ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ সফর ১৪৪২

বিদেশি বিনিয়োগ টানতে সরকারের গুচ্ছ উদ্যোগ

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪৬, ৩ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
বিদেশি বিনিয়োগ টানতে সরকারের গুচ্ছ উদ্যোগ

করোনায় অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে চায় সরকার। এই লক্ষ‌্যে সরকারের পক্ষ থেকে একগুচ্ছ উদ‌্যোগ নেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে এক ভার্চুয়াল সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ভার্চুয়াল সভায় আর্থিক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এ বি এম রুহুল আজাদের সভাপতিত্বে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, অর্থ বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও বেজার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।  

‘ইজি অব ডুয়িং বিজনেস’-এর আওতায় নেওয়া সরকারের ৬ দফা উদ‌্যোগ হলো—ফরেন কারেন্সি অ‌্যাকাউন্ট (এফসিএ) খোলার নিয়ম সহজ করা; বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যেন লভ্যাংশ সহজে নিজ দেশে নিয়ে যেতে পারেন, সেজন্য আইন সংশোধন করা; ব্যাংকিং খাতের বিদ্যমান আইন সহজ করা; বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ব্যাংকসেবা দেওয়ার নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে নির্দেশনা জারি করা; এই নির্দেশনা বাস্তবায়নের বিষয় মনিটরিং করা; দ‌্য ফরেন এক্সচেঞ্জ রেগুলেশন অ্যাক্ট ১৯৪৭ (২০১৫ সালে সংশোধিত) দ্রুত বাংলায় রূপান্তর করা।

জানতে চাইলে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রুহুল আজাদ বলেন, ‘করোনাকালে বিদেশি বিনিয়োগ টানতে ভারত, ভিয়েতনাম ও ইন্দোনেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশ তাদের বিনিয়োগ সংক্রান্ত আইন, বিধিবিধান, কর ব্যবস্থা ও ব্যাংকিং পদ্ধতি সহজতর করেছে। এই অবস্থায় এসব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশকে প্রতিযোগিতা করতে হচ্ছে। আর এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ‘ইজি অব ডুয়িং বিজনেস’-এর আলোকে দেশের ব্যাংক খাতের আইনি কাঠামো, নীতি সহায়তা, ব্যাংকিং নিয়মনীতি ও পদ্ধতিতে প্রযুক্তির ব্যবহারসহ ব্যাপক পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। সে লক্ষ্যে একগুচ্ছ উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে অর্থ বিভাগের সিনিয়র সহকারী প্রধান আবদুল মান্নান বলেন, ‘‘২০৪০ সালে জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৯ দশমিক ৯ শতাংশ পূরণ করতে হলে দেশে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। দেশের বর্তমানে ‘ইনক্রিমেন্টাল ক্যাপিটাল আউটপুট রেশিও’ (আইসিওআর) ৪ শতাংশের কাছাকাছি। জিডিপি প্রবৃদ্ধি ডাবল ডিজিট করতে হলে বিনিয়োগের পরিমাণ জিডিপির অনুপাতে ৪০ শতাংশ করতে হবে। কিন্তু জিডিপির অনুপাত এখনো ৩১ দশমিক ৬ শতাংশের কাছাকাছি। বাকি প্রায় ৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হলে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ানোর বিকল্প নেই।’

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নার্গিস মোরশেদা বলেন, ‘এই লক্ষ‌্যে কোম্পানি আইনসহ বেশ কিছু আইন ও বিধি সংশোধন করা হয়েছে। নতুন কোম্পানি খোলার ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন ফি কমানো হয়েছে। একইসঙ্গে বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্শিয়াল কাউন্সিলরদের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের টানার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক আমিরুল ইসলাম বলেন, ‘বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে ইতোমধ্যে বেশ কিছু আইন ও বিধি পরিবর্তন করা হয়েছে।’ বিদেশি বিনিয়োগ টানতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

হাসনাত/এনই

রাইজিং বিডি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়