ঢাকা, শুক্রবার, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‌'পণ্যের বহুমুখীকরণের পাশাপাশি বাজার সম্প্রসারণ জরুরি’

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২০ ৬:১৭:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২০ ৬:১৭:১৬ পিএম

দেশের অর্থনৈতিক কাঠামো আরো বিস্তৃত এবং সুষম করতে পণ্যের বহুমুখীকরণ এবং বাজার সম্প্রসারণের ওপর জোর দিচ্ছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) ।

সোমবার ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন মতামত তুলে ধরেন চেম্বারের নেতারা। অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি শামস মাহমুদ ২০২০ সালে ডিসিসিআই’র বর্ষব্যাপি কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় করেন।

রপ্তানি বহুমুখীকরণ বিষয়ে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি শামস মাহমুদ বলেন, ‘তৈরি পোষাক আমাদের রপ্তানি আয়ের প্রধান খাত হলেও, রপ্তানি আরো বাড়ানোর লক্ষ্যে অন্যান্য খাতে উন্নতি করতে হবে। সম্ভাবনাময় খাতসমূহের উন্নয়নে তৈরি পোষাক খাতের মত বন্ডেড ওয়ারহাউজ সুবিধা, ব্যাক টু ব্যাক এলসি, কর অবকাশ সুবিধা ও নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারে জোর দিতে হবে। আমাদের রপ্তানির মোট ৮০% হয়ে থাকে উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশসমূহে। এক্ষেত্রে তিনি পণ্যের বহুমুখীকরণ এবং বাজার সম্প্রসারণের অবশ‌্যই জোর দিতে হবে। ‘

দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ে ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, এটুআই প্রকল্প পরিচালিত গবেষণা অনুসারে, অটোমেশনের ফলে বাংলাদেশে তৈরি পোষাক, টেক্সটাইল, কৃষি ও খাদ্য, পর্যটন এবং চামড়া খাতের মোট কর্মসংস্থানের প্রায় ৪০% হুমকির মধ্যে রয়েছে। মানবসম্পদের দক্ষতা উন্নয়ন ও ব্যবসা-বাণিজ্যের সকল খাতে নতুন নতুন প্রযুক্তির ব্যবহারে বাড়াতে ন্যাশনাল স্কিলস ডেভেলপমেন্ট অথরিটি, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মত সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে প্রশিক্ষণ ও নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের আর্থিক প্রণোদনা দিতে হবে।’

ব্যাংক খাতের খেলাপী ঋণের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যারা ইচ্ছাকৃত ভাবে ঋণ খেলাপি হয়েছে, তাদের চিহ্নিত করতে হবে। তবে কোন উদ্যোক্তা যদি সময়মতো গ্যাস, বিদ্যুৎ, অবকাঠামো সহ প্রয়োজনীয় সেবা না পেয়ে থাকেন, তাদের ইচ্ছাকৃত ঋণ খেলাপি হিসেবে চিহ্নিত করা উচিত নয়।

ব্যাংক ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নিয়ে আসার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 

পুঁজিবাজার সম্পর্কে শামস মাহমুদ বলেন আমাদের একটি শক্তিশালি সেকেন্ডারি বন্ড মার্কেট থাকা জরুরি। তিনি পুঁজিবাজার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ ও সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবের প্রশংসা করে বলেন, পুঁজিবাজার চাঙ্গা করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নির্দেশনাই যথেষ্ট। 

অনুষ্ঠানে ডিসিসিআই’র ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি এন কে এ মবিন, এফসিএ, এফসিএস, সহ-সভাপতি মোহাম্মদ বাশিরউদ্দিন, পরিচালক আরমান হক, আশরাফ আহমেদ, দীন মোহাম্মদ, এনামুল হক পাটোয়ারী, ইঞ্জি. মো. আল আমিন, মো. রাশেদুল করিম মুন্না, মো. জিয়া উদ্দিন, মনোয়ার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার শামসুজ্জোহা চৌধুরী, এস এম জিল্লুর রহমান এবং ওয়াকার আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


ঢাকা/হাসান/সাজেদ