ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯ ||  ১২ মহরম ১৪৪৪

১৬ জুন থেকে তেল-চিনি-ডাল বিক্রি করবে টিসিবি

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৪১, ১৪ জুন ২০২২   আপডেট: ১৩:৪৬, ১৪ জুন ২০২২
১৬ জুন থেকে তেল-চিনি-ডাল বিক্রি করবে টিসিবি

ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত এক কোটি পরিবারের কাছে ভর্তুকি দামে সয়াবিন তেল, চিনি ও মসুর ডাল বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এরই অংশ হিসেবে ১৫ হাজার মেট্রিক টন চিনি সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। স্থানীয় সরবরাহকারীদের কাছ থেকে এই চিনি সংগ্রহ করতে ব্যয় হবে ১২৩ কোটি ৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে ১৮ হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল সংগ্রহ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি চিনি ও সয়াবিন তেল সংগ্রহ করা হবে। রাষ্ট্রীয় সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এর মাধ্যমে ভর্তুকি দামে এইসব পণ্য ঈদের আগেই বিতরণ করা হবে।

গত ১২ মে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় ঈদ উপলক্ষে এক কোটি পরিবারের কাছে ভর্তুকি দামে সয়াবিন তেল, চিনি ও মসুর ডাল বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়। প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা ও কৌশল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সময় স্বল্পতার কারণে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে স্থানীয়ভাবে ১৫ হাজার মেট্রিক টন চিনি ক্রয় করা হবে।

এ অবস্থায় চিনি সরবরাহকারীদের কাছে প্রস্তাব আহ্বান করা হলে দেশীয় সরবরাহকারী সংস্থা মেঘনা সুগার রিফাইনারি লিমিটেড ও সিটি সুগার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের কাছ থেকে সাড়া পাওয়া যায়। সরকারি নির্দেশনায় মসুর ডাল ও চিনি ১ ও ২ কেজি করে প্যাকেটে বিক্রি করবে টিসিবি। এ বিষয়ে চিনি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ১ কেজির প্যাকেটে চিনি সরবরাহের অনুরোধ করা হয়। শুধু সিটি সুগার ইন্ডাস্ট্রিজ এবং মেঘনা সুগার রিফাইনারি লিমিটেড ১ হাজার মেট্রিক টন করে মোট ২ হাজার মেট্রিক টন চিনি ১ কেজির প্যাকেট সরবরাহে সম্মত হয়েছে। 

মেঘনা সুগার রিফাইনারি লিমিটেড থেকে ১ কেজির প্যাকেটের দাম পড়বে ৮৭ টাকা এবং ৫০ কেজির বস্তার প্রতি কেজি চিনি দাম পড়বে ৮৩ টাকা। অন্যদিকে সিটি সুগার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড থেকে ১ কেজির প্রতি প্যাকেটের দাম পড়বে ৮৭.৭৮ টাকা এবং ৫০ কেজির বস্তার প্রতি কেজির দাম পড়বে ৮৩.৬৭ টাকা।

সূত্র জানায়, দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি তাদের সুপারিশে চিনির দাম ২ শতাংশ অগ্রিম আয়কর ও পরিবহন খরচসহ ৫ কেজির বস্তায় ৮১.৬৩ টাকা এবং ১ কেজির প্যাকেটে ২০ কেজির বস্তায় ৮৪.৬৯ টাকা ছিলো। কিন্তু দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দর ছিলো ২ শতাংশ অগ্রিম আয়কর এবং পরিবহন খরচসহ ১ কেজির প্যাকেটে ২০ কেজির বস্তায় ৯০.৯৪ টাকা এবং ৫০ কেজির বস্তায় ৮৮.৯৪ টাকা। অর্থাৎ দাপ্তারিক প্রাক্কলিত দর এবং দরপত্র মূল্যায়ন কমিটির সুপারিশ করা দরের চেয়েও কম দরে চিনি সংগ্রহ করা হচ্ছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাবে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য কমিটির পরবর্তী সভায় উপস্থাপন করা হবে বলে জানা গেছে।

ঢাকা/হাসনাত/ইভা 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়