Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৪ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

‘ঘটনা সত্য নাটকের সংলাপ ক্ষমার অযোগ্য’

আমিনুল ইসলাম শান্ত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৫, ২৬ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৪:৫৪, ২৯ জুলাই ২০২১
‘ঘটনা সত্য নাটকের সংলাপ ক্ষমার অযোগ্য’

তারকা জুটি মেহজাবীন চৌধুরী ও আফরান নিশো অভিনীত ‘ঘটনা সত্য’ নাটকটি ইউটিউব থেকে সরিয়ে নেয়ার পরও থামছে না সমালোচনা। যদিও এ নাটকের পরিচালক রুবেল হাসানসহ সংশ্লিষ্টরা যৌথ এক বিবৃতিতে ক্ষমা চেয়েছেন। কিন্তু বিষয়টি কীভাবে দেখছেন নাট্যনির্মাতারা?

টেলিভিশন নাট্য নির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন এস এম কামরুজ্জামান সাগর। এ বিষয়ে সাগর রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমি নাটকটি দেখেছি। যে কাজটি তারা করেছেন এটি মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়। এ ধরণের নাটক, গল্প, সংলাপ— বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের প্রতি নেতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করে। এটি তাদের পিতা-মাতাকে সরাসরি আঘাত করেছে। বিশ্ব যেখানে একত্রিত হয়ে প্রতিবন্ধী শিশু ও তাদের পরিবারের স্বাভাবিক জীবন নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে, সেখানে নাটকে এমন ভয়াবহ বক্তব্যে ডিরেক্টরস গিল্ড হতাশ এবং বিক্ষুদ্ধ।’

ডিরেক্টরস গিল্ড আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে জানিয়ে সাগর বলেন, ‘সংস্কৃতিকর্মীর দায়িত্ব যে কোনো সাধারণ মানুষের চেয়ে বেশি। যদিও নাটকটির নির্মাতা, প্রযোজক, কলাকুশলীরা ভুল বুঝতে পেরেছেন তারপরও নির্মাতা রুবেল হাসানকে ডেকে সতর্ক করা হবে।’

তবে অসাবধানতাবশত এমন ভুল হয়েছে বলে জানিয়েছেন ‘ঘটনা সত্য’ নাটকের সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে— চিত্রনাট্য রচনার পর নাটকটির পরিচালক প্রযোজক, অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন। এরপর শুটিং এবং সম্পাদনার কাজ হয়েছে। এই দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্যেও বিষয়টি কারো নজরে এলো না কেন?  ‘‘অসাবধানতা’ শব্দটি ব্যবহার করে এই দায় কেউ এড়াতে পারবেন না। এক্ষেত্রে পরিচালকের দায় বেশি। এ নাটকে আরো যারা কাজ করেছেন, সামাজিক জায়গা থেকে তাদেরও দায়ভার আছে।’ বলেন সাগর।

সংশ্লিষ্টরা ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে গেলেন— এতে বিক্ষুব্ধ গুণী নাট্যনির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে এই পরিচালক বলেন, ‘আমি হতাশ এবং বিক্ষুব্ধ। একজন নির্মাতা হিসেবে আমার জন্য সহজতর পথ ছিল এই বিষয়ে নীরব থাকা। সহকর্মীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়াটা দৃষ্টিকটু। কিন্তু এত কম সংবেদনশীল ও দায়িত্বহীন মানুষদের শিল্পী বা সহকর্মী হিসেবে মানার ইচ্ছে আমার নেই।’

মাসুদ হাসান উজ্জ্বল বিষয়টিকে ‘ক্ষমার অযোগ্য’ মনে করেন। তার ভাষায়— ‘বাণিজ্য আর মুনাফা মানুষকে অন্ধ করে দিলে এতটা নিচে নামা সম্ভব।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের বাবা-মায়েরা এ বিষয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। শোবিজ অঙ্গনের অনেকেই প্রতিবাদ করছেন।  যদিও এই প্রতিবাদেও দেখা গেছে বিভক্তি। প্রতিবাদ করে কটাক্ষের শিকার হয়েছেন নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একটা অন্যায়ের প্রতিবাদ করেও যদি পক্ষে-বিপক্ষে দাঁড়িয়ে যায় তার চেয়ে দুঃখজনক তো আর কিছু নেই! অন্যায় যদি আমার পরিবারের মানুষও করে তার প্রতিবাদ আমি করবই।’

এছাড়াও আরো কয়েকজন নাট্যনির্মাতার সঙ্গে কথা বলেন এই প্রতিবেদক। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসব নির্মাতারা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা খুবই পীড়াদায়ক। এটি অশিক্ষিতের মতো একটি কাজ হয়েছে।’

‘ঘটনা সত্য’ নাটকের শেষ অংশে একটি সংলাপে বলা হয়েছে—‘প্রতিবন্ধী শিশু পাপের ফল।’ ঈদ আয়োজন হিসেবে নাটকটি ইউটিউবে মুক্তির পর এই সংলাপ নিয়ে অভিযোগ করেন দর্শকরা। বিষয়টি নিয়ে একাধিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। অন্তর্জালেও চলছে সমালোচনা। নাটকটি রচনা করেছেন মঈনুল সানু। পরিচালনা করেছেন রুবেল হাসান। সোমবার (২৬ জুলাই) বিকালে এ নির্মাতার সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

ঢাকা/তারা

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়