RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১০ ১৪২৭ ||  ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মগবাজার গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২৬, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০  
মগবাজার গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

রাজধানীর মগবাজার গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষক (সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক) খুরশিদা খানমের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। স্কুলের ম‌্যানেজিং কমিটির সদস্যরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থায় অভিযোগ জানিয়েছেন।

অভিযোগে উঠেছে, নিয়মবহির্ভূতভাবে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে নেন খুরশিদা খানম। সম্প্রতি তার ও স্কুল ম‌্যানেজিং কমিটির সভাপতি এস এম সাইফুজ্জামান বাদশার স্বাক্ষরে উত্তরা ব্যাংক থেকে ১০ লাখ ৪৬ হাজার ৭৯৪ টাকা এবং যমুনা ব্যাংক থেকে ৮৯ লাখ ৯৮ হাজার ৫০০ টাকা তোলা হয়েছে। চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল খুরশিদা খানমের চাকরির মেয়াদ পার হলেও তিনি বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মিলে চলতি বছরের ২০ মে যমুনা ব্যাংকের মিরপুর শাখায় চিঠি পাঠিয়ে মগবাজার গার্লস হাই স্কুলের এফডিআরের ২ কোটি টাকা আত্মসাতের উদ্দেশ্যে যমুনা ব্যাংকের নিউ বেইলি রোড শাখায় (মহিলা শাখা) স্থানান্তরের আবেদন করেছেন।

আরও অভিযোগ রয়েছে, জোর করে খুরশিদা খানমকে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে মিথ্যা অভিযোগ করেন তিনি। পরে তৎকালীন ঢাকা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক প্রীতিশ কুমার সরকার স্বাক্ষরিত একটি আদেশ এনে কয়েকজন শিক্ষককে সঙ্গে নিয়ে জোর করে প্রধান শিক্ষকের চেয়ার দখল করেন খুরশিদা খানম। আদালতে এ সংক্রান্ত মামলা চলছে। তিনি অবৈধভাবে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সেলিনা হোসেনকে চাকরিচ্যুত করার উদ্দেশ্যে নিজেকে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দাবি করে বেআইনিভাবে অ‌্যাডহক কমিটির মিটিং আহ্বান করেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা-২০০৯ অমান্য করে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে এস এম সাইফুজ্জামান বাদশার নাম প্রস্তাব করে তা অনুমোদন করিয়ে আনেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে খুরশিদা খানম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ম্যানেজিং কমিটির দুই-একজন নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে না পেরে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছে। সব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিষ্ঠান চালাতে অর্থের প্রয়োজন হয় বলে টাকা তুলতে হয়েছে। প্রধান শিক্ষক একা টাকা তুলতে পারেন না। ম‌্যানেজিং কমিটির সভাপতির স্বাক্ষর নিয়ে টাকা তোলা হয়েছে।’

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক অধ্যাপক মনসুর ভুঞা বলেছেন, ‘মগবাজার গার্লস হাই স্কুলের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ, নিয়োগবাণিজ্যসহ বেশকিছু অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। বিষয়টি তদন্ত করতে ঢাকা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ঢাকা/ইয়ামিন/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়