ঢাকা     বুধবার   ০৫ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২১ ১৪২৭ ||  ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সফল র‌্যাম্প মডেল হওয়ার স্বপ্ন দেখেন জোবায়ের

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:৫৪, ১৪ জুলাই ২০২০  

মডেল-অভিনেতা জোবায়ের খাঁন। ঝিনাইদহ জেলার কালিগঞ্জ থানায় তার জন্ম। বেড়েও ওঠেছেন সেখানে। ২০১৩ সালে পড়াশোনার উদ্দেশ্যে রাজধানীতে পাড়ি জমান তিনি। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন।

পড়াশোনা চলাকালীন অভিনয়ে নাম লেখান জোবায়ের। সরাসরি চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিনয়ের হাতেখড়ি। ২০১৩ সালে ‘পরাণ পাখি ময়না’ সিনেমায় প্রথম অভিনয় করেন। মো. রফিক পরিচালিত এ সিনেমায় নায়কের চরিত্রে অভিনয় করেন জোবায়ের।

সময়ের সঙ্গে বড় পর্দা নিয়ে স্বপ্ন প্রসারিত হতে থাকে জোবায়েরের। তার দ্বিতীয় সিনেমা ‘ফুটপাতের মানুষ’। তারপর সত্যরঞ্জন রোমান্স পরিচালিত ‘প্রেম তো হতেই পারে’ ও মোহাম্মদ আসলাম পরিচালিত ‘প্রতিশোধের আগুন’ সিনেমায় অভিনয় করেন। তবে তার প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘প্রতিশোধের আগুন’। ২০১৯ সালে মুক্তি পায় এটি। বাকি সিনেমার শুটিং শেষে এখন মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

ভগ্নিপতি মো. রফিকের হাত ধরে চলচ্চিত্রে প্রথম কাজ শুরু করেন জোবায়ের। তবে অভিনয়ে আগ্রহী হয়েছেন মায়ের উৎসাহে। জোবায়ের রাইজিংবিডিকে বলেন—“অভিনয়ের বিষয়ে আমার আম্মু উৎসাহ দিতেন। আম্মুর উৎসাহে চলচ্চিত্রে নাম লিখিয়েছি। আম্মু বলেন, ‘তোমার ভেতরে অভিনয়ের প্রতিভা আছে। আমি চাই তুমি এটা বিকশিত করো।’’

রুপালি জগৎ ঝলমলে হলেও এই পথ মোটেও মসৃন নয়। যার কারণে পরপর চারটি সিনেমায় কাজ করার পরও কিছুটা আশাহত হতে হয় জোবায়েরকে।

তবে সব প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে ২০১৯ সালে মিস্টার ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন জোবায়ের। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন—হঠাৎ এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাই। তারপর অডিশন দিই, নিজের যোগ্যতা প্রমাণের চেষ্টা করি। সবশেষে সেরা দশের তালিকায় জায়গা করে নিই। 

মিস্টার ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের পর নাটক, মিউজিক ভিডিওসহ নানা কাজের প্রস্তাব পেতে থাকেন জোবায়ের। ধীরে ধীরে কাজগুলো করছেন তিনি। এ পর্যন্ত ৭-৮টি টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন। ৫টি মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন তিনি।

২০১৮ সালে র‌্যাম্প মডেলিংয়ে যুক্ত হন জোবায়ের। এটি তার খুব প্রিয় জায়গা। জোবায়েরের ভাষায়—আমার এখন মূল টার্গেট র‌্যাম্প মডেলিং। স্বপ্ন দেখি র‌্যাম্প মডেলিংয়ে সফল হওয়ার।

এদিকে ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস ফটোজেনিক ২০২০’ প্রতিযোগিতার রেজিস্ট্রেশন শেষ হয়েছে। এখন চলছে কোয়ার্টার ফাইনাল। এ প্রতিযোগিতায় ২৮ জনের তালিকায় নিজের জায়গা করে নিয়েছেন জোবায়ের। এ প্রতিযোগিতায় নিজের ভালো একটি অবস্থানের স্বপ্ন বুনছেন তিনি। আর স্বপ্ন পূরণের জন্য কঠোর পরিশ্রম করছেন তিনি। জোবায়ের বলেন—ঈদুল আজহার পর গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমানে সম্পূর্ণ মনোযোগ এই দিকে। নিজের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করছি ভালো কিছু করার। সকলের কাছে দোয়া চাই। 

এসবের পাশাপাশি দোলা নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন জোবায়ের। তার মা জোবায়েদা খাতুন এর নির্বাহী পরিচালক। সাড়ে ৪ শত প্রতিবন্ধী বাচ্চাকে প্রতিষ্ঠানটি লালন-পালন করছে। ঝিনাইদহ, যশোর ও আশুলিয়ায় এর তিনটি শাখা রয়েছে। অভিনয়ের পাশাপাশি মানবকল্যাণে নিজেকে সবসময় যুক্ত রাখতে চান এই অভিনেতা।

জোবায়ের বলেন—যা কিছু করি না কেন, সবার আগে মানব কল্যাণমূলক কাজ আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রত্যেক তারকাকে মানুষ অনুসরণ করে তার কর্মকাণ্ড দেখে। আমি ব্যক্তিগতভাবে চাই, মানুষ যদি আমাকে অনুসরণ করেন তবে যেন মানবিক কাজের জন্য করেন। পৃথিবীর মানুষকে মানবিক কাজে আগ্রহী হওয়ার আহ্বান জানাই। যাতে পৃথিবীর সব মানুষ সুখী হতে পারেন।


ঢাকা/শান্ত

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়