RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৬ ১৪২৭ ||  ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

৩৩৪ কোটি টাকার ৪ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০  
৩৩৪ কোটি টাকার ৪ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ২৩তম সভায় ৪টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে এবং ১টি প্রস্তাব বাতিল হয়েছে।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ২৩তম সভায় প্রস্তাবগুলোর অনুমোদন দেওয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুমোদিত ৪টি প্রস্তাবে মোট ব্যয় হবে ৩৩৪ কোটি ৪০ লাখ ৬১ হাজার ৩৮৩ টাকা।  মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি হতে ব্যয় হবে ২২৯ কোটি ২৩ লাখ ১৯ হাজার ৮০৪ টাকা এবং ১০৫ কোটি ১৭ লাখ ৪১ হাজার  ৫৭৯ টাকা বিশ্বব্যাংক এবং দেশীয় ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়া হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ঢাকা সিটি নাইবারহুড আপগ্রেডিং প্রজেক্ট (ডিসিএনইউপি) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সিলেকশন অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট অব এগ্রিকালচার, ইঞ্জিনিয়ারিং ডিজাইন, সুপারভিশন অ্যান্ড মনিটরিং (ডিএসএম) কনসাল্ট্যান্সি ফার্ম নিয়োগের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে।  যৌথভাবে দোহা ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডসহ ৫টি প্রতিষ্ঠান প্রকল্পটির পরামর্শক হিসেবে কাজ করবে।  এতে ব্যয় হবে ৪৩ কোটি ৯৫ লাখ ৭০ হাজার ৬৪২ টাকা।

তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের অধীন ডিএপি ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (ডিএপিএফসিএল) পুন:দরপত্রের আওতায় তিনটি লটে মোট ৩০ হাজার মেট্রিক টন ফসফরিক অ্যাসিড আমদানির ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।  এতে ব্যয় হবে ৮৭ কোটি ৯৭ লাখ ৪২ হাজার ২০০ টাকা।

সভায় ২০২০-২০২১ অর্থবছরে দেশে ইউরিয়া সারের চাহিদা মোকাবিলায় মুনতাজাত, কাতারের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির আওতায় প্রথম লটে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার আমদানির ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।  এতে ব্যয় হবে ৬১ কোটি ২১ লাখ ৭০ হাজার ৯৩৭ টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ এর আওতায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-পাকশী-দাশুরিয়া জাতীয় মহাসড়কের কুষ্টিয়া শহরাংশ ৪-লেনে উন্নীতকরণসহ অবশিষ্টাংশ যথাযথ মানে উন্নীতকরণ প্রকল্পের পূর্ত কাজ সম্পাদনে সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান মেসার্স জহিরুল লিমিটেড এর প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।  এতে ব্যয় হবে ১৪১ কোটি ২৫ লাখ ৭৭ হাজার ৬০৪ টাকা।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের আওতায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘শরীয়তপুর (মনোহর বাজার)-ইব্রাহিমপুর ফেরীঘাট পর্যন্ত সড়ক উন্নয়ন’ প্রকল্পের পূর্ত কাজ সম্পাদনে ১টি মাত্র দরপত্র জমা পড়ে তাই ১০৫ কোটি ৮৩ লাখ ৮২ হাজার ১০৭ টাকার ক্রয় প্রস্তাবটি বাতিল করা হয়েছে।  প্রকল্পের জন্য নতুন করে টেন্ডার আহ্বান করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

প্রকল্পটি সম্পর্কে মুস্তফা কামাল বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে দরপত্র আহ্বান করা হয়েছিল। কিন্তু এতে মাত্র একটি প্রতিষ্ঠান দরপত্র সংগ্রহ করে।  একক দরদাতা হওয়ায় ক্রয় প্রস্তাবটি বাতিল করা হয়েছে। এখানে প্রতিযোগিতামূলক দর প্রত্যাশার জন্য পুনঃদরপত্র আহ্বান করতে বলা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী অপ্রয়োজনীয় প্রকল্প বাস্তবায়নে সতর্ক হওয়ার পাশাপাশি প্রকল্পের গুনগতমান নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়েছেন। তার নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় এ বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করা নিয়ে কথা হয়েছে।  মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

হাসনাত/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়