Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২১ জুন ২০২১ ||  আষাঢ় ৭ ১৪২৮ ||  ০৯ জিলক্বদ ১৪৪২

জীবিকার টানে লড়াই করছেন মুন্সিগঞ্জের তাঁতিরা

শারমিন সাঈদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৮, ১১ জুন ২০২১  
জীবিকার টানে লড়াই করছেন মুন্সিগঞ্জের তাঁতিরা

"তাঁত" শব্দটা শোনার সঙ্গে সঙ্গেই আমাদের মাথায় টাঙ্গাইল আর নারায়ণগঞ্জ জেলার নাম  আগে চলে আসে। কিন্তু তাঁত শিল্প, তাঁতিপাড়া আর তাঁতের গটর গটর শব্দে মুখর থাকতো এক সময় মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রী নগর থানার বিভিন্ন গ্রাম। প্রায় দু'শ বছরের পুরনো এই তাঁতযন্ত্র গুলো এখনো আগলে রেখেছে বাড়ৈখালি ইউনিয়নের পূর্ব বাড়ৈখালি ও শ্রীধরপুর এলাকার বেশ কয়েকজন তাঁতি। পূর্ব পুরুষের রেখে যাওয়া তাঁতশিল্প ধরে রাখার চেষ্টায় দেড় সহস্রাধিক পরিবার তাঁত পেশার সঙ্গে যুক্ত ছিলো।

বর্তমানে জীবিকার টানেই প্রতিনিয়ত লড়াই করে যাচ্ছেন তাঁতিরা ।   নানা প্রতিকূলতার সঙ্গে তারা পরিশ্রম করে টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে নামার আগে, তাদের চিন্তা এখন খেয়ে পরে বাঁচা । আগলে রাখা বা তাঁতিদের বেঁচে থাকার লড়াই  বলার পেছনের গল্প হলো হারিয়ে গেছে মুন্সিগঞ্জের ঐতিহ্য বহনকারী তাঁতশিল্প। পুরোপুরি না হলেও প্রায় বিলুপ্তির পথে তাঁতিগোষ্ঠী।

একটা সময় ছিলো যখন দেশের তাঁতের চাহিদা মিটাতে সক্ষম এবং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতো মুন্সিগঞ্জের তাঁতি গোষ্ঠী। তখন তাদের তাঁতের শব্দে মুখর থাকতো পরিবেশ, তৈরি হতো শাড়ি, লুঙ্গী, গামছা ইত্যাদি। তাঁত শিল্পের ক্ষেত্রে  উন্নত শাড়ি জামদানী, মুন্সিগঞ্জের তাঁতশিল্প বেঁচে থাকলে জামদানীর আস্তানা হতো নির্দ্বিধায়।কিন্তু বর্তমানে তাঁতিদের বহু কষ্টে শুধু লুঙ্গী আর গামছার উপর ই নির্ভর করতে হচ্ছে।

বর্হিবিশ্বের হাওয়াই লুঙ্গীর কদর ফুরিয়ে যায়নি । তাই এখনো আশায় বুক বাঁধে তাঁতিরা, তৈরি করেন লুঙ্গী, গামছা যা দেশের বিভিন্ন হাট বাজারেও পাওয়া যায় । একদিনে একটানা কাজের ফলে ৫ পিস লুঙ্গি  তৈরি করা যায়। যদিও আধুনিক যন্ত্রপাতির সাহায্যে তৈরি লুঙ্গীর বাজার দখল হয়ে যাচ্ছে। 

অন্যান্য জেলার মতো মুন্সিগঞ্জের তাঁতশিল্পকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারের হস্তক্ষেপের পাশাপাশি, মুন্সিগন্জ জেলা ওয়েবসাইটে এর তথ্য সংগ্রহ করা প্রয়োজন। অন্যথায় একেবারেই বিলুপ্তি হয়ে যাবে মুন্সিগঞ্জ জেলার তাঁতশিল্প।

লেখকঃ  স্বত্বাধিকারী,ইনোভেন্টিক ফ্যাশন এবং মুন্সিগঞ্জ জেলা কন্ট্রিবিউটর লেখক (উদ্যোক্তা/ই-কমার্স পাতা,রাইজিংবিডি ডটকম)

মুন্সিগঞ্জ/ সিনথিয়া

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়