ঢাকা, রবিবার, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনায় পর্যটন শিল্পে ক্ষতি বাড়ার আশঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৬ ৮:২০:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০৬ ৮:২০:৩৫ পিএম

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে প্রায় ৫ হাজার ৭০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আর এই অবস্থা যদি দীর্ঘস্থায়ী হয় তাহলে ক্ষতির পরিমাণ আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব)।

সোমবার (০৬ এপ্রিল) বিকেলে ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব) এর প্রেসিডেন্ট মো. রাফেউজ্জামানের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছে।

টোয়াব প্রেসিডেন্ট  বলেন, করোনাভাইরাসের প্রভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প। এই ভাইরাসের কারণে আউটবাউন্ড, ইনবাউন্ড ও অভ্যন্তরীণ পর্যটনের শতভাগ বুকিং বাতিল হয়েছে। বাংলাদেশে জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকেই পর্যটন খাত কার্যত অচলাবস্থায় রয়েছে।  এ কারণে শুধু ট্যুর অপারেটররা নয় বরং এ শিল্প সংশ্লিষ্ট সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, দ্য ওয়ার্ল্ড ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কাউন্সিলের তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বজুড়ে ৫ কোটি মানুষ কাজ হারানোর ঝুঁকিতে আছেন। আমাদের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে আমরা বলতে পারি যে, করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে প্রায় ৫ হাজার ৭০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এই অবস্থা যদি আরো দীর্ঘস্থায়ী হলে ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে। করোনাভাইরাস দুর্যোগ কেটে গেলেও এর ধকল সামলে উঠতে পর্যটনখাতের অন্তত ২ বছর লেগে যেতে পারে। পরিস্থিতির সঙ্গে এ অসম লড়াইয়ে আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি, কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকেও সুরক্ষা সহযোগিতা জরুরি।

করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট বর্তমান পরিস্থিতি উত্তরণের জন্য বাংলাদেশ সরকারের কাছে পাঠানো টোয়াবের প্রস্তাবনার মধ্যে অন্যতম রয়েছে- টোয়াব সদস্যদের বিনা শর্তে ও স্বল্প সুদে স্বল্পতম সময়ে ঋণ সুবিধা দেওয়া।

তিনি বলেন, চলমান সংকট মোকাবিলা করে এ শিল্পকে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত পর্যটন খাতের সামগ্রিক লোকসানের পুঙ্খানুপুঙ্খ হিসাব সম্পন্ন করে, টোয়ার-এর পক্ষ থেকে আমরা বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের কাছে আপৎকালীন ও দীর্ঘমেয়াদি কয়েকটি সুপারিশ পেশ করেছি।


ঢাকা/ হাসিবুল/জেডআর