ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

জিডিপি প্রবৃদ্ধি ২.৫ শতাংশের বেশি হবে না: সিপিডি

বিশেষ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৭ ৩:১৭:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০৭ ৫:৫০:৫৪ পিএম

বিশ্বজুড়ে বিরাজমান মহামারি করোনাভাইরাস দেশের অর্থনীতির ওপর বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।  সংস্থাটি মনে করে, এ বছর মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি আড়াই শতাংশের বেশি হবে না।

এছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে দেশের মোট কর্মক্ষম মানুষের ৩০ শতাংশ বেকার হয়ে পড়ার আশঙ্কা করছে সিপিডি।

রোববার (০৭ জুন) এক ভার্চুয়াল মিডিয়া ব্রিফিংয়ে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে বাংলাদেশের অর্থনীতির অবস্থান এবং বাজেটের চ্যালেঞ্জ নিয়ে এ অভিমত দেওয়া হয়।

সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুনের সঞ্চালনায় এতে মূল প্রতিবেদন তুলে ধরেন প্রতিষ্ঠানটির রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মার্চের শেষের দিক থেকে অর্থনীতি একটি ভিন্ন গতি-প্রকৃতির দিকে ঢুকে গেছে উল্লেখ করে মূল প্রতিবেদনে তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি কেমন হতে পারে আমরা সেটি দেখার চেষ্টা করেছি। সেক্ষেত্রে আমরা কতোগুলো বিষয়কে বিবেচনায় নিয়েছি। আমরা দেখেছি পাঁচটি খাত সরাসরি বড় অসুবিধায় পড়েছে।

তবে ম্যানুফ্যাকচারিং ও কন্সট্রাকশন খাত প্রত্যক্ষভাবে বড় সমস্যায় পড়েছে এবং হোটেল-রেস্টুরেন্ট ও পরিবহন দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় জিডিপিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে উল্লেখ করে মূলপ্রবন্ধে বলা হয়, সার্বিক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আমরা যদি ধরে নেই অর্থবছরের বাকি যে সময় আছে তাতে ভালো প্রবৃদ্ধি হবে, তারপরও প্রবৃদ্ধি ২ দশমিক ৫ শতাংশের বেশি হবে বলে মনে হয় না। অর্থাৎ সবচেয়ে ভালো দৃশ্যপট যদি আমরা এই বছরের জন্য চিন্তা করি তাহলে আমাদের ধারণা এ বছরের প্রবৃদ্ধি ২ দশমিক ৫ শতাংশের বেশি হবে না।

তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, সব বাধা বিপত্তি উৎরে আমরা যদি ২ দশমিক ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারি, তাহলে তা যথেষ্ট খারাপ না। বিশ্বের অনেক দেশ এই সময়ে নেতিবাচক প্রবৃদ্ধিতে চলে গছে। আমাদের পাশের দেশ ভারতেও এই ধরনের আশঙ্কা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন শিল্প কারখানা বন্ধ রয়েছে। কাঁচামাল আমদানি হচ্ছে না। রপ্তানি বাণিজ্য প্রায় স্থবির। এ অবস্থায় নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা সমস্যা হবে। এছাড়া বিদ্যমান অবস্থা বেশি দিন থাকলে দেশের প্রায় ৩০ শর্তাংশ কর্মক্ষম মানুষ বেকার হয়ে পড়তে পারে।

 

ঢাকা /হাসনাত/জেডআর