ঢাকা     সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ১০ ১৪২৮ ||  ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

২২,০০২ কোটি টাকায় ১৬ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৪, ৮ ডিসেম্বর ২০২১  
২২,০০২ কোটি টাকায় ১৬ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

ফাইল ছবি

কৃষিখাতের চাহিদা মেটাতে দুই লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন বিভিন্ন ধরনের সার আমদানির চারটি এবং দেশের বিভিন্নস্থানে বর্জ্য ও সৌর ভিত্তিক পাঁচটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনসহ মোট ১৭টি ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এতে মোট ব্যয় হবে ২২,০০২ কোটি ১৭ লাখ ৪১ হাজার ৫০৪ টাকা।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল সভায় প্রস্তাবগুলোতে অনুমোদন দেওয়া হয়। সভায় কমিটির সদস্য, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভাশেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আতিরিক্ত সচিব মো.সামসুল আরেফিন।

সভাশেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র ৩৪তম এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র ৪০তম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অর্থনৈতিক কমিটির অনুমোদনের জন্য একটি এবং ক্রয় কমিটির অনুমোদনের জন্য ১৬টি প্রস্তাব উপত্থাপন করা হয়।’ 

ক্রয় প্রস্তাবগুলোর মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগের ৫টি, শিল্প মন্ত্রণালয়ের ৪টি, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ৩টি, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ২টি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ১টি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ১টি এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ১টি প্রস্তাব ছিল। ক্রয় কমিটির অনুমোদিত ১৬টি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ২২,০০২ কোটি ১৭ লাখ ৪১ হাজার ৫০৪ টাকা। অনুমোদিত প্রস্তাবের বিস্তারিত জানাবেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সামসুল আরেফিন।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘সভায় ডিএপি ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (ডিএপিএফসিএল)-এর জন্য ৩০ হাজার মেট্রিক টন (+১০%) ফসফরিক এসিড আমদানির একটি ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। দরপত্রের সব প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান (১) মেসার্স সান ইন্টারন্যাশনাল এফজেডই, ইউএই (লোকাল এজেন্ট: এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ইনপুট, ঢাকা) থেকে ১০ হাজার মেট্রিক টন এবং (২) মেসার্স জেনট্রেড এফজেডই, ইউএই (লোকাল এজেন্ট: মেসার্স দেশ ট্রেডিং কর্পোরেশন, ঢাকা) হতে ২০ হাজার মেট্রিক টন সর্বমোট ৩০ হাজার মেট্রিক টন ফসফরিক এসিড সরবরাহ করবে। প্রতি মেট্রিক টন ফসফরিক এসিড এর দাম ৮৩৭ মার্কিন ডলার হিসেবে মোট ২১৫ কোটি ৪৪ লাখ ৩৮ হাজার টাকা ব্যয় হবে।’

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় চুক্তির মাধ্যমে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে পঞ্চম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন (১০%+) বাল্ক গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার আমদানির প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী সারের দাম নির্ধারণ করে প্রতি মেট্রিক টন ইউরিয়া সার ৯৬৩.৩৩ মার্কিন ডলার হিসেবে ৩০ হাজার মেট্রিক টন বাল্ক গ্র্যানুলার ইউরিয়া সারের দাম পড়বে ২ কোটি ৮৮ লক্ষ ৯৯ হাজার ৯০০ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৪৮ কোটি ১০ লাখ ৫৬ হাজার ৪১৫ টাকা।’

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় চুক্তির মাধ্যমে কাতার থেকে দশম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। প্রতি মেট্রিক টন ৯৭৪.৩৩ মার্কিন ডলার হিসেবে দশম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সারের মোট ব্যয় হবে ২ কোটি ৯২ লাখ ২৯ হাজার ৯০০ মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৫০ কোটি ৯৩ লাখ ৮৬ হাজার ৯১৫ টাকা।’

সভায় ২০২১-২০২২ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় চুক্তির মাধ্যমে সৌদি আরব থেকে ১৪তম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন বাল্ক গ্র্যানুলার (অপশনাল) ইউরিয়া সার আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে সভায়। সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুসারে সারের দাম নির্ধারণ করা হয়। প্রতি মেট্রিক টন ৯৬৩.৩৩ মার্কিন ডলার হিসেবে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানি করতে ২ কোটি ৮৮ লাখ ৯৯ হাজার ৯০০ মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৪৮ কোটি ১০ লক্ষ ৫৬ হাজার ৪১৫ টাকা ব্যয় হবে বলে জানানো হয়।

অতিরিক্ত সচিব জানান, ‘কুমিল্লা (টমছম ব্রীজ)-নোয়াখালী (বেগমগঞ্জ) আঞ্চলিক মহাসড়ক ৪-লেনে উন্নীতকরণ’ প্রকল্পের একটি প্যাকেজের পূর্ত কাজের ঠিকাদার হিসেবে নির্মাতা সংস্থা হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেডকে নিয়োগের প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৩৫ কোটি ২৪ লাখ ৪৩ হাজার ১৬১ টাকা।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের রোলিং স্টক অপারেশন উন্নয়ন (রোলিং স্টক সংগ্রহ)’ প্রকল্পের একটি প্যাকেজের আওতায় ৫৮০টি মিটারগেজ ওয়াগন সংগ্রহের একটি প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান চীনের সিআরআরসি স্যনডং লিমিটেড ওয়াগন গুলো সরবরাহ করবে। এ জন্য ব্যয় হবে ৩৯৭ কোটি ৭২ লাখ ৪৬ হাজার ৫০৪ টাকা’ 

ক্রয় কমিটির সভায় ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের রোলিং স্টক অপারেশন উন্নয়ন (রোলিং স্টক সংগ্রহ)’ প্রকল্পের অন্য একটি প্যাকেজে আরও ৪২০টি ব্রডগেজ ওয়াগন সংগ্রহের প্রস্তাবেও অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান ভারতের হিন্দুস্থান ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ইন্ডাস্টিজ লিমিটেড ওয়াগনগুলো সরবরাহ করবে। এজন্য ব্যয় হবে ২৮৮ কোটি ৫৪ লাখ ৫৯ হাজার ৯২২ টাকা।

সামসুল আরেফিন বলেন, ‘বেসরকারি খাতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৪২.৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার বর্জ্য বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের দরপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। প্রাইভেট সেক্টর পাওয়ার জেনারেশন পলিসি-১৯৯৬ এর আওতায় বিল্ড, ওন অ্যান্ড অপারেট (বিওও) ভিত্তিতে আইপিপি হিসেবে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি স্থাপন করবে চীনের কেনভেস এনভায়রনমেন্ট ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড। নো ইলেক্ট্রিসিটি, নো পেমেন্ট ভিত্তিতে এটি স্থাপন করা হবে। ট্যারিফ ভিত্তিক বিদ্যুৎ ক্রয় করা হলে ২৫ বছর মেয়াদে উক্ত কোম্পানিকে প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা ১৭.২০ টাকা হিসাবে আনুমানিক ১৪,৪০৮ কোটি ১ লাখ টাকা পরিশোধ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলাধীন সাগরকান্দি ইউনিয়নে ৬০ মেগাওয়াট ক্ষমতার সোলার পার্ক প্রকল্প স্থাপনের দরপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। বিওও ভিত্তিতে সোলার পার্কটি স্থাপনের জন্য বাংলাদেশ-চায়না রিনিউয়েবল এনার্জি কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড কর্তৃক দরপ্রস্তাব দাখিল করে। প্রস্তাবটি আর্থিক ও কারিগরিভাবে রেসপনসিভ হয়। পিইসি কর্তৃক নেগোসিয়েশনের মাধ্যমে সুপারিশকৃত দরদাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ২০ বছর মেয়াদে সোলার পার্ক প্রকল্পটি নো ইলেক্ট্রিসিটি, নো পেমেন্ট ভিত্তিতে চুক্তি সম্পাদনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ট্যারিফ ভিত্তিতে বিদ্যুৎ ক্রয় করা হলে ২০ বছর মেয়াদে উক্ত কোম্পানিকে প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা ৮.৪৮ টাকা হিসাবে আনুমানিক ১,৬৪৯ কোটি ১২ লাখ টাকা পরিশোধ করতে হবে।’

সভায়, চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলাধীন কৃষ্ণপুর মৌজায় ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার সোলার বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের একটি দরপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। কারিগরি ও আর্থিকভাবে দরদাতা প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরের সাইক্লেক্ট এনার্জি প্রাইভেট লিমিটেড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। নো ইলেক্ট্রিসিটি, নো পেমেন্ট ভিত্তিতে এটি স্থাপিত হবে। ট্যারিফ ভিত্তিতে বিদ্যুৎ কেনা হলে ২০ বছর মেয়াদে উক্ত কোম্পানিকে প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা ৮.১৬ টাকা হিসাবে আনুমানিক ১,৩২২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা পরিশোধ করতে হবে।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার মনপুরা দ্বীপে ৩ মেগাওয়াট ক্ষমতার সোলার-ব্যাটারি-ডিজেল সম্বলিত হাইব্রিড বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের দরপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। ওয়েস্টার্ন রিনয়েবল এনার্জি প্রাইভেট লিমিটেড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। ট্যারিফ ভিত্তিতে বিদ্যুৎ ক্রয় করা হলে ২০ বছর মেয়াদে উক্ত কোম্পানিকে প্রতি কিলোওয়াট ঘন্টা ২১.২৫ টাকা হিসাবে আনুমানিক ৪৫৯ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হবে। মুজিববর্ষে অফগ্রিড এলাকায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের জন্য হাইব্রিড বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।’

তিনি বলেন, ‘সিরাজগঞ্জ জেলার সদর উপজেলায় ৬৮ মেগাওয়াট ক্ষমতার সোলার পার্ক প্রকল্প স্থাপনের দরপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। বাংলাদেশ-চায়না রিনিউয়েবল এনার্জি কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড কর্তৃক দরপ্রস্তব দাখিল করে। প্রস্তাবটি আর্থিক ও কারিগরিভাবে রেসপনসিভ হয়। ট্যারিফ ভিত্তিতে বিদ্যুৎ ক্রয় করা হলে ২০ বছর মেয়াদে উক্ত কোম্পানিকে প্রতি কিলোওয়াট ঘন্টা ৮.১৬ টাকা হিসাবে আনুমানিক ১,৭৯৮ কোটি ৪৮ লক্ষ টাকা পরিশোধ করতে হবে।’

সামসুল আরেফিন বলেন, ‘সভায় টেবিলে চারটি ক্রয় প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয় প্রস্তাবগুলোর মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিতরণের জন্য ১০টি লটে ৪১ হাজার ল্যাপটপ এবং ১০টি লটে ৪১ হাজার স্পিকার ক্রয়ের প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। দরপত্রের সব প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত রেসপনসিভ সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান (১) ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্টিজের থেকে ১০টি লটে ৪১ হাজার ল্যাপটপ কিনতে ২০১ কোটি ৬৫ লাখ ১৯ হাজার ২৩২ টাকায় এবং (২)গ্লোবাল ব্রান্ড প্রাইভেট লিমিটেডের কাছ থেকে ১০টি লটে ৪১ হাজার স্পিকার ১৪ কোটি ৫২ লাখ ৫৭ হাজার ৪৪০ টাকায় অর্থাৎ ৪১ হাজার ল্যাপটপ এবং ৪১ হাজার স্পিকার কিনতে সর্বমোট ব্যয় হবে ২১৬ কোটি ১৭ লাখ ৭৬ হাজার ৬৭২ টাকা ব্যয় হবে। প্রতিটি ল্যাপটপের গড় দাম ৪৯ হাজার ১৮৩ টাকা; এবং প্রতিটি স্পিকারের গড় দাম ৩,৫৪২ টাকা।’

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির আওতায় কানাডা কমার্শিয়াল করপোরেশনের কাছ থেকে ১ম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন মিউরেট-অব-পটাশ (এমওপি) সার আমদানির প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। প্রতি মেট্রিক টন এমওপি সার ৫৭০ মার্কিন ডলার হিসেবে এমওপি সার বর্তমান আন্তর্জাতিক বাজার দামে সর্বমোট ১ কোটি ৭১ লাখ মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৪৬ কোটি ৮০ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ব্যয় হবে।’

রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির আওতায় কানাডিয়ান কমার্শিয়াল করপোরেশন থেকে ২য় লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন মিউরেট-অব-পটাশ (এমওপি) সার আমদানির আরও একটি প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় কমিটি। প্রতি মেট্রিক টন এমওপি সার ৬১৭.৫০ মার্কিন ডলার হিসেবে বর্তমান আন্তর্জাতিক বাজার দামে সর্বমোট ১ কোটি ৮৫ লাখ ২৫ হাজার মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৫৯ কোটি ৩ লাখ ৭১ হাজার ২৫০ টাকা ব্যয় হবে।

এছাড়াও সভায় রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির আওতায় রাশিয়া থেকে ১ম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন মিউরেট-অব-পটাশ (এমওপি) সার আমদানির প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রতি মেট্রিক টন এমওপি সার ৬১৭.৫০ মার্কিন ডলার হিসেবে বর্তমান আন্তর্জাতিক বাজার দামে সর্বমোট ১ কোটি ৮৫ লাখ ২৫ হাজার মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৫৯ কোটি ৩ লাখ ৭১ হাজার ২৫০ টাকা ব্যয় হবে বলে জানান অতিরিক্ত সচিব সামসুল আরেফিন।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি, কালিয়াকৈর, গাজীপুর-এ স্থাপিত বাংলাদেশ ডাটা সেন্টার কোম্পানি লিমিটেড-এর মালিকানাধীন ‘ফোর টায়ার ডাটা সেন্টার’-এর জন্য ওরাকল করপোরেশন থেকে ওরাকল ক্লাউড সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে ক্রয়ের প্রস্তাবটি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় প্রত্যাহার করেছে। কারন এটি একটি লিমিটেড কোম্পানি প্রল্পটি তারা নিজেরাই বাস্তবায়ন করতে পারে। ক্রয় কমিটির অনুমোদনের প্রয়োজন নেই।’

এরআগে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি)- এর ভিত্তিতে ‘ঢাকা ইস্ট-ওয়েস্ট এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে’ নির্মাণের একটি প্রস্তাবে নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে অতিরিক্ত সচিব জানান।

হাসনাত/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়