ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

জাবির তিন উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় হবে ৩৫৮ কোটি টাকা

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৫৫, ২ মার্চ ২০২২  
জাবির তিন উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় হবে ৩৫৮ কোটি টাকা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যবস্থার মানোন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে ৬ তলা বিশিষ্ট লাইব্রেরি ভবন, ১০ তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবন এবং ৩ তলা বিশিষ্ট স্পোর্টস কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হবে। এই তিনটি প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৩৫৮ কোটি ৬৪ লাখ ১২ হাজার টাকা।

সূত্র জানায়, তিনটি প্রকল্পের মধ্যে ৬ তলা বিশিষ্ট লাইব্রেরি ভবন নির্মাণের সঙ্গে অভ্যন্তরীণ পয়ঃনিষ্কাষন ব্যবস্থা, পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ, লিফট স্থাপন, ড্রেন ও  রাস্তা নির্মাণ, সোলার প্যানেল ও অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা স্থাপন করা হবে।

প্রকল্পটির নির্মাণকাজের জন্য ই-জিপিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়।  বিবেচ্য নির্মাণ কাজের জন্য গণপূর্ত অধিদপ্তরের রেট শিডিউল-২০১৮ অনুয়ায়ী প্রাক্কলন প্রস্তুত করা হয়। ই-জিপিতে দরপত্র আহ্বানে দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ১০৩,৬১,৯২,৯৩৫ টাকা যা এইচওপিই কর্তৃক অনুমোদিত হয়। অনুমোদিত ডিপিপি অনুযায়ী বিবেচ্য নির্মাণকাজসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজের জন্য ১০৩ কোটি ৭৮ লাখ ৪১ হাজার টাকার সংস্থান রয়েছে।

সূত্র জানায়, লাইব্রেরি ভবন নির্মাণকাজের জন্য ই-জিপিতে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়।  নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে  মোট ৪টি দরপত্র বিক্রি হয় এবং দুইটি দরপত্র জমা পড়ে।  ২০২১ সালের ২১ নভেম্বর দরপত্র উন্মুক্ত করা হয়।  এতে ১০১ কোটি ৮৫ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৬ টাকা উল্লেখ করে যৌথভাবে এমবিপিএল-এটিসিএল সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

অন্য একটি প্রকল্পের আওতায় ১০ তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ করা হবে।  প্রকল্পের আওতায় ভবন নির্মাণের পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ পয়ঃনিষ্কাষন ব্যবস্থা, রাস্তা নির্মাণ, সোলার প্যানেল ও অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা স্থাপন করা হবে। প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ কাজের জন্য গণপূর্ত অধিদপ্তরের রেট শিডিউল-২০১৮ অনুয়ায়ী প্রাক্কলন প্রস্তুত করা হয়। ই-জিপিতে দরপত্র আহ্বানে দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ১৫২,৬৭,৪৬,৮৭৬ টাকা যা এইচওপিই কর্তৃক অনুমোদিত হয়।  অনুমোদিত ডিপিপি অনুযায়ী বিবেচ্য নির্মাণ কাজসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজের জন্য ১৫২ কোটি ৮০ লাখ ৮৪ হাজার টাকার সংস্থান রয়েছে।

সূত্র জানায়, আলোচ্য ভবন নির্মাণকাজের জন্য ই-জিপিতে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়।  বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী দরপত্র দাখিলের সর্বশেষ তারিখ ২০২১ সালের ২১ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ৩টি দরপত্র বিক্রি হয় এবং একটি দরপত্র প্রস্তাব জমা পড়ে। যৌথভাবে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এমজেসিএল-এমএনএইচসিএল-১৩৭ কোটি ৪২ লাখ ২৪ হাজার ৮৬৩ টাকা উল্লেখ করে রেসপন্সিভ একমাত্র দরদাতা হিসেবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

এছাড়াও তিন তলা বিশিষ্ট একটি স্পোর্টস কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হবে।  প্রকল্পটির জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ২টি দরপত্র জমা পড়ে। ই-জিপিতে দরপত্র আহ্বানে দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ১২১ কোটি ৮১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৭ টাকা যা এইচওপিই কর্তৃক অনুমোদন করা হয়। অনুমোদিত ডিপিপি অনুযায়ী ভবনটির নির্মাণকাজসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজের জন্য ১২১ কোটি ৯৮ লাখ ৮২ টাকার সংস্থান রয়েছে।  আলোচ্য ভবন নির্মাণকাজের জন্য ই-জিপিতে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্র দাখিলের সর্বশেষ তারিখে মোট ৪টি দরপত্র বিক্রি হয় এবং দুইটি দরপত্র প্রস্তাব জমা পড়ে। এতে মাহবুব ব্রাদার্স প্রাইভেট লিমিটেড ১১৯ কোটি ৩৬ লাখ ১ হাজার ৩৬১ টাকা উল্লেখ করে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

সূত্র জানায়, এ সংক্রান্ত পৃথক তিনটি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় উপস্থাপন করা হবে।

/হাসনাত/এসবি/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়