ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ৪ ১৪২৯ ||  ১৯ মহরম ১৪৪৪

বদলে যাওয়া ঐন্দ্রিলাকে শুভশ্রী বললেন ‘হট’

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১০, ১৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:১১, ১৪ জানুয়ারি ২০২২
বদলে যাওয়া ঐন্দ্রিলাকে শুভশ্রী বললেন ‘হট’

ভারতীয় বাংলা সিনেমার আলোচিত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সেন। লকডাউনে বাড়িতে থেকে মুটিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ওজন বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৭১ কেজি। বাড়তি ওজন ঝরিয়ে সংখ্যাটা নামিয়ে এনেছেন ৫৬-এর কোঠায়।

মেদহীন ছিপছিপে চেহারায় তাক লাগাচ্ছেন ঐন্দ্রিলা সেন। তার এই পরিবর্তনে আপ্লুত দীর্ঘদিনের প্রেমিক অঙ্কুশ হাজরা। প্রেমিকাকে নিয়ে কতটা গর্বিত, দিন কয়েক আগেই তা জানিয়েছেন তিনি। সঙ্গে বদলে যাওয়া প্রিয় মানুষটির একটি স্থিরচিত্র নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন অঙ্কুশ। শুধু অঙ্কুশ নয়, নেটিজেনরাও ঐন্দ্রিলার পরিবর্তিত লুক দেখে প্রশংসা করছেন।

এখানেই শেষ নয়, টলিউডের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলি কমেন্ট বক্সে লিখেছেন—‘হট’। আর তাতে রিঅ্যাকশন পড়েছে প্রায় আড়াই শত। এ মন্তব্যের জবাবে অঙ্কুশ লিখেন, ‘প্রচন্ড’। এ আলোচনায় খানিক পড়ে যোগ দেন ঐন্দ্রিলা নিজেই। কমেন্ট বক্সে তিনি লিখেন, ‘হটনেস ছড়ালাম। তুমি দ্রুত সুস্থ হও।’ ঐন্দ্রিলার ছবিতে মন্তব্য করেছেন টলিউডের আরেক আলোচিত অভিনেতা বিক্রম চ্যাটার্জি। তিনি লিখেন, ‘তাড়াতাড়ি কালা টিকা লাগা। বাচ্চা মেয়েদের এত হট হতে নেই।’ এরপর বদলে যাওয়া ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে আলোচনা থামেনি। বরং চলছেই।

বেশ আগে তোলা ছবিতে ঐন্দ্রিলা

ঐন্দ্রিলার মেদ ঝরানোর জার্নিটা সহজ ছিল না। এ বিষয়ে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেন—‘গত জুন মাস থেকে শরীরচর্চা শুরু করি। প্রথম দিকে খুবই কষ্ট হতো। মিষ্টি খাওয়া একেবারেই ছেড়ে দিই। অন্যান্য খাবারও খুব কম খেতাম। প্রথম দুই মাস কোনো ওজন কমেনি। সেই দুই মাস কঠিন শরীরচর্চার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছিলাম।’

নিজের বর্তমান চেহারা নিয়ে খুশি ঐন্দ্রিলা। তার ভাষায়, ‘ওজন কমিয়ে আমি খুবই খুশি। অনেকেই বলছেন আমার চোখ-নাক-মুখ বদলে গিয়েছে। আমি নাকি প্লাস্টিক সার্জারি করিয়েছি। শরীরের মেদ কমলে মুখেরও মেদ কমে। ফলে চোখ-নাকের আকৃতিরও পরিবর্তন হয়েছে বলে মনে হয়।’

এক যুগের বেশি সময় ছোট পর্দায় কাজ করেছেন ঐন্দ্রিলা। গত বছর ‘ম্যাজিক’ সিনেমায় অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এরপরও একাধিক সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছিলেন। কিন্তু ওজন বেশি হওয়ার কারণে রাজি হননি ঐন্দ্রিলা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘দুই-তিনটি সিনেমা চেহারার জন্য ছেড়ে দিয়েছি।’

ছিপছিপে লুকে বদলে যাওয়া ঐন্দ্রিলা

বিস্তারিত ব্যাখ্যা করে ঐন্দ্রিলা বলেন, ‘‘কোনো প্রযোজকের সঙ্গে দেখা হলেই বলতেন, ‘তোকে না ওজনটা একটু কমাতে হবে।’ আমি তাদের দোষ দেই না। কারণ আমরা এখনো এমন কোনো সিনেমা উপহার দিতে পারিনি, যা দেখে মনে হবে ওজনটা আসলে কোনো বিষয়ই না। বলিউডে বিদ্যা বালন, ভূমি পেডনেকর সেটা করে দেখিয়েছেন।’’

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়