RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭ ||  ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

অডিট আপত্তি বিনিয়োগকারীদের জানাতে ডিএসইর উদ্যোগ

নাজমুল ইসলাম ফারুক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৪৪, ২৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০৪:১০, ২৯ অক্টোবর ২০২০
অডিট আপত্তি বিনিয়োগকারীদের জানাতে ডিএসইর উদ্যোগ

তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর আর্থিক প্রতিবেদনে দেওয়া অডিটরদের আপত্তি বিনিয়োগকারীদের জন্য দ্রুত জানাতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) উদ্যোগ নিয়েছে। এসব তথ্য বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সহযোগিতা করবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

জানা গেছে, তালিকাভুক্ত একটি কোম্পানির মূল্য সংবেদনশীল তথ্যের ওপর ওই প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর ওঠা-নামা করে। তাই সঠিক তথ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কোম্পানিগুলোর আর্থিক প্রতিবেদনে নানা অসঙ্গতির বিষয়ে মতামত দেয়। আর তা মূল্য সংবেদনশীল তথ্য। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিস্টিং রেগুলেশন ২০১৫ এর (৩৩) এবং (৩৮) বিধিতে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য প্রকাশের কথা বলা হয়েছে। 

বিধিতে বলা হয়, তালিকাভুক্ত কোম্পানি তাদের যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের ৩০ মিনিটের মধ্যে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য হিসেবে ডিএসইর পাশাপাশি কমিশনকে অবহিত করতে হবে। যা ইমেইল বা ফ্যাক্স, বিশেষ বাহক, কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে জানানো যেতে পারে। একই সঙ্গে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য দেশের বহুল প্রচারিত দৈনিক পত্রিকায় (একটি বাংলা এবং অপরটি ইংরেজি) প্রকাশ করতে হবে। যা বাধ্যতামূলক। মূল্য সংবেদনশীল সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত লেনদেন সময়ের পরে নিতে হবে। এছাড়া মূল্য সংবেদনশীল তথ্যে কোনো ধরনের পরিবর্তন করা হলেও দ্রুত সময়ের মধ্যে কমিশন এবং ডিএসইকে জানানোর কথা বলা হয়েছে।

জানা গেছে, তালিকাভুক্ত কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদনে অডিট রিপোর্টের ভেতরে যদি ওই কোম্পানি সম্পর্কে কোনো মতামত থাকে, তাহলে তা মূল্য সংবেদনশীল তথ্য হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অডিট রিপোর্ট কোম্পানি থেকে স্টক এক্সচেঞ্জে পাঠাতে অনেক সময় লেগে যায়। ফলে অডিট রিপোর্টের কাজ হয়ে গেলে, অডিটরের যে আপত্তি সেটা স্টক এক্সচেঞ্জে পাঠিয়ে দেওয়ার জন্য তাগিদ দিয়েছে ডিএসই।

এ বিষয়ে ডিএসইর একজন কর্মকর্তা রাইজিংবিডিকে বলেন, আগে তালিকাভুক্ত কোম্পানির অডিট রিপোর্ট আসতো, সেখান থেকে খুঁজে বের করে অডিট আপত্তি বা মতামত বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রকাশ করা হতো। এতে অনেক সময় নষ্ট হয়। এসব বিষয় মূল্য সংবেদনশীল হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের জানাতে দেরি হতো। তাই কোম্পানিগুলোকে তথ্য দ্রুত পাঠাতে বলা হয়েছে। 

এদিকে, কয়েকটি কোম্পানির কর্মকর্তারা জানান, ডিএসই যেসব তথ্য চেয়েছে সেগুলোর মূল্য সংবেদনশীল, যা বিনিয়োগকারীদের জন্য খুবই উপকারি। এটি একটি ভালো উদ্যোগ। স্বচ্ছতার জন্য প্রত্যেক কোম্পানির উচিত এসব তথ্য দ্রুত সরবরাহ করা।

এ সম্পর্কে রেনাটা লিমিটেডের কোম্পানি সচিব মো. জোবায়ের আলম রাইজিংবিডিকে বলেন, মূল্য সংবেদনশীল তথ্য দ্রুত প্রকাশ করার বিষয়টি একটি ভালো উদ্যোগ। ডিএসই থেকে আমরা এ সংক্রান্ত চিঠি পেয়েছি। যেসব তথ্য চেয়েছে, আমাদের কোম্পানির পক্ষ থেকে সেগুলো সরবরাহ করা হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, অতীতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলো তাদের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য দেরিতে প্রকাশ করতো। অনেক সময় কোম্পানির পক্ষ থেকে বা স্টক এক্সচেঞ্জের পক্ষ থেকে এসব তথ্য বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রকাশ করতে গড়িমসি করা হয়। সংবেদনশীল তথ্য দ্রুত প্রকাশ করার বিষয়টি নিশ্চিত হলে বিনিয়োগকারীদের সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হয়। 

পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ রাইজিংবিডিকে বলেন, পুঁজিবাজারের একজন বিনিয়োগকারীর কাছে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য খুবই মূল্যবান। এ তথ্যের ওপর ভিত্তি করে বিনিয়োগকারীরা সিদ্ধান্ত নেয় তার বিনিয়োগ দীর্ঘমেয়াদী করবে নাকি স্বল্প মেয়াদী। বাজারে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হলে এসব তথ্য সময় মতো প্রকাশ নিশ্চিত করতে হবে।

এনএফ/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়