ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭, ০২ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ডেল্টা হসপিটালের কাট অব প্রাইস নির্ধারণ ছুটির পর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৬ ৬:৪৭:৫৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৬ ৬:৪৭:৫৪ পিএম

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহের লক্ষ্যে ডেল্টা হসপিটালের কাট অব প্রাইস নির্ধারণের সময় বুধবার (২৫ মার্চ) শেষ হয়েছে।  করোনাভাইরাস সংক্রামণের কারণে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির কারণে কোম্পানিটির কাট অব প্রাইস নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি।

তাই আগামী ৪ এপ্রিল (শনিবার) সাধারণ ছুটি শেষ হলেই ডেল্টা হসপিটালের কাট অব প্রাইস নির্ধারণ করা হবে। তবে সারা দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরিস্থিতির আরো অবনতি হলে কোম্পানিটির কাট অব প্রাইস নির্ধারণ পিছিয়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সংশোধিত পাবলিক ইস্যু রুলস অনুযায়ী, যেকোনো কোম্পানির বিডিং প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের জন্য সেই পরিমাণ অর্থ আগেই স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যাংক হিসাবে জমা দিতে হয়। অনেক সময় দেখা যায়, বিডারদের দেওয়া চেক কিংবা পে-অর্ডারে বিডিং করা শেয়ারের পর্যাপ্ত পরিমাণ অর্থ থাকে না। সেজন্য অনেক সময় বিডিং করা শেয়ারের বিপরীতে পুরো অর্থ জমা হয়েছে কি-না তা দেখাভাল না করে কাট অব প্রাইস নির্ধারণ করা যায় না। সে কারণেই সাধারণ ছুটি ও সাপ্তাহিক ছুটি শেষ হওয়ার পর এক্সচেঞ্জের কার্যক্রম শুরু হলে তখন ডেল্টা হসপিটালের কাট অব প্রাইস নির্ধারণ করা হবে।

ডেল্টা হসপিটালের প্রসপেক্টাসে উল্লেখ রয়েছে, শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্যের ভিত্তিতে যে ভ্যালুয়েশন করা হয়েছে, সেক্ষেত্রে পূর্ণ মূল্যায়নসহ ভ্যালুয়েশন ৪৫ টাকা ৮৪ পয়সা। আর পূর্ণ মূল্যায়ন ছাড়া ভ্যালুয়েশন ১৬ টাকা ৬২ পয়সা। কোম্পানিটির শেয়ারের ভ্যালুয়েশন সর্বনিম্ন ১৬ টাকা ৬২ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৬৮ টাকা ৩৬ পয়সা। পাঁচ বছরের কর-পরবর্তী মুনাফার ভারিত গড় হার অনুসারে কোম্পানিটির শেয়ারের ভ্যালুয়েশন ২৩ টাকা ৮২ পয়সা। আর সমজাতীয় শেয়ারের ভিত্তিতে কোম্পানিটির শেয়ারের ভ্যালুয়েশন দাঁড়ায় ৬৮ টাকা ৩৬ পয়সা।

এর আগে ২২ মার্চ (শনিবার) বিকেল ৫টায় টানা ৭২ ঘণ্টার জন্য ডেল্টা হসপিটালের নিলাম শুরু হয়। ইলেকট্রনিক সাবস্ক্রিপশন সিস্টেমের (ইএসএস) মাধ্যমে নিলামে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা সে বিডিংয়ে অংশগ্রহণ করেন। নিলামের ভ্যালুয়েশন প্রতিবেদন ২৯ মার্চ (শনিবার) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ৩১ মার্চ সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে জমা দেওয়ার কথা ছিল। তবে করোনার প্রভাবে তা পরিবর্তন করে ৫ এপ্রিল (রোববার) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ৭ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টা নির্ধারণ করা হয়েছে।


ঢাকা/এনটি/জেডআর