ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

মির্জাপুরে ৩ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

বিশেষ প্রতিবেদক, মির্জাপুর, টাঙ্গাইল থেকে || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:০২, ১৭ জানুয়ারি ২০২২  
মির্জাপুরে ৩ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

জামানত হারানো তিন প্রার্থী (বাঁ থেকে) রুপা রায় চৌধুরী, নুরুল ইসলাম নুরু ও গোলাম নওজব চৌধুরী।

কাস্টিং ভোটের সাড়ে ১২ শতাংশ ভোট না পাওয়ায় টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেওয়া পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে তিন জনই জামানত হারিয়েছেন। 

জামানত হারানো প্রার্থীরা হলেন— বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির রুপা রায় চৌধুরী, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির গোলাম নওজব চৌধুরী পাওয়ার এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল ইসলাম নুরু। জামানত হারানো প্রার্থীরা এর আগে জাতীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। 

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের চার বারের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা একাব্বর হোসেন গত ১৬ নভেম্বর মারা যান। তার মৃত‌্যুর পর নির্বাচন কমিশন আসনটি শূন‌্য ঘোষণা করে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। সে অনুযায়ী গত ১৬ জানুয়ারি উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। 

এই আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪০ হাজার ৩৭৯ জন। এর মধ্যে ভোট কাস্ট হয়েছে ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৫১ জনের। আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কা নিয়ে খান আহমেদ শুভ একলাখ ৪০৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী জাতীয় পার্টির মো. জহিরুল ইসলাম লাঙ্গল মার্কা নিয়ে ভোট পান ১৬ হাজার ৭৭৩টি। 

জহিরুল ইসলাম জামানত হারানো থেকে রক্ষা পেলেও বাকি তিন প্রার্থী নিজেদের জামানত হারিয়েছেন। এদের মধ্যে রুপা রায় চৌধুরী (ডাব) পেয়েছন ৪৩৮ ভোট, গোলাম নওজব চৌধুরী পাওয়ার (হাতুড়ি) ১ হাজার ৪৫ এবং নুরুল ইসলাম নুরু পেয়েছেন ২ হাজার ৪৩৬ ভোট। জামানত ফিরে পেতে তাদের প্রত্যেকের প্রয়োজন ছিল ১৫ হাজার ৫৯৪ ভোট। 

টাঙ্গাইলের সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান বলেন, ‘জামানত ফেরত পেতে কাস্টিং ভোটের সাড়ে বার শতাংশ ভোট পেতে হয়। এবারের নির্বাচনে তিনজন সেই পরিমাণ ভোট না পাওয়ায় তাদের জামানত ফিরে পাওয়ার যোগ্যতা হারিয়েছেন।

হাসনাত/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়