Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৭ ১৪২৮ ||  ১২ সফর ১৪৪৩

অপ্রদশিত অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ রাখা হবে, আশা বিএসইসির

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ১৯ জুন ২০২১   আপডেট: ১৮:৫১, ১৯ জুন ২০২১
অপ্রদশিত অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ রাখা হবে, আশা বিএসইসির

বিপুল সংখ্যক মানুষের কাছে যেসব অপ্রদর্শিত অর্থ আছে, সেগুলো পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ বাজেটে রাখা হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। তিনি মনে করেন, এতে অপ্রদর্শিত অর্থ বৈধ হবে।

শনিবার (১৯ জুন) ‘বাজেট পরবর্তী আলোচনা ও শেয়ারবাজারের উন্নয়ন চিত্র’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আশাবাদ ব‌্যক্ত করেন। ওয়েবিনারের আয়োজন করে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ‌্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ) এবং ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্টস ফোরাম (সিএমজেএফ)। 

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও ছিলেন—বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান মো. ইউনুসুর রহমান ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম। 

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘পুঁজিবাজারের উন্নয়নের পদক্ষেপ হিসেবে আমরা বন্ড নিয়ে কিছু প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছি। বন্ড এবং সুকুক নিয়ে আমাদের সামনে যে পরিকল্পনাগুলো আছে, পুঁজিবাজারের উন্নয়নে রাজস্ব নীতির মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সহযোগিতা করবে বলে আশা করছি।’

প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘সব মিলিয়ে এবারের বাজেট ‘‘মেড ইন বাংলাদেশ বাজেট’’। বাজেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার ২.৫০ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এজন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। ভবিষ্যতে কোম্পানির করহার আরও কমবে বলে আশা করছি।’

অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম আরও বলেন, ‘আমরা কাজ করে যাচ্ছি পুঁজির সংস্থানের জন্য। দেশের শিল্পায়ন, অবকাঠামো উন্নয়নে যে বিনিয়োগের প্রয়োজন তথা সরকারের অর্থনৈতিক উন্নয়নে পুঁজিবাজারের অবদান বাড়ানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে কমিশন।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএসইসি কমিশনার ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘গত ২০ বছর ধরে একই রকম শেয়ারবাজার দেখে আসছি। সেখানে পরিবর্তন দরকার। এজন্য নতুন প্রোডাক্ট আনতে হবে ও নতুন কৌশল নিতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের ইক্যুইটি মার্কেটের বাইরে গিয়ে বিবর্তন আনতে হবে। এ লক্ষ্যে কমিশন কাজ করছে। আমরা এখন মিনিউসিপাল বন্ড নিয়ে কাজ করছি। এছাড়া, সরকারি সিকিউরিটিজ আনার জন্য গভীরভাবে চেষ্টা করছি। আশা করছি, দ্রুত এটা সম্ভব হবে। কমিশন শেয়ারবাজারে ডিজিটালাইজেশনে গুরুত্ব দিচ্ছে। এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যে অনেক ক্ষেত্রে পরিবর্তনও এসেছে। সামনে আরও পরিবর্তন আসবে। আগামী ২০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে শেয়ারবাজারকে কাজে লাগাতে হবে।’

অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে ছিলেন—ডিএসই ব্রোকার্স অ‌্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ডিবিএ) সভাপতি শরিফ আনোয়ার হোসাইন ও এএমসি অ‌্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ড. হাসান ইমাম। আয়োজকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বিএমবিএ সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান ও সিএমজেএফ সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল।

ঢাকা/এনএফ/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়