ঢাকা, শনিবার, ৪ মাঘ ১৪২৬, ১৮ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’

বিনোদন ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৫ ১১:৪১:৫৫ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৫ ১১:৪৯:৫৫ এএম

দেওয়ান গাজী, গাজীপুরের দেওয়ান। ধানী জমি, সুপারির ক্ষেত, মাছের বিল, গরুর বাথান, চালের কল—যতদূর দেখা যায় সবই তার সম্পত্তি। লোভী গাজী দেওয়ানেরই আরেক রূপ দেখা যায়, যখন সে মদের ঘোরে থাকে। তখন দেওয়ান গাজী হয়ে ওঠেন এক দয়ালু, স্বার্থহীন মানুষ। ঘটনাচক্রে তার খাস বেয়ারা হয়ে আসে মাখন আলি। এদিকে গাজী মেয়ের বিয়ে ঠিক করেন দারোগা নফর আলির সঙ্গে। মেয়ে লাইলী সে বিয়েতে রাজি হয় না।

লাইলী মাখনের সঙ্গে ফন্দি করে কীভাবে দারোগার সঙ্গে বিয়েটা ভাঙা যায়। দারোগাকে বিয়ে না করার জন্য সে মাখনকেও বিয়ে করতে রাজি। এদিকে দারোগা নফর আলি সবকিছু বুঝেও না বোঝার ভান করে থাকে। কারণ দেওয়ান গাজীর মেয়ের জামাই হতে পারলে তারও সুবিধা অনেক। দেওয়ান গাজীর দ্বৈতসত্তা আর লাইলীর ফন্দিবাজির মাঝখানে মাখন পড়ে উভয় সংকটে। তারপর  সে পালিয়ে যাওয়ার পথ খোঁজে। এমন কোথাও যেখানে বুক ভরে শ্বাস নেয়া যায়। কিন্তু কোথায় যাবে সে? যতদূর চোখ যায় সবকিছুই যে বুর্জোয়া আর পুঁজিবাদীদের দখলে।

এমন গল্প নিয়ে গড়ে ওঠেছে ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’ নাটকের গল্প। নাটকটি রূপান্তর করেছেন আসাদুজ্জামান নূর। নির্দেশনা দিয়েছেন মনিরুল ইসলাম রুবেল। আজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে প্রদর্শিত হবে নাটকটি। এটি মঞ্চায়নের আগে প্রাচ্যনাট স্কুল অব অ্যাক্টিং অ্যান্ড ডিজাইনের ৩৭তম ব্যাচের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠিত হবে। ৩৭তম ব্যাচের সমাপনী প্রযোজনা এটি।

এ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অভিনেতা সুভাশিষ ভৌমিক, চিত্রশিল্পী বিপুল শাহ্‌। নাট্য প্রদর্শনী ছাড়াও মিলনায়তনের বাইরে থাকছে উন্মুক্ত পোস্টার প্রদর্শনী।    

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন—উইলিয়াম নিক্সন গোমেজ, এ. কে এম ইতমাম, ইয়াদ খোরশীদ ঈশান, রওশন আক্তার, সজীব হাজরা, স্বাতী ভদ্র, রাইয়াত আহমেদ রুপজ, খাইরুল কবির, সাদিয়া তাবাসসুম মৌসুম, এলিজাবেথ ইতি মারান্ডী, আফরিন তানিয়া, নাহিদা আক্তার আঁখি, মো. মাহদী হাসান, আব্দুল্লাহ-আল-মামুন, মো. হাসানুজ্জামান, সাইফুল ইসলাম সাকিব, মো. আকতার-উজ-জামান, তাহমিম হাবিব খান, রঞ্জন মীর মহসীন, প্রদীপ বর্ধন, মো. কামাল হুসাইন, তাউসিফ-উল-আলম জুলফিকার, মো. মাহফুজুল হক শাওন, মো. মুহাইমিন আহমেদ, আব্দুস সালাম রাজ।

বাংলাদেশের থিয়েটারের বিস্তারে এবং দক্ষ থিয়েটার কর্মী তৈরিতে সুদীর্ঘ ১৮ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছে প্রাচ্যনাট স্কুল অব অ্যাক্টিং অ্যান্ড ডিজাইন। এই স্কুলের ৬ মাসের পাঠ্যসূচিতে একজন প্রশিক্ষণার্থী থিয়েটারের সকল আনুসাঙ্গিক বিষয়ে একটি স্পষ্ট ধারণা পায়। এরই মধ্যে এই স্কুলের ৩৬টি ব্যাচ সফলভাবে তাদের কোর্স সম্পন্ন করেছেন। এর মাধ্যমে পরিসমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে ৩৭তম ব্যাচেরও।



ঢাকা/শান্ত