RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

তালিকাভুক্ত কোম্পানির তথ্য হালনাগাদ করা হচ্ছে

নাজমুল ইসলাম ফারুক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:০৯, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১১:১৯, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
তালিকাভুক্ত কোম্পানির তথ্য হালনাগাদ করা হচ্ছে

ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের লোগো

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর সঙ্গে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারী, স্টেকহোল্ডারদের যোগসূত্র বাড়াতে সক্রিয় তথ্য ভান্ডার করছে দুই স্টক এক্সচেঞ্জ। যা প্রায় শেষ পর্যায়ে। 

গুরুত্বপূর্ণ কাজটি শেষ হলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ওয়েবসাইটে সংশ্লিষ্ট কোম্পানিগুলোর বেশ কিছু নতুন তথ্য যোগ হবে। যা বিনিয়োগকারীদের ভোগান্তি কমাবে। 

জানা গেছে, পুঁজিবাজারে দেশি-বিদেশি, ছোট-মাঝারি এবং বহুজাতিক মিলে তিন শতাধিক কোম্পানি তালিকাভুক্ত। দিন দিন সে সংখ্যা বাড়ছে। একইসঙ্গে বাজারে আসছে নতুন নতুন কোম্পানি। তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগের জন্য যে তথ্য স্টক এক্সচেঞ্জে দেওয়া আছে, তার বেশিরভাগই নিষ্ক্রিয়। ফলে কোম্পানি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিনিয়োগকারী এবং স্টেকহোল্ডারদের যোগাযোগ করতে অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। 

এদিকে পুঁজিবাজারের গতির সঙ্গে সঙ্গে প্রযুক্তির ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বাধীন কমিশন। স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর আইটিখাতকে সক্ষমতা বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছে কমিশন। একইসঙ্গে স্টক এক্সচেঞ্জগুলোকে তালিকাভুক্ত কোম্পানির সক্রিয় তথ্য হালনাগাদ করতে নির্দেশনা দিয়েছে। আর সেই নির্দেশনা অনুযায়ী স্টক এক্সচেঞ্জগুলো তথ্য ভান্ডারের কাজে হাত দিয়েছে। যা দ্রুত শেষ হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, গবেষক, ছাত্র-শিক্ষক দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারী, গণমাধ্যমকর্মীরা স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে দেওয়া কোম্পানির প্রোফাইল থেকে বিভিন্ন তথ্য নিয়ে কাজ করেন। কিন্তু বেশ কিছু কোম্পানির তথ্য পুরনো থাকায় সেগুলো ব্যবহার করা যায় না। এমন কিছু কোম্পানি আছে তাদের ঠিকানা, টেলিফোন নম্বর ও প্রতিনিধির নম্বর পর্যন্ত হালনাগাদ নেই। এতে তথ্য দেওয়া-নেওয়ায় প্রতিবন্ধকতায় পড়তে হয় সেবাগ্রহীতাকে। এসব কারণে তথ্য হালনাগাদ করার বিষয়টি বিএসইসির একটি সময়োপযোগী নির্দেশনা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম রাইজিংবিডিকে বলেন, স্টক এক্সচেঞ্জগুলোতে কোম্পানিগুলোর বিভিন্ন তথ্য থাকে। কিন্তু দেখা গেছে সেখানে দেওয়া বেশ কিছু কোম্পানির তথ্য পুরনো। তাই কোম্পানিগুলোর নতুন ও সক্রিয় তথ্য হালনাগাদ করে একটি তথ্য ভান্ডার করার নির্দেশনা দিয়েছে কমিশন। তথ্য হালনাগাদ হলে বিনিয়োগকারীরা যেকোনো প্রয়োজনে কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারবেন।

এদিকে ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, কমিশনের নির্দেশনার পর থেকে সক্রিয় তথ্য হালনাগাদ করার কাজ করছেন সংশ্লিষ্টরা। আগে কোম্পানির কোনো প্রতিনিধির নম্বর ওয়েবসাইটে দেওয়া হতো না। এখন থেকে তা দেওয়া হবে। 

এছাড়া প্রত্যেকটি কোম্পানির প্রোফাইলে তথ্য হালনাগদ করার কাজ চলছে। সেখানে কোম্পানির ঠিকানা, টেলিফোন নম্বর, ফ্যাক্স নম্বর ছাড়াও ইমেল ঠিকানাও ব্যবহার করা হবে। যার মাধ্যমে কোম্পানির কাছে বিনিয়োগকারীসহ সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ, পরামর্শ বা যেকোনো তথ্য জানতে পারবেন। এতে পুঁজিবাজারে স্বচ্ছতা বাড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ঢাকা/এনএফ/জেডআর

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়