ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ফুলের দাম বেড়েছে তিন-চার গুণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৩ ৭:৫৮:৫৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৪ ৮:৪৯:৪৮ এএম
ছবি : শাহীন ভূঁইয়া

পয়লা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উদযাপন করা হবে আগামীকাল। এই দুই দিবসকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ফুলের বাজার রমরমা। চাহিদা বাড়ায় ফুলের দাম বেড়েছে তিন-চার গুণ।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহবাগ, ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, মিরপুর-১ ও ১০ নম্বরসহ বিভিন্ন স্থানে স্থায়ী ও অস্থায়ী ফুলের দোকানে গিয়ে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়। অন্যান্য দিনের তুলনায় দাম বেশি রাখলেও ক্রেতাদের যেন সেটা গায়েই লাগছে না। প্রিয়জনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে মুখিয়ে আছেন ক্রেতারা। এ সুযোগকেই কাজে লাগাচ্ছেন ফুল ব্যবসায়ীরা।

শাহবাগের বিভিন্ন ফুলের দোকানে দেখা গেছে, একটি গোলাপ ফুল বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৫০ টাকায়। অন‌্য সময় এ ফুলের দাম ছিল ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত। ধানমন্ডি, জিগাতলা, মোহাম্মদপুর এলাকায় ফুলের দাম আরো বেশি। শাহবাগের তুলনায় এসব এলাকার ফুলের দোকানে গোলাপের দাম ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি রাখা হচ্ছে।

শাহবাগের ফুল বিক্রেতা আনিস হোসেন বলেন, আগামীকাল পয়লা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস। কিন্তু অনেকে আজকেই ফুল কিনছেন। কম দামে পাওয়ার আশায় আজই ফুল কিনছেন তারা। কারণ, আগামীকাল ফুলের দাম আরো বাড়বে।

দাম এত বেশি রাখা হচ্ছে কেন, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাইকারি বাজারে দাম বেশি। এজন্য দাম বাড়াতে হয়েছে। তাছাড়া, যেকোনো দিবস এলেই ফুলের চাহিদা বেড়ে যায়, তখন ফুলচাষিরাও দাম বাড়িয়ে দেয়।

রাজধানীর ধানমন্ডি ১৫ নম্বরের ফুল বিক্রেতা কবির হোসেন বলেন, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও পয়লা ফাল্গুন একই দিনে হওয়ায় ফুলের চাহিদা বেশি।

শাহবাগের তুলনায় ধানমন্ডিতে দাম বেশি নেয়া হচ্ছে কেন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাইকারি বাজার থেকে এখানে পর্যন্ত ফুল আনতে খরচ হয়। শাহবাগের চেয়ে ধানমন্ডিতে দোকানের ভাড়া অনেক বেশি। সেজন্যই কোনো দিবস এলে আমরা একটু দাম বেশি রাখি। তবে সেটা চাহিদা অনুযায়ী।

ফুল কিনতে আসা মো. আবির হোসেন বলেন, ভালোবাসা দিবসে ফুলের দাম প্রতি বছর বেশিই থাকে। বেশি দাম দিয়েই কিনতে হলো। কিছুই করার নেই। প্রিয়জনকে তো ফুল দিতেই হবে।

ক্রেতা ইমরান শেখ বলেন, ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুল কিনতে এসেছিলাম। ফুলের দাম তিন থেকে চার গুণ বেশি চাচ্ছেন দোকানদাররা। সেজন্য একটু হিমশিম খাচ্ছি। বাজেটের একটা ব্যাপার আছে। তারপরও কিনতে হবে।

 

ঢাকা/হাসিবুল/রফিক

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও