ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

সবকিছুরই দাম বাড়ে রিকশা ভাড়া বাড়ে না

মাইনুদ্দীন রুবেল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:০৮, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২  
সবকিছুরই দাম বাড়ে রিকশা ভাড়া বাড়ে না

অলি ইসলাম

আলি ইসলাম (২৭)। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরে রিকশা চালিয়ে পরিবারের ভরণপোষণ চালান। রিকশা চালিয়ে সুন্দর ভাবেই চলছিলো তার পরিবার। কিন্তু নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়া এবং বাড়ির ভাড়াসহ অনান্য খরচ মেটানোর পর পরিবার চালাতে এখন হিমশিম খাচ্ছেন তিনি।

আলি ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার পাকশিমূল ইউনিয়নের জয়ধর কান্দি গ্রামের জগন আলির ছেলে। বর্তমানে জেলা শহরের পৈরতলা এলাকার শাহালম মিয়ার বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়ায় থাকেন তিনি। গ্রামের বাড়িতে থাকেন তার মা-বাবা।

রাইজিংবিডিকে আলি ইসলাম বলেন, ‘কোরবানির ঈদে বাড়িতে গেছি। মাস দেড়েক থেকে যখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসছি তখন রিকশার মালিক বলেন আগের থেকে রিকশাভাড়া ১৫০ টাকা বেশি দিতে হবে। ঘরের মালিকও ৩০০ টাকা বেশি চাইলেন। আগে ঘর ভাড়া ১৫০০ টাকা দিলেও এখন দিতে হয় ১৮০০ টাকা। বাজার করতে গেলে ভয়ে কিছু কিনতে মন চাই না কারণ সবকিছুরই দাম বাড়ছে। সব কিছুই যদি দাম বাড়াইবো গরিবরা যাইবো কই? সব কিছুরই দাম বাড়তেছে কিন্তু রিকশা ভাড়া তো আগের মতোই আছে। আমরা তো ভাড়া বাড়াতে পারছি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যাত্রীদের নিয়ে কষ্ট করে রিকশা চালিয়ে গন্তব্যে পৌঁছে দেই। যাত্রীদের কাছে একটু ভাড়া বাড়িয়ে দিতে বললে তারা চেচামেচি শুরু করেন। অনেক যাত্রী আমাদের মারতেও ছুটে আসেন। আমরা তো আর ভাড়া ইচ্ছা করে বেশি চাই না। আমাদেকেও তো পরিবার নিয়ে বাঁচতে হবে।’

অলি ইসলাম বলেন, ‘আমার মা অনেকদিন ধরেই অসুস্থ। বাড়িতে প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা পাঠাতে হয়। আগে প্রতিমাসে সব মিলিয়ে ৮ থেকে ৯ হাজার টাকা খরচ হইতো কিন্তু এখন ১৩-১৪ হাজার টাকা লাগে। আগে চার পাঁচ হাজার টাকা জমাইতে পারাতাম কিন্তু দুই মাস ধরে জমানো তো দূরের কথা খুব কষ্ট করে টেনে সংসার চালাতে হচ্ছে।’

মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়