Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮ ||  ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

সারাদেশে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের রোড শো

এম মাহফুজুর রহমান   || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৪১, ১৬ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৪:১১, ১৬ অক্টোবর ২০২১
সারাদেশে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের রোড শো

নারায়ণগঞ্জে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের রোড শো কার্যক্রম

ওয়াশিং মেশিন ব্যবহার বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে কাজ করছে ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। এ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী রোড শো পরিচালনা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা অফিস। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন আর পরিপাটি পোশাকে বের হতে হয় বাইরে। অথচ বারবার পোশাক পরিষ্কার করার সময় নেই! তাহলে? চিন্তার কিছু নেই। প্রযুক্তি আমাদের সঙ্গে। ভরসার নাম ওয়াশিং মেশিন। ঝামেলাবিহীন ঝটপট কাপড় ধোয়া এবং শুকানোয় ওয়াশিং মেশিনের বিকল্প নেই। জীবনকে ক্রমে সহজ ও স্বাচ্ছন্দময় করে তুলছে ওয়াশিং মেশিন। দেশে-বিদেশে আকর্ষণীয় ডিজাইন ও উন্নত মানের ওয়াশিং মেশিন বাজারজাত করছে ওয়ালটন। গ্রাহকদের কাছে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের কদর বাড়ছে দিন দিন। এরই ধারাবাহিকতায় ক্রেতাদের কাছে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের গুরুত্ব উপস্থাপন করতে দেশব্যাপী রোড শো পরিচালনা করছে সুপারব্র্যান্ড ওয়ালটন।

ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের ব্র্যান্ড ম্যানেজার মো. পারভেজ জানান, শুক্রবার (১৫ অক্টোবর, ২০২১) দেশব্যাপী রোড শো’র প্রথম রাউন্ড সম্পন্ন হয়েছে। কয়েকটি ক্যারাভ্যানে চলেছে এই রোড শো। ঢাকা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফেনী ও নারায়ণগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রথম পর্বের রোড শো। শিগগিরই শুরু হবে রোড শো’র দ্বিতীয় পর্ব। ওয়াশিং মেশিন নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোই রোড শো’র মূল উদ্দেশ্য।

ওয়াশিং মেশিনের প্রোডাক্ট ম্যানেজার জানেসার আলী জানান, ওয়াশিং মেশিন এখন আর কোনো বিলাসী পণ্য নয়। দৈনন্দিন জীবনে এটি অতি প্রয়োজনীয়। স্মার্ট ফাজি প্রযুক্তি থাকায় কাপড় ধোয়ার সময় প্রয়োজন অনুযায়ী নিজেই পানি নিয়ে নিচ্ছে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন। আবার ধোয়া শেষ হলে পানি ঝরিয়ে কাপড় শুকিয়ে দিচ্ছে। দেশেই নিজস্ব বিশাল কারখানায় সম্পূর্ণ নিজেদের ব্যবস্থাপনায় পণ্য উৎপাদন করছে ওয়ালটন। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কেনায় জিরো ইন্টারেস্টে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধা রয়েছে। ২৯ টি ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে কেনা যাবে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন। এসব বিষয়ে সাধারণ মানুষকে বিস্তারিত বোঝানো হচ্ছে রোড শোতে।

ঢাকার রোড শোতে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন নিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিচ্ছেন পথচারী

রোড শোতে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের ব্র্যান্ড প্রোমোটার হিসেবে কাজ করছেন সানজিদা হাসান। বেসরকারি গ্রিন ইউনিভার্সিটির এলএলবি তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তিনি। সানজিদা বলেন, ‘ওয়ালটনের মতো একটি বহুজাতিক কোম্পানিতে কাজ করতে পেরে আমি গর্বিত। ওয়ালটনের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা দারুণ। কাজের পরিবেশ প্রশংসনীয়। দেশীয় পণ্যের ব্র্যান্ডিং কার্যক্রমের অংশ হতে পেরে ভালো লাগছে। এই রোড শো’র মাধ্যমে আমরা ক্রেতা সাধারণের নানারকম প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি। আগ্রহীরা জানতে চাইছেন প্রোডাক্টটি কতটা বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী, টেকসই কিনা কিংবা পণ্যটি কেনায় কী কী সুবিধা দেওয়া হচ্ছে এসব বিষয়ে। সবাইকে বোঝাতে চাইছি, ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের ব্যবহার খুবই সহজ। এতে কোনো প্রকার ঝুঁকি নেই। নিত্য দিনের সঙ্গী হতে পারে ওয়াশিং মেশিন।’

ক্যারাভ্যানের কাছে দাঁড়িয়ে ব্র্যান্ড প্রোমোটারদের সঙ্গে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন নিয়ে কথা বলছিলেন উৎসুক জনতার একজন। আজাদ হোসাইন। ঢাকায় একটি ট্রাভেল এজেন্সিতে চাকরি করছেন আজাদ। বললেন, ‘বিশেষ করে শহুরে বাসিন্দরা এখন ওয়াশিং মেশিনের দিকে ঝুঁকছেন। না ঝুঁকে উপায় নেই। এতো ব্যস্ত জীবনে একটু স্বস্তি মানুষ খুঁজবেনই। আমার বাসায় ওয়ালটনের টিভি, ফ্রিজ এবং এসি আছে। এগুলো ভালো সার্ভিস দিচ্ছে। ভাবছি একটি ওয়াশিং মেশিন কিনবো। এজন্য এখান থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিচ্ছি। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের ফিচার ও ডিজাইন ভালো লেগেছে।’

জানা গেছে, বাজারে ওয়ালটনের ফ্রন্ট লোড, টপ লোড অটোমেটিক ও সেমি অটোমেটিক এই তিন ধরনের মোট ৩০ মডেলের ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন রয়েছে। আকর্ষণীয় ডিজান ও ফিচার থাকায় ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কেনা যাচ্ছে সাশ্রয়ী দামে। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের দাম রাখা হচ্ছে ৬ হাজার ৯০০ টাকা থেকে ৫৯ হাজার টাকার মধ্যে। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন রপ্তানি হচ্ছে ভারত, পূর্ব তিমুর, নেপাল ও ইয়েমনসহ বিশ্বের বহু দেশে।

কর্মকর্তারা জানান, ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কেনায় ক্রেতারা পাচ্ছেন ফ্রি ইনস্টলেশন সুবিধা। তিন বছরের বিক্রোয়ত্তর সুবিধার সঙ্গে থাকছে এক বছর পর্যন্ত হোম সার্ভিস। ইনভার্টার মোটরে ক্রেতারা উপভোগ করছেন সর্বোচ্চ ১২ বছরের ওয়ারেন্টি সুবিধা। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় সারাদেশে ওয়ালটনের রয়েছে ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার। এসব সেন্টারের মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন বিক্রয়োত্তর সেবা পাচ্ছেন গ্রাহকরা।

ঢাকা/ইভা 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়