Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮ ||  ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

পুষ্টিগুণে ভরপুর পাহাড়ি কাজুবাদাম

শিরীন সুলতানা অরুনা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫৮, ২২ এপ্রিল ২০২১  
পুষ্টিগুণে ভরপুর পাহাড়ি কাজুবাদাম

কাজুবাদাম উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণে প্রচুর জনবল প্রয়োজন হয়। এই শিল্পে নারীদের কর্মসংস্থানের রয়েছে বিশেষ সুযোগ। একে নারীবান্ধব শিল্পও বলা যায়। দেশীয় এমন পণ্যের প্রচারণা বাড়লে রপ্তানিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে । সেই সঙ্গে বৃদ্ধি পাবে কর্মমূখী নারীদের আয়।

কাজুবাদামের গাছের বিভিন্ন অংশ নানাভাবে মানুষের উপকারে আসে। বাদাম জাতীয় ফসলের মধ্যে আন্তর্জাতিক বাজারে কাজুবাদামের স্থান সবার শীর্ষে। এর বীজ থেকে পাওয়া বাদাম সুস্বাদু, মুখরোচক, পুষ্টিকর ও অর্থনৈতিকভাবে মূল্যবান। 

এই বাদামের ফল থেকে জুস, ভিনেগার ও এলকোহল তৈরি হয়। বাদামের খোসা থেকে উৎপাদিত তেল, শিল্প কাজে ব্যবহৃত মূল্যবান দ্রব্য। কাজুবাদাম বিভিন্ন প্রকারের পাওয়া যায়।  যেমন- রোস্টেড আস্ত, রোস্টেড ফালা (বাদামের দুটি অংশ), কাঁচা আস্ত, কাঁচা ফালা।

দেশি কাজুবাদাম সাইজে ছোট আবার ধবধবে সাদা নয়। এটি স্বাদে মিষ্টি। দেশে উৎপাদন হয় বলে, এর প্রসেসিং ও বাজারজাত দ্রুত করা যায়। এতে করে ফ্রেশ কাজুবাদাম ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়। দেশীয় এই পণ্যটি অনেকের কাছে জনপ্রিয়।

কাজুবাদামের উপকারিতা :

* ব্লাড প্রেসার কমায়।
*ডায়াবেটিস রোগীর জন্য উপকারী।
*অবসাদ দূর করে।
*স্নায়ুতন্ত্রকে সুস্থ্য সবল রাখে।
*ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে।
*রক্ত শুন্যতা দূর করতে সহায়তা করে।
*চুল এবং ত্বক সুন্দর করে।
*কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।
*শক্তির ভালো উৎস হিসাবে কাজ করে।
*এর প্রোটিন শরীরের হাড় শক্তিশালী করে।
*এর এন্টি-অক্সিডেন্ট হজম প্রক্রিয়া শক্তিশালী করে।

এছাড়াও যেকোনো খাবারের স্বাদ অনেকটা বাড়িয়ে দেয় কাজুবাদাম। এই কারণে ডায়েটিশিয়ান, নিউট্রিশিয়ান এবং ফিজিশিয়ানরা শারীরিক উপকারিতার জন্য কাজুবাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেন। এমনকি যারা ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করেন, তাদেরকেও এই বাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকগণ।

কাজুবাদামের ব্যবহার :

* বেকারির বিভিন্ন দামী এবং মুখরোচক খাবার তৈরির উপাদান হিসাবে ব্যবহার করা হয়।
* আইসক্রিমের উপাদান হিসাবে ব্যবহার করা যায়।
* চকলেট কাজু, জিনজার কাজু, সল্টেড কাজু, সুইট কাজু ইত্যাদি বিভিন্নভাবে বাজারজাত করা যায়।
* কেক, আইসক্রিম, মিষ্টি, চকোলেট তৈরি করা যায়।
* ক্যাশোনাট ফ্রুট সালাদ তৈরি করা যায়।
* ক্যাশোনাট চিকেন সালাদও তৈরি করা যায়।

পাহাড়ি এলাকায় কাজুবাদামের নাম টামের ভাই আম। পাহাড়ি এলাকায় যে কাজুবাদাম উৎপাদন হয় তার দুটি অংশ থাকে। উপরের অংশকে টাম বলে আর নীচের অংশ, যা এর শেপ দিয়ে থাকে একে বলে আম। সেই আমটাই হলো কাজুবাদামের ফল। কাজুবাদামের যে ফল সেই ফলের বীজটাই হলো কাজুবাদাম।

লেখক : স্বত্বাধিকারী, এসএস এগ্রো প্রোডাক্ট

রাঙামাটি/ সিনথিয়া

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়