ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৩ ১৪২৯

ওয়ালটন হেড কোয়ার্টারে ‘উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তা ক্যাম্পেইন’ অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০০, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ২২:০১, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
ওয়ালটন হেড কোয়ার্টারে ‘উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তা ক্যাম্পেইন’ অনুষ্ঠিত

‘উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তা ক্যাম্পেইন’-এ উপস্থিত ওয়ালটন হেড কোয়ার্টারের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাগণ

‘এক মিনিটের নিরাপত্তা, নিশ্চিত করবে সারাজীবনের সুস্থতা’ এ স্লোগান নিয়ে ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র হেড কোয়ার্টারে নির্মাণাধীন এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তা ক্যাম্পেইন-২০২২’।

গত সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসির হেড কোয়ার্টারে ক্যাম্পেইনটি আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটির এনভায়রনমেন্ট হেলথ অ্যান্ড সেফটি (ইএইচএস) বিভাগ। সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিভাগের অংশগ্রহণে বিভিন্ন ব্যবহারিক এবং সচেতনতামূলক আলোচনার মধ্য দিয়ে ক্যাম্পেইনটি সফলভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

ক্যাম্পেইনে আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রশাসন বিভাগের প্রধান ইঞ্জিনিয়ার মো. ইয়াছির আল ইমরান, ইএইএস বিভাগের প্রধান মো. লিটন মোল্লা, ওয়ার্কশপ ইনচার্জ প্রকৌশলী সানী উল ইসলাম, নির্মাণ বিভাগের প্রধান মোহন কুমার পাল, বিল্ডিং ইরেকশনের টিম লিডার বুলবুল এবং জাকির মিয়া। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইএইচএস বিভাগের কাজী জাহিদ হাসান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ‘কর্মক্ষেত্রে মারাত্মক দুর্ঘটনা এবং আঘাতে পঙ্গুত্বের প্রধান কারণগুলোর একটি হলো উচ্চতা থেকে পতন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান এইচএলএসের তথ্য অনুযায়ী শুধু যুক্তরাজ্যে প্রতিদিন গড়ে ৯৭টি মারাত্মক দুর্ঘটনার কারণ এই উচ্চতায় কাজ। বিগত চার বছরে কর্মক্ষেত্রে মৃত্যুর অন্যতম কারণগুলোর মধ্যে শীর্ষে আছে উচ্চতায় কাজ সংশ্লিষ্ট দুর্ঘটনা।

ওয়ার্কশপ ইনচার্জ প্রকৌশলী সানী উল ইসলাম বলেন, ‘ওয়ালটন নিরাপত্তা রক্ষায় বদ্ধপরিকর। ঝুঁকিপূ্র্ণ কাজ, বিশেষ করে উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তার জন্য প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এ ক্যাম্পেইন। বিগত দিনগুলোতে উচ্চতা সংশ্লিষ্ট কাজে অধিকতর নিরাপত্তা নিশ্চিতে বিভিন্ন নিরাপত্তা উপকরণ প্রচলন করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়া ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।’

নির্মাণ বিভাগের প্রধান মোহন কুমার পাল বলেন, ‘আমাদেরকে অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে, নির্মাণ সংশিষ্ট কাজটি পরিকল্পিত। সঠিক তত্ত্বাবধান এবং কাজটি করার দক্ষতা,  জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতাসম্পন্ন দক্ষ লোকদের দ্বারা সম্পন্ন করা হচ্ছে, এই বিষয়টি আমাদের অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। উচ্চতায় কাজ করার জন্য আমাদের অবশ্যই সঠিক ধরনের নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করতে হবে। নিজের কাজের জন্য প্রয়োজনীয় কোনো নিরাপত্তা উপকরণ না নিয়ে কাজ শুরু করা যাবে না। নিজের ও পরিবারের কথা ভেবে হলেও কোনো রকম ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ইচ্ছাকৃতভাবে জড়িত হয়ে নিজের পরিবারকে বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া যাবে না।’

‘উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তা ক্যাম্পেইন’-এ অংশগ্রহণকারীরা

অনুষ্ঠানে শ্রমিকরা তাদের নিরাপত্তার বিষয়ে ওয়ালটনের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরে কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। তারা নিজেরাও তাদের টিম মেম্বারদের শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে কাজ করতে দেবেন না বলেও অঙ্গীকার করেন।

অনুষ্ঠানে ইএইচএস বিভাগের প্রধান মো. লিটন মোল্লা বলেন, ‘উচ্চতায় কাজ বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনার কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম। তাই, এই কাজের ব্যাপারে নিরাপত্তার বিষয়গুলোতে সবচেয়ে বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’

উচ্চতায় সংশ্লিষ্ট কাজের সঙ্গে জড়িত শ্রমিকদের অধিকতর নিরাপত্তা নিশ্চিতে ওয়ার্কশপ টিম এবং কন্সট্রাকশন টিম উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করায় তাদেরকে ধন্যবাদ জানান মো. লিটন মোল্লা। এর পর তিনি উচ্চতায় কাজের নিরাপত্তার জন্য ব্যবহৃত পিপিই‘র ক্রমবিবর্তনগুলো দেখান। সেই সঙ্গে সকল আধুনিক নিরাপত্তা উপকরণের সঠিক ব্যবহারের লাইভ ডেমনস্ট্রেশন দেখান।

মো. লিটন মোল্লা ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও গোলাম মুর্শেদের নেওয়া ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে এবং শীর্ষ গ্লোবাল ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড হবার রোডম্যাপ হিসেবে দুর্ঘটনার সংখ্যা শূন্যতে নিয়ে আসার যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে, তা অর্জনে সবার সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান।

প্রশাসন বিভাগের প্রধান ইঞ্জিনিয়ার মো. ইয়াছির আল ইমরান বলেন, ‘কোম্পানির ক্রমবর্ধনার কাজের গতির পাশাপাশি আর্ন্তজাতিক বাজারে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণে ভালো পণ্য উৎপাদনের পাশাপাশি দক্ষ জনবলের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কোম্পানির দায়বদ্ধতা আছে।’ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সর্বদা সহযোগিতার হাত প্রসারিত রাখার অঙ্গীকার করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা মেনে কাজ করার ব্যাপারে অগ্রগামী ভূমিকা পালন করায় কন্সট্রাকশন এবং ওয়ার্কশপ টিমের বেশ কয়েকজনকে পুরস্কৃত করা হয়।

একরাম/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়