ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯ ||  ১২ মহরম ১৪৪৪

আরও সাড়ে ১৩ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল কিনবে টিসিবি

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০০, ১২ জুন ২০২২  
আরও সাড়ে ১৩ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল কিনবে টিসিবি

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে স্থানীয় উৎস থেকে ১৩ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল কেনার উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এতে ব্যয় হবে ১২৩ কোটি ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা। টিসিবির নিজস্ব তহবিল এবং সরকারি গ্যারান্টির বিপরীতে ব্যাংক থেকে লোন অ্যাগেইনস্ট ট্রাস্ট রিসিপট (এলটিআর) নিয়ে এসব ডাল কেনা হবে। এর আগে ৫ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল সংগ্রহ করেছে টিসিবি।


গত ১২ মে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামী ১৬ থেকে ৩০ জুন ১ কোটি পরিবারের কাছে ভর্তুকি দামে সয়াবিন তেল, চিনি ও মসুর ডাল বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়। প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আসন্ন ঈদ উপলক্ষে ১ কোটি পরিবারের কাছে ভর্তুকি দামে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি ও বিতরণের পরিকল্পনা এবং কৌশল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সময়স্বল্পতার কারণে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে স্থানীয়ভাবে ১৩ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল কেনা হবে।

মসুর ডাল কেনার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলে মোট ৭টি দরপত্র দাখিল হয়। দরপত্রে সরকারি ক্রয় নীতিমালা অনুসরণ করা হয়। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক সুপারিশ করা দাম ১ শতাংশ অগ্রিম আয়কর, ৭.৫ শতাংশ ভ্যাট এবং পরিবহন খরচসহ প্রতি কেজি মসুর ডালের দাম উল্লেখ করা করা হয় ১১৭ টাকা ৫০ পয়সা। তবে, অফিশিয়াল কস্ট এস্টিমেট ছিল প্রতি কেজি ১২১ টাকা ৩১ পয়সা।

দরপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১৪ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল স্থানীয়ভাবে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে কেনার সুপারিশ প্রণয়নের জন্য দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি প্রাপ্ত দরপ্রস্তাব, তুলনামূলক বিবরণী দাখিল করে। পরীক্ষা শেষে দাখিল করা দরপ্রস্তাব ৭টি রেসপনসিভ পাওয়া যায়। মূল্যায়ন কমিটি প্রাপ্ত প্রস্তাবিত দরের বিষয় আলোচনা শেষে সব মিলিয়ে প্রতি কেজি মশুর ডালের দাম ১১৭ টাকা ৫০ পয়সা যথার্থ বলে সুপারিশ করে। এ বিষয়ে রেসপনসিভ সিটি অটো রাইচ অ্যান্ড ডাল মিলস লিমিটেড ছাড়া অন্য সব প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত দামে মসুর ডাল সরবরাহ করতে সম্মতি প্রকাশ করে।

দরপ্রস্তাব অনুযায়ী ১ অথবা ২ কেজির প্যাকেটে প্রতি কেজি মসুর ডালের দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দাম ১২০ টাকা ৩১ পয়সা। অপরদিকে, দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত প্রতি কেজি মসুর ডালের প্রস্তাবিত দর ও দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দরের প্রতিকেজিতে পার্থক্য ১২০.৩১-১১৭.৫০=২.৮১ টাকা অর্থাৎ প্রতি কেজিতে ২.৮১ টাকা কম।

সার্বিক বিষয় পর্যলোচনা করে আসন্ন ঈদ উপলক্ষে ১ কোটি পরিবারের কাছে ভর্তুকি দামে মসুর ডাল বিক্রি করা জন্য এসিআই পিউর ফ্লাওয়ার লিমিটেডের কাছ থেকে ২,৫০০ মেট্রিক টন, সেনা কল্যাণ সংস্থার কাছ থেকে ৩,০০০ মেট্রিক টন, এনএস কন্সট্রাকশনের কাছ থেকে ২,০০০ মেট্রিক টন , বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের কাছ থেকে ২,০০০ মেট্রিক টন, নাবিল নব ফুডস লিমিটেডের কাছ থেকে ২,০০০ মেট্রিক টন এবং ইজি সার্ভিস লিমিটেডের কাছ থেকে ২,০০০ মেট্রিক টনসহ মোট ১৩,৫০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল সংগ্রহ করার সুপারিশ করে দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি।

এর আগে সংগ্রহ করা ৫,০০০ কেজি মসুর ডালের প্রতি কেজির দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দাম ছিল ১১২.৩৪ টাকা। সরবরাহকারীরা প্রতি কেজির দাম ১০৭.৫০ উল্লেখ করে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে ওই ৫,০০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল সরবরাহ করে। অর্থাৎ আগের চেয়ে প্রতি কেজিতে ১১৭.৫০-১০৭.৫০=১০.০০ টাকা বেশি দিয়ে ১৩,৫০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল কেনা হবে।

এ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদনের জন্য অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির পরবর্তী সভায় উপস্থাপন করা হবে বলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। 

হাসনাত/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়