ঢাকা, শুক্রবার, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মেহেন্দী ঝড়ে টালমাটাল ঢাকার দর্শক

বিনোদন প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৫ ১:৫৩:০৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১৫ ৮:২৭:১৬ এএম

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের নৃত্যশিল্পী সামিনা হোসেন প্রেমা ও তার নৃত্যদল ভাবনার শিল্পীদের নাচের মধ্য দিয়ে শুরু হয় তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট ২০১৯’।

এরপর মঞ্চে লোকসংগীতের পরিবেশনা নিয়ে আসে গানের দল জর্জিয়ার ‘শেভেনেবুরেবি’। মঞ্চে হাজির হয়ে এই দলের প্রধান বাংলায় কথা বলে চমকে দিলেন দর্শকদের। বললেন, ‘স্বাগতম ঢাকা। তোমরা কেমন আছ? আমরা তোমাদের ভালোবাসি।’এরপর গান গাইতে শুরু করেন তারা। গানের কথা না বুঝলেও তাদের গানের সুরের মাধুরীতে ভেসেছেন দর্শক।

রাত ৯টায় শুরু হয় ফোক ফেস্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। শুরুতেই বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনের সদ্যপ্রয়াত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী, বারী সিদ্দিকী, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল, আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি তথ্যচিত্র দেখানো হয়।

এরপর স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক সান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী। এরপর তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আনুষ্ঠানিকভাবে লোকসঙ্গীত উৎসব উদ্বোধন করেন।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমি না আসলে জানতেই পারতাম না এত বড় আয়োজন হচ্ছে এখানে। শুরুতেই আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাই। যারা সঙ্গীত চর্চা করেন তারা পরিশীলিত মনের মানুষ। যারা সঙ্গীত চর্চা করেন, সংস্কৃতি চর্চা করে তারা কখনো বিপদগামী হয় না।’

উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতার পর মঞ্চে আসেন বাংলাদেশের বাউলশিল্পী শাহ আলম সরকার। বাংলা গান যারা শো‌নেন তারা সবাই শাহ আলম সরকার‌কে চে‌নেন। বাংলা‌দে‌শের লোকসঙ্গী‌তের এক জন‌প্রিয় মুখ তি‌নি। প্রথ‌মেই অসাম্প্রদায়িক বাংলার বার্তা ছড়ান গা‌নে গা‌নে। গে‌য়ে উঠ‌লেন ‘কী দরকার হিন্দু-মুসলমান’; এরপর গাইলোন ‘বিয়ে করা মানে জ্যান্ত প্রাণে মরা’, ‘এত যে নিঠুর বন্ধু জানা ছিল না’, ‘পিরিত যতন পিরিত যতন’, ‘আমি তো মরে যাব, চলে যাব, রেখে যাব সবই’।
একের পর এক গান গে‌য়ে দর্শ‌কদের হৃদ‌য়ে ঝড় তো‌লেন তি‌নি। ‘আমি তো ম‌রে যা‌ব, চ‌লে যা‌ব রে‌খে যাব সবই’- এ গানটির মধ্য দিয়ে নিজের পরিবেশনা শেষ করেন শাহ আলম সরকার।

অনেক প্রতিক্ষার পরে পাগড়ি ও দীর্ঘ আলখাল্লা প‌রে ম‌ঞ্চে হা‌জির হ‌ন ভারতীয় পপব্যক্তিত্ব দালের মেহেন্দী। ফোক ফে‌স্টের প্রথম দি‌নের প্রধান চমক ছি‌লেন তি‌নি। তা‌কে দে‌খেই উচ্ছ্ব‌সিত হ‌লেন দর্শক। ম‌ঞ্চে এসে বল‌লেন কে‌মন আ‌ছো বাংলা‌দেশ। এরপর গান ধর‌লেন। শুরুতেই ‘বাহুবলী দ্য বিগিনিং’ চলচ্চিত্রের টাইটেল গান ‘বাহুবলী’ গেয়ে শোনান। গান ধরার সঙ্গে সঙ্গে মনে মনে হলো আর্মি স্টোডিয়ামে ঝড় বইছে। তার গানের সঙ্গে সঙ্গে টালমাটাল হয়ে দর্শক নাচছেন। এককে একে গেয়ে শোনান ‘বলো তানা রারা’, ‘হ্যায়ো রাব্বা হ্যায়ো রাব্বা’, ‘ম্যায় রাব রাব কারদি’, ‘সারি দিল দে দি কুড়িয়া’, ‘ও গোরি নাচেগি’, ‘গোরি নাল ইশক মিঠা’, ‘হোগায়ে তো বাল্লে বাল্লে’সহ তার জনপ্রিয় সব গান। শে‌ষে বাংলা‌দে‌শের গা‌য়িকা রুনা লায়লার প্রশংসা ক‌রেন। গে‌য়ে শোনান ‘দমাদম মাস্ত কালান্দার’ গান‌টি। সে সঙ্গে বলিউড চলচ্চিত্রগুলোর জনপ্রিয় বেশ কিছু গান শোনান। দা‌লের মে‌হে‌ন্দির গা‌নে নে‌চে‌ছে স্টে‌ডিয়াম ভরা দর্শক। দালের মেহেন্দী হলেন একজন ভারতীয় কণ্ঠশিল্পী, সুরকার, গীতিকার, লেখক, প্রযোজক, সম্পাদক এবং পরিবেশবিদ। তার মূল নাম দালের সিং। ভাংড়া সঙ্গীতকে বিশ্বব্যাপী ছ‌ড়ি‌য়ে দি‌তে কাজ ক‌রে চ‌লে‌ছেন তি‌নি। চল‌চ্চি‌ত্রেও উপহার দি‌য়ে‌ছেন অ‌নেক সুপার‌হিট গান। এর পরিবেশনার মধ্য দিয়ে প্রথম দিনের ফোক ফেষ্ট শেষ হয়।  

প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয়ে উৎসব চলবে রাত ১২টা পর্যন্ত। বাংলাদেশসহ ছয় দেশের দুই শতাধিক শিল্পী অংশ নিচ্ছেন এবারের উৎসবে। ২০১৫ সাল থেকে প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট’। শনিবার শেষ হ‌বে এবারের উৎসব।
 

ঢাকা/রাহাত সাইফুল/নাসিম 

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন