ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘দেশের ইনস্যুরেন্স প্রিমিয়াম বিদেশে যাবে না’

কেএমএ হাসনাত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১১ ৬:৫২:৩৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-১২ ৬:১৭:১১ পিএম
‘দেশের ইনস্যুরেন্স প্রিমিয়াম বিদেশে যাবে না’

বিশেষ প্রতিবেদক: অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আমাদের মেগা প্রকল্পগুলোর ইনসু্যুরেন্স এখন থেকে দেশি বীমা কোম্পানিগুলোই করবে। এর ফলে ইনস্যুরেন্সের প্রিমিয়ামের অর্থ আর দেশের বাইরে যাবে না।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে সরকারি কোষাগারে সাধারণ বীমা করপোরেশনের ২০১৮ সালের লভ্যাংশের ৫০ কোটি টাকার চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে  অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের একথা বলেন।

এ সময় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, করপোরেশনের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার আহসান, পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ও করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সাধারণ বীমা করপোরেশন সাম্প্রতিক সময়ে সরকারি মেগা প্রকল্প পদ্মাসেতু, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, মাতারবাড়ি পাওয়ার প্ল্যান্ট, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বীমা কভারেজ প্রদান করেছে। বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য যে বড় বড় ইমপোর্টগুলা হতো, এই ক্ষেত্রে বলা হতো আমাদের দেশের ইনস্যুরেন্স কোম্পানিগুলো ছোট, আমাদের শক্তি নেই। যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে সেক্ষেত্রে তারা প্রিমিয়াম দিতে পারবে না, লস কাভার করতে পারবে না। এই ক্ষেত্রে ইনস্যুরেন্স প্রিমিয়ামগুলো বিদেশে চলে যেতো।’

তিনি বলেন, ‘এটা খুবই দু:খজনক। এমনটা আর হতে দেয়া হবে না। এখন থেকে এ ধরনের বীমা দেশীয় কোম্পানির মাধ্যমে করতে হবে।  আমাদের দেশের ইনস্যুরেন্সের প্রিমিয়াম দেশে থাকলে দেশিয় ইনস্যুরেন্স কোম্পানিগুলোর রেভিনিউ এমনিতেই বেড়ে যাবে। প্রকল্পের আওতায় বিদেশ থেকে মেশিনারিজ আসতো তার ইনস্যুরেন্স প্রিমিয়াম চলে যেতো দেশের বাইরে। এখন থেকে এগুলো বিদেশে যাবে না। আমাদের দেশ থেকে যে ইনস্যুরেন্স হবে, যেটা আমরা পেমেন্ট করবো সেটার প্রিমিয়ামও আমরা পাবো।’

বীমা কোম্পানির উত্থান সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে সাধারণ বীমা করপোরেশন অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে বীমা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। সাধারণ বীমা করপোরেশন একই সঙ্গে বীমা ও পুন:বীমা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। সংস্থাটি  এনবিআরকে রাজস্ব দেয়ার পাশাপাশি সরকারের কোষাগারে সরাসরি টাকা দিচ্ছে।  মেগা প্রকল্পগুলোকে  বীমা কভারেজ প্রদান করেছে, ফলে সরকারি কোষাগারে আরো বেশি টাকা দেবে এই সংস্থাটি।’

তিনি বলেন, ‘আজ সাধারণ বীমা করপোরেশন ৫০ কোটি টাকার চেক দিয়েছে। তারা ট্যাক্সও পেমেন্ট করেছে। আগামীতে মুনাফাও ডাবল হবে। যেখানে সাধারণ বীমা মুনাফা পাচ্ছিল না এখন তারা পাবে। আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিয়েছি। সাধারণ বীমার রেভিনিউ বাড়লে পাশাপাশি সেবাও বাড়বে। গ্রাহকরাও উপকৃত হবেন।

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/হাসনাত/শাহনেওয়াজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন