ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, ৩১ মার্চ ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

মুম্বাইয়ের বস্তি থেকে আমেরিকা জয়

শাহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২২ ১:২৩:১৭ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২২ ৯:০৫:০০ এএম

ভি আনবিটেবল। ইংরেজি অক্ষর ও শব্দ মিলিয়ে গঠিত এই শব্দ যুগলের বাংলা অর্থ দাঁড়ায় ‘অজেয়’। নামটি একটি নাচের দলের। তবে নামের সঙ্গে কাজের অভূতপূর্ব মিল রয়েছে মুম্বাইয়ের ঘিঞ্জি বস্তি থেকে উঠে আসা এই নাচের দলটির।

মুম্বাইয়ের বস্তিতে বড় হওয়া ২৯ জন স্বপ্নবাজ কিশোর-কিশোরীর স্বপ্নের দুনিয়া ‘ভি আনবিটেবল’। দলটির নেতা ওম প্রকাশ। চার বছর আগে ২০১৬ সালে ওম প্রকাশ ও বিকাশের হাত ধরে এই নাচের দলটির যাত্রা শুরু। ওম প্রকাশের বাড়ি ভারতের উত্তর প্রদেশে। কাজের সন্ধানে মাত্র দশ বছর বয়সে মুম্বাইয়ে পাড়ি জমান। কাজ নেন একটি গ্লাস ফ্যাক্টরিতে। কাজের ফাঁকে ফাঁকে ফ্যাক্টরির পাশের পার্কে ঘুরতে যেতেন। সেখানেই তার চোখ পড়ে একদল কিশোর-কিশোরীর ওপর, যারা নিয়মিত পার্কে নাচের চর্চা করে।

এই কিশোর-কিশোরীদের মাধ্যমেই তার পরিচয় হয় বিকাশের সঙ্গে। দুজনে মিলে একটি নাচের দল গড়ার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু নাচের দল গড়ার যে আনুষাঙ্গিক খরচ তা ওম প্রকাশ ও বিকাশের হাতে ছিল না। তবে তারা হাল ছেড়ে দেননি। নিজেদের সামান্য বেতনের অর্থ দিয়ে দলের খরচ মেটাতে শুরু করলেন। হাঁটি হাঁটি পা পা করে যাত্রা শুরু করল দলটি। নিয়মিত চর্চা শুরু হলো। তখনো নাম ঠিক হয়নি দলের। এরই মধ্যে বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো এক দুর্ঘটনায় পঙ্গু হয়ে গেলেন বিকাশ। এই আঘাত গোটা দলকে নাড়িয়ে দিল। বিকাশকে স্মরণ করে দলের নাম রাখা হলো ‘ভি আনবিটেবল’। ‘ভি’ এসেছে বিকাশের নামের আদ্যক্ষর থেকে। তাছাড়া নাচের কস্টিউমেও বিকাশের নাম লিখে পরা শুরু করল তারা। সেই রীতি এখনো রয়েছে।

প্রথম দিকে ‘ভি আনবিটেবল’ স্থানীয় পর্যায়ের শো করা শুরু করে। এভাবেই ধীরে ধীরে তাদের নাম ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ডাক আসতে থাকে টিভি রিয়েলিটি শোগুলোতে। সেখানেও প্রশংসা পেল তারা। দলের সদস্যরা কাজ করল কিছু বড় বাজেটের বলিউড সিনেমাতেও। এরপর তারা রিয়েলিটি শো ‘আমেরিকাস গট ট্যালেন্ট’ প্রতিযোগিতায় ডাক পায়। দলের কোরিওগ্রাফার রোহিত যাদবের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় ওম প্রকাশ। তবে প্রথমবার ভাগ্যের শিকে ছেঁড়েনি। প্রতিযোগিতায় চতুর্থ স্থান অধিকার করে স্বপ্নভঙ্গের বেদনা নিয়ে দেশে ফিরেছিল দলটি।

বিশ্বজয়ের স্বপ্ন নিয়ে আবারো আমেরিকায় পাড়ি দিয়েছিল তারা। এবার স্বপ্নপূরণ করেছে ‘ভি আনবিটেবল’। ‘আমেরিকাস গট ট্যালেন্ট’-এর চলতি সিজনে চ্যাম্পিয়ন এই নাচের দল। পাশাপাশি জিতে নিয়েছে বিচারক ও কোটি কোটি দর্শকের মন। ফাইনাল রাউন্ডে তাদের নাচের শেষে উপস্থিত দর্শক ও বিচারকেরা দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানায়। এছাড়া টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে তাদের চোখ ধাঁধানো নাচের দৃশ্য কোটি কোটি মানুষ উপভোগ করছে। বলিউডের অনেক তারকা এই নাচের দলটিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এক ভিডিও বার্তায় বলিউড তারকা রণবীর সিং বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে ‘ভি আনবিটেবল’ আমেরিকাস গট ট্যালেন্টের ফাইনালে জিতেছে। এটা নজিরবিহীন। আমি তাদেরকে শুভেচ্ছা জানায়। তারা যা অর্জন করেছে তা অতুলনীয়। তারা বিশ্ব মঞ্চে ভারতের মুখ উজ্জ্বল করেছে।

২০০৮ সালে ব্রিটিশ পরিচালক ড্যানি বয়েল পরিচালিত স্লামডগ মিলিয়নিয়ার সিনেমায় মুম্বাইয়ের জুহু বস্তি থেকে উঠে আসা কিশোর জামাল মালিক কৌন বনেগা ক্রোড়পতি জিতে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল। ‘ভি আনবিটেবল’ যেন বাস্তব জীবনে সেই সিনেমার পুনরাবৃত্তি।


ঢাকা/মারুফ/নাসিম