Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

গিটারের সুরে বাবাকে স্মরণ, প্রশংসিত আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে (ভিডিও)

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২২, ১৮ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ০৬:৫১, ১৯ অক্টোবর ২০২১
গিটারের সুরে বাবাকে স্মরণ, প্রশংসিত আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে (ভিডিও)

রুপালি গিটার ফেলে সত্যি সত্যি অনেক দূরে চলে গেছেন বরেণ‌্য সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর হঠাৎ তার চলে যাওয়া কেউ-ই মেনে নিতে পারেননি। আজ (১৮ অক্টোবর) তার তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। প্রিয় শিল্পীর প্রয়াণ দিবসে তার সহকর্মী- ভক্তরা ভারাক্রান্ত হৃদয়ে তাকে স্মরণ করছেন।

তবে আইয়ুব বাচ্চুর একমাত্র ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব বাবা একটু অন‌্যভাবে স্মরণ করেছেন। বাবাকে হারানোর দিনে হাতে তুলে নিয়েছেন গিটার। আর তাতে সুর তুলেছেন আহনাফ। আইয়ুব বাচ্চুর পুত্র ভালো গিটার বাজাতে পারেন। আইয়ুব বাচ্চুর বিখ্যাত গান ‘ঘুমন্ত শহরে’ গিটারে তুলেছেন তিনি। তারই একটি ভিডিও আইয়ুব বাচ্চুর প্রতিষ্ঠিত ব্যান্ড ‘এলআরবি’-এর ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়েছে।

ভিডিওটি শেয়ার করে আহনাফ লিখেছেন—‘তিন বছর। কিন্তু এখনো আমার মনে হয় যেন গতকাল! খুব মনে পড়ে তোমায়। আমাদের অনেক কিছু করা বাকি ছিল।’ ভিডিওটি প্রকাশের পর থেকে দারুণ প্রশংসা কুড়াচ্ছেন আহনাফ। সেতু নামে একজন লিখেছেন, ‘যোগ্য উত্তরসূরি।কথা দিলাম তোমার মাঝেই খুঁজে নিব রুপালি গিটারের হারানো সুরকে। হাল ধরো আংকেল।’ রায়হান রিয়াদ লিখেছেন, ‘আমরা তেকামার জন‌্য অপেক্ষা করছি।’ রাকিব লিখেছেন, ‘বাবার মতোই পুত্র।’ এমন অসংখ‌্য মন্তব‌্য ভরে আছে কমেন্ট বক্স।

আহনাফের ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন

১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার খরনা ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন আইয়ুব বাচ্চু। তার বাবা ইশহাক চোধুরী। মা নুরজাহান বেগম। তার বেড়ে উঠা একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের কেউ সংগীতের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। এমনকি তার ভাই-বোনদের মধ্যেও কেউ না। কিন্তু বাচ্চু ছোটবেলা থেকেই গিটার বাজানোর নেশায় মাতেন।

যতটা জানা যায়, জিমি হেনড্রিক্সকে দেখার পর গিটারের বিষয়টা প্রথম সংক্রমিত করে আইয়ুব বাচ্চুকে। তার সংগীত জীবন শুরু হয় মূলত ১৯৭৭ সালে। ১৯৭৮ সালে তিনি ব্যান্ড ফিলিংসে যোগ দেন। তার প্রথম গান ‘হারানো বিকেলের গল্প’। এরপর যোগ দেন সোলসে। ১৯৮০ থেকে পরবর্তী পুরো এক দশকে ব্যান্ডের সঙ্গেই যুক্ত ছিলেন।

সোলস ছাড়ার পর ১৯৯১ সালে নিজে গঠন করেন নতুন ব্যান্ড এলআরবি। প্রথমে এলআরবির পূর্ণ অর্থ ছিল লিটল রিভার ব্যান্ড। এ নামে অস্ট্রেলিয়াতে আরেকটি ব্যান্ড থাকায় পরে বদল করে করা হয় লাভ রানস ব্লাইন্ড।

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়