভীর স্থবিরতা পড়ে গেলো। এই কয়েকটা বছর ধরে ঈদের দিনটিকে আমরা অলস সময় হিসেবেই পালন করছি। 

এবার ঈদের সেই পুরনো আমেজটা ফিরিয়ে আনতে ব্যস্ত সবাই। ঈদে নতুন কাপড়, ঘুরতে যাওয়া, ঈদের নামাজ সব আগের রূপে ফিরে আসবে। করোনা পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করে নতুন করে ঈদ উদযাপনের জন্য সবাই প্রস্তুতি নিচ্ছে। ঈদের আগের রাতে বাড়িতে মেয়েদের হাত মেহেদী দিয়ে রাঙানোর ধুম পড়ে যায়। সকালবেলা নতুন পাঞ্জাবি পরে পরিবারের সাথে ঈদগাহে গিয়ে নামাজ পড়তে যাওয়ার আনন্দ অন্য রকম। নামাজ পড়া শেষে পরিবারের সবার কাছ থেকে সালামি নেওয়া তো বহুল প্রচলিত। সবার ঈদ আনন্দে কাটুক।

জোনাইদ আহম্মেদ, শিক্ষার্থী, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট

সবার মুখে হাসি ফুটুক এবারের ঈদে 

আকাশ ফোঁড়ে পড়ছে আলো, সবাই তোমরা দেখো, হাসছে মিটি চাঁদ সেতারা, ঈদ আবারও এলো! গায়ে গায়ে নতুন জামার সমারোহ, রঙ-বেরঙের জামায় ঈদের দিন যেন হয়ে ওঠে রঙিন তুলিতে চিত্রাঙ্কনের মতো। নতুন চাঁদ দেখার সাথে সাথেই শুরু হয় ঈদের আমেজ, দীর্ঘ একটা মাস সিয়াম সাধনার পর এই চাঁদ যেন খুশির বন্যায় প্লাবিত করে সবার হৃদয়কে। পরের দিন ফজরের নামাজ, সবাই মিলে পুকুরে গোসল সেরে নতুন জামা পরে ঈদগাহ যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয় সবাই। হাসি ফুটুক গরিব-দুঃখীদের মনে। ঈদ হোক সবার জন্য আনন্দের কারণ।

মুশফিকুর রহমান, শিক্ষার্থী, মার্কেটিং বিভাগ

মায়ের কোলে ঈদের আনন্দ

রোজা শুরু হওয়ার আগে থেকেই শুরু হয় আমাদের বাড়ি আসার প্রস্তুতি। তারপর সেই শুভ দিনের আগমন ঘটে, ভার্সিটি বন্ধ হয় তারপর বাড়ি আসা। বাড়ি এসেই এক অন্যরকম অনুভূতি। ঈদ এগিয়ে আসতে থাকে আর ঈদের আনন্দ যেন আমাদের মাঝে বাড়তে থাকে। পরিবার, বন্ধু, আত্মীয়স্বজনদের সাথে ঈদ কাটানো এযেন এক অন্যরকম অনুভূতি, যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। ঈদ নিয়ে আমরা নানা পরিকল্পনা শুরু করি। ঈদে কেনাকাটা করা, ঘুরাঘুরি এবং কিছু অসহায় মানুষের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করার জন্য আমরা কিছু পরিকল্পনা গ্রহণ করি, তাদের জন্য ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণের ব্যবস্থা করি। ঈদের দিন বিকালে বন্ধুদের সাথে ঘুরাঘুরি করি। সব কিছুর মাঝে সব থেকে সুন্দর অনুভূতি মায়ের সাথে ঈদ কাটানো। মা ছাড়া কোনো উৎসব কল্পনা করা যায় না, ঈদ তো কখনোই না। তাই মায়ের সাথে ঈদ কাটানো এক অন্যরকম অনুভূতি।

আবু হুরায়রা হামিম, শিক্ষার্থী, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ

ঈদের আনন্দে ভরে উঠুক প্রতিটি প্রাণ

আনন্দের ছোঁয়া ঈদ। রমজান শেষ হওয়ার তিন থেকে চার দিন আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় ঈদের প্রস্তুতি। আর ঈদের কেনাকাটা তো শুরু হয়ে যায় রমজানের প্রথম থেকেই। হাজারো রঙিনসামগ্রী থেকে নিজের ও পরিবারের জন্য বেছে নিতে হবে সেরাটা। ঈদের দিন সকাল হতেই ঈদের নামাজ, নতুন জামা পরিধান, একে-অন্যের সাথে খুশি ভাগাভাগি, সালামি আদায় করা, বিকালে সবার সাথে একত্রে ঘুরতে যাওয়া এযেন এক অন্যরকম আমেজ। 

ঈদের কিছুদিন পূর্বে দূরপ্রান্তে ফেলে আসা প্রাণের মানুষগুলোর জন্য ফিরে যাওয়া প্রাণের মানুষগুলোর কাছে এক দায়বদ্ধতা, যার প্রাপ্তি বাড়ি ফিরে তাদের সাথে কাটানো প্রতিটি মুহূর্ত। সারাবছর দূরে থাকার ফলে জমা হওয়া গ্লানি ভুলে এক নতুন সময়ের সূচনা হয় এই ঈদের মাধ্যমে। ঈদ মানে আনন্দ আর এ আনন্দ হওয়া উচিৎ সবার। অসহায়দের প্রতি একটু মানবিকতা আর সহানুভূতির দৃষ্টি দিতে পারলে এ দিনটি সবার জন্য হয়ে উঠতে পারে এক আনন্দময় দিন।

সাফা আক্তার নোলক, শিক্ষার্থী, দর্শন বিভাগ

সাম্যের উৎসবে বৈষম্য না হোক

বছর ঘুরে আবার এসেছে ইদুল ফিতর। ঈদ মানেই আনন্দ উল্লাস। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর ঈদ আমাদের মাঝে সৌহার্দ্য-সংহতির বার্তা বয়ে আনে। রমজানের শেষ দিনে আকাশে চাঁদ দেখা দিলে, সবাই সমস্বরে গেয়ে উঠি ‌‘রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’। দীর্ঘ দুই বছর অদৃশ্য মরণঘাতী করোনা মহামারির সংকটাপন্ন অবস্থার পর এবারের ঈদ সবার মাঝে আনন্দ-আহ্লাদ বয়ে আনুক। ঈদ ধনী-গরীবের মাঝে বৈষম্য দূর করে সাম্যের কথা বলে। ঈদে শুধুই দামি পোশাকে বিলাসীতা না করে জাতি-ধর্ম-বর্ণ, শ্রেণি-পেশা দলমত নির্বিশেষে আর্তমানবতার পাশে দাঁড়াই। হিংসা-বিদ্বেষ ভুলে সাম্য, মৈত্রী, সহমর্মিতা, সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হই। পরিবার, আত্মীয়-স্বজন এবং গরীব-দুঃখীদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে আশা করি ঈদের দিনটি ভালো কাটবে।

আফরোজা আক্তার, শিক্ষার্থী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ

জীবনের সাথে পাল্টায় ঈদ আনন্দ

রমজানুল কারীমের অবসানে, দীর্ঘ একমাস প্রতীক্ষার পর অনেক আশা ও স্বপ্নের ফসল হয়ে বহুল আকাঙ্খিত ঈদের দিনটি আসে আনন্দ, ভ্রাতৃত্ব ও সম্প্রীতির পয়গাম নিয়ে। ঈদ অর্থ আনন্দ, খুশি। তবে এই খুশি এবং আনন্দ যেন পাল্টে যায় সময়ের ব্যবধানে। ছোটবেলায় পহেলা রমজান থেকেই যেন প্ল্যানিং শুরু করে দিতাম-এই ঈদে কী রঙের জামা নেবো, কোথায় ঘুরতে যাবো, কত টাকা সালামি উঠবে, কয়টা ঈদকার্ড কিনবো ইত্যাদি ইত্যাদি। সময়ের ব্যবধানে এখন যেন ঈদের আনন্দটা অনেকটাই পাল্টে গিয়েছে। এখন যেন টিউশনের টাকা জমিয়ে পরিবারের সদস্যদের জন্য কেনাকাটা করে, তাদের মুখে হাসি ফুটিয়েই খুঁজে পাই ঈদের প্রকৃত আনন্দ। তা ছাড়াও সবাই মিলে একসঙ্গে ইদের নামাজ পড়া, মহান আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করা, খানাপিনা এবং পরিবার ও বন্ধুদের সাথে আড্ডার মধ্য দিয়েই দারুণভাবে কেটে যায় ঈদের দিনটা।

রাশেদুজ্জামান লিমন, শিক্ষার্থী, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট। 

আনন্দমুখর হয়ে উঠুক ঈদ

মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের একটি প্রধান উৎসব হচ্ছে ঈদুল ফিতর। কিছুদিন পর আসছে মুসলিমদের উৎসব৷ করোনাকালীন ঈদ কাটিয়ে আবারও সবাই প্রাণোচ্ছল আনন্দের অপেক্ষায় রয়েছেন। এবারের ঈদে গত দুই বছরের মতো শঙ্কা কাটিয়ে অনেকটা স্বস্তির ঈদুল ফিতরের উদযাপনের আশা করছেন সবাই। এবারের ঈদের সময়গুলো সুন্দরভাবে কাটাতে পারবো। আবারও জমজমাট হয়ে উঠবে ঈদ আনন্দ। সবাই একসাথে পরিবারের সাথে সুন্দর সময় কাটানোর সুযোগ পাব। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে আত্নীয়স্বজনের সাথে আমরা আমাদের এবারের ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিবো অনেকেই। সবকিছু মিলিয়ে আবারও আনন্দমুখর হয়ে উঠবে সবার ঈদ। 

রুকাইয়া মিজান মিমি, শিক্ষার্থী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ

সীমাহীন হোক ঈদ আনন্দ

আসছে বহু আকাঙ্ক্ষিত ঈদ-উল-ফিতর। করোনাকালীন ঈদ শেষে এই ঈদে সবারই পরিকল্পনা ছিল নানা রঙের। ঈদের শপিং, বন্ধু-বান্ধবদের সাথে ঈদের দিন সিনেমায় যাওয়া, বহুদিনের স্বপ্নপুরী সাজেক ভ্যালিতে পরিবারের সাথে ঈদ ছুটি কাটানোসহ অনেক ছোট ছোট পরিকল্পনা রয়েছে অনেকের মনেই। বহুদিন পর সুন্দর একটি ঈদ অপেক্ষায় সবাই। অনেকেই আত্মীয়-স্বজনের মাঝে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেবে। কেউবা ঘরে বসেই টিভিতে পরিবারের সাথে ঈদ অনুষ্ঠান উপভোগ করবে, বন্ধুদের সাথে ভিডিও চ্যাটিংয়ে আড্ডা জমাবে অনেকে। ঈদে মামার হাতের ফুচকা খাবো, চায়ের কাপে ঝড় উঠাবো! বন্ধুদের নিয়ে আড্ডা দেবো, হাসিগুলো ছড়িয়ে দেবো! রঙ- বেরঙের ঘুড়ি উড়াবো, নৌকা হবো মুক্ত পালের। এভাবেই সবার মাঝে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নেবো।

মেহেদী হাসান, শিক্ষার্থী, গণিত বিভাগ

ফের ঈদ আনন্দ উদযাপনের প্রত্যাশা

ঈদ মানে আনন্দ, একে-অপরের সাথে কুশল বিনিময় করা। সমস্ত দ্বিধা দ্বন্দ্ব ভুলে সমস্ত মুসলিম জাতি এক হয়ে যাওয়া। তাইতো প্রতিবছর সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থাকেন এই ঈদের জন্য। সাধারণত ঈদের অন্তত ১৫ দিন আগে থেকে আমরা নিজেদের জন্য এবং আত্মীয় স্বজনদের জন্য শপিং করে থাকি। একজন অন্যজনের বাড়িতে ইফতার, ঈদের জামা কাপড় ইত্যাদি নিয়ে যাওয়া হয়। তারপর আসে সেই অতি প্রতিক্ষীত ঈদের দিন। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেওয়া, আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় যাওয়া এভাবেই কাটবে ঈদ। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব সবার সাথে আবারও ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করা হবে। মহামারি কাটিয়ে এবারের ঈদটা আবারও আনন্দ নিয়ে কাটাতে চাই সবাই।

ইউছুব ওসমান, শিক্ষার্থী, লোকপ্রশাসন বিভাগ

ঈদের আনন্দ বয়ে যাক সবার প্রাণে

ঈদ অর্থই খুশি, আনন্দ, উৎসবের আয়োজন। করোনা প্রকোপ কমে যাওয়ায় এবছর সমাজের দুস্থ মানুষ একটু বেশিই খুশির আমেজে ঈদ করবে। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানরা সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবে। কেননা দান করাটাও ভাগ্যের বিষয়। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষ সবার জীবনে এই ঈদ বয়ে আনুক সুখ-সমৃদ্ধি ও খুশি। ঈদ হোক দেশ-জাতির কল্যাণের এবং আত্মশুদ্ধি, সংযম, সৌহার্দ্য ও ভালাবাসার। এই প্রত্যাশায় সবাইকে ঈদ মোবারক।

সিদরাতুল মুনতাহা, শিক্ষার্থী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ। 

/মাহি/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়