Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৮ শা'বান ১৪৪২

পুঁজিবাজারে আসছে সরকারি প্রতিষ্ঠান বি-আর পাওয়ারজেন

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:০৪, ৬ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
পুঁজিবাজারে আসছে সরকারি প্রতিষ্ঠান বি-আর পাওয়ারজেন

বিশেষ প্রতিবেদক : রাষ্ট্রীয় বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান বি-আর পাওয়ারজেন লিমিটেড পুঁজিবাজারে আসছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে এটিই প্রথম পুঁজিবাজারে আসছে।

মঙ্গলবার শেরেবাংলা নগরে অনমনীয় ঋণবিষয়ক স্থায়ী কমিটির ২৭তম সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সভার আলোচ্য বিষয় ছিল ‘শ্রীপুর ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ঋণগ্রহণ প্রস্তাব অনুমোদন’। সভায় অর্থমন্ত্রী দুটি শর্তের মাধ্যমে প্রকল্পটির ঋণগ্রহণ প্রস্তাব অনুমোদন করেন। প্রথম শর্ত- অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে কোম্পানির আর্থিক তারল্য সার্টিফিকেট নিতে হবে এবং দ্বিতীয়ত পুঁজিবাজারে কোম্পানিটির শেয়ার ছাড়তে হবে। এর মাধ্যমে বহু প্রতীক্ষিত সরকারি কোম্পানি হিসেবে পুঁজিবাজারে আসছে বি-আর পাওয়ারজেন লিমিটেড।

অর্থমন্ত্রী আশা করছেন, এভাবেই ধীরে ধীরে চাহিদা অনুযায়ী পুঁজিবাজারে আসবে সরকারি অন্য কোম্পানিগুলো।

শ্রীপুর ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থার বি-আর পাওয়ারজেন লিমিটেড। গাজীপুর জেলা ও ময়মনসিংহ জেলার ক্রমবর্ধমান শিল্পাঞ্চলে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে এ প্রকল্পটি নেয়া হয়েছে। জার্মানভিত্তিক ঋণদানকারী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ঋণ নেয়া হবে। প্রকল্পটি আগামী ২০২১ সালের মার্চে বাস্তবায়ন হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিন বছরের প্রাপ্যতা সময়কাল বিবেচনায় ঋণের কিস্তি পরিশোধ শুরু হবে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে।

বি-আর পাওয়ারজেন একটি সরকারি লাভজনক কোম্পানি। এ কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে আসার ফলে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা একটি সরকারি লাভজনক কোম্পানিতে বিনিয়োগে সম্পৃক্ত হতে পারবে।

বি-আর পাওয়ারজেন চট্টগ্রামের মিরসরাই বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে সরকারি তহবিলে প্রায় ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন আরেকটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করছে। আগামী ২০২০ সালের জানুয়ারিতে এর বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হবে। ফলে ওই সময় থেকে কোম্পানিটির আর্থিক তারল্য বাড়বে। এর পরিপ্রেক্ষিতে শ্রীপুর প্রকল্পের ঋণের কিস্তি পরিশোধ সহজ হবে।


রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ আগস্ট ২০১৯/হাসনাত/রফিক

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে