ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৮ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে পুঁজিবাজার, সিদ্ধান্ত কাল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৮:৩১:৫১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০১ ৯:০২:৩৪ পিএম

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছু‌টি বা‌ড়িয়ে‌ছে সরকার। এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দেশের উভয় শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) কর্তৃপক্ষ লেনদেন ও সেটেলমেন্ট কার্যক্রমসহ যাবতীয় দাফতরিক কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ।

বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্দেশনা জারি করবে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ।  ফলে সব ঠিক থাকলে ১২ এপ্রিল থেকে শেয়ার বাজারে লেনদেন চালু হতে পারে।

বুধবার (০১ এপ্রিল) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থে‌কে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

জারি করা প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, আগামী ৬ থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকছে। এর সঙ্গে সপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়ে‌ছে। এর ফলে শেয়ার বাজারে ৪ এপ্রিল থেকে লেনদেন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও, তা আর হচ্ছে না।

এ বিষয়ে ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে বিএসইসি’র সঙ্গে কথা বলেছি।  বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) পরিচালনা পর্ষদে আলোচনা করে রেজুলেশন জারি করে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারের সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ার বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে। যেহেতু আজ সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছু‌টি বা‌ড়িয়ে‌ প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। তাই আমরা পর্ষদ সভায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।’

এদিকে সিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মামুন‐উর‐রশিদ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) পরিচালনা পর্ষদ সভায় আলোচনা করে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারের সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।’

জানা গেছে, সরকা‌রি ছু‌টিতে খাবার, ওষুধ, কাঁচাবাজার, হাসপাতালসহ জরুরি সেবা চালু থাকবে। এ সময় প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে জনগণকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।

প্রয়োজনে এই সাধারণ ছুটিতে ওষুধশিল্প, উৎপাদন, ও রফতানিমুখী শিল্প কারখানা চালু রাখতে পারবে। মানুষের জীবন-জীবিকার স্বার্থে রিকশা-ভ্যানসহ যানবাহন, ট্রেন-বাস পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

এতে আরও বলা হয়েছে, জরুরি পরিষেবায় বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন, ইন্টারনেট সার্ভিসের ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটি প্রযোজ্য হবে না। কৃষিপণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্পপণ্য, চিকিৎসা সামগ্রী, জরুরি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন, কাঁচাবাজার, খাবার দোকান, ওষুধের দোকান ও হাসপাতাল এই ছুটির বাইরে থাকবে।  জরুরি প্রয়োজনে অফিস খোলা রাখা যাবে। প্রয়োজনে এই সাধারণ ছুটিতে ওষুধশিল্প, উৎপাদন, ও রফতানিমুখী শিল্প কারখানা চালু রাখতে পারবে। মানুষের জীবন জীবিকার স্বার্থে রিকশা-ভ্যানসহ যানবাহন, ট্রেন-বাস পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে।


ঢাকা/এনটি/জেডআর