ঢাকা, রবিবার, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩১ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ছয় মাস মার্জিন ঋণের সুদ মওকুফ চায় ডিএসই

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২১ ৩:৪৭:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২১ ৩:৪৭:৫৩ পিএম

করোনা মোকাবিলায় দেশের পুঁজিবাজার বন্ধ রয়েছে।  তবে এর মধ্যেও বেড়ে চলেছে মার্জিন ঋণের সুদ।  এ পরিস্থিতিতে ৬ মাসের জন্য মার্জিন ঋণের সুদ মওকুফের জন্য ব্যাংক ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দিতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীকে এ বিষয়ে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক চিঠি দিয়ে এ দাবি জানান। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

চিঠিতে উল্লেখ রয়েছে, ব্যবসা পরিচালনার জন্য ডিএসইর ট্রেকহোল্ডারদেরকে ঋণ দেওয়ার আহবান করা হয়েছে।  ৪ শতাংশ সুদের হারে ট্রেকহোল্ডারদের শেষ ৬ মাসের পরিচালন ব্যয়ের সমতুল্য ঋণ দেওয়ার  জন্য বলা হয়েছে।  যা ২৪টি সমান কিস্তিতে পরিশোধ করা হবে এবং ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে দেওয়া শুরু হবে।

এদিকে ১ বছর বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি মওকুফ করার জন্য অর্থমন্ত্রীর কাছে দাবি করেছে ডিএসই। এ বিষয়ে ডিএসই বলেছে, বিনিয়োগকারীরা এই মুহূর্তে শেয়ারবাজার বন্ধ থাকায় লোকসান গুণছে। এই পরিস্থিতিতে সিডিবিএলকে আগামী ১ বছর বিও ফি মওকুফ করার জন্য নির্দেশনা দিতে অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিনিয়িাগকারীরা অনেক লোকসানের মধ্যে পড়ে গেছে। তাই এই মুহূর্তে লেনদেনের ওপর আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪ এর আওতায় ৫৩ বিবিবি অধীনে যে ০.০৫% হারে অগ্রিম আয়কর (এআইটি) নেওয়া হয়, তা ১ অর্থবছরের জন্য পূর্ণ মওকুফের দাবি করেছে ডিএসই।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৫% সুদের হারে বিশেষ ফান্ডের ব্যবস্থা করে নির্দেশনা দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। যা শেয়ারবাজারের জন্য কার্যকরি পদক্ষেপ। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সেই ফান্ডের বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত হতে পারে।  চলমান পরিস্থিতিতে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখার জন্য বিশেষ ফান্ডের সুদের হার ৫% থেকে কমিয়ে ২% শতাংশ করার ব্যবস্থা গ্রহণে অর্থমন্ত্রীকে আহবান করেছে ডিএসই।


এনটি/সাইফ