Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

সংক্রমণ কমাতে ভূমিকা রাখবে ডিজিটাল পশুর হাট

উদ্যোক্তা/ই-কমার্স ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪৩, ১৩ জুলাই ২০২১  
সংক্রমণ কমাতে ভূমিকা রাখবে ডিজিটাল পশুর হাট

ই-ক্যাব (ই- কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায় দেশব্যাপী শুরু হয়েছে ডিজিটাল কোরবানি পশুর হাট।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) দুপুর ১২টায় অনলাইনে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হলো দেশব্যাপী ডিজিটাল কোরবানি পশুর হাট।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে দেশব্যাপী ডিজিটাল হাট উদ্বোধন করেন মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।  এতে সভাপতিত্ব করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। আইসিটি ডিভিশন ও  ই-ক্যাবের যৌথ ব্যবস্থাপনায় অনলাইন এই হাট পরিচালিত হবে।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন এটুআই (একসেস টু ইনফরমেশন)-এর প্রকল্প পরিচালক ড. আব্দুল মান্নান পিএএ এবং উক্ত প্রতিষ্ঠানের যুগ্ন প্রকল্প পরিচালক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ন, আইসিটি বিভাগের সচিব এনএম জিয়াউল আলম পিএএ, মৎস ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ এবং ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট শমী কায়সারসহ আরও অনেকেই।

প্রধান অতিথি বলেন, দেশে এগিয়ে চলেছে। প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিপ্লবের মাধ্যমে দেশ মাথা উচু করে দাঁড়াবে। এই ডিজিটাল হাটের মাধ্যমে একদিকে বিক্রেতারা ন্যায্যমূল্য পাবেন অন্যদিকে ক্রেতারা পাবেন সঠিক পশু ক্রয়ের নিশ্চয়তা। হাটে না গিয়ে নিজেকে নিরাপদ রেখে ঘরে বসে কোরবানি পশু পাওয়ার এই সুবিধা আমরা পাচ্ছি। কারণ বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমাণে কাজ করছে। আজ আমরা যদি ডিজিটালি সক্ষম না হতাম, তাহলে এই হাটের মাধ্যমে মানুষকে আজ এতটা সুরক্ষা দেওয়ার জন্য এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়তো কঠিন হয়ে যেত।

সভাপতির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ গড়ার এই কর্মযজ্ঞে বিভিন্ন বিভাগের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা নিরলসভাবে কাজ করছে।  কৃষক এবং খামারিরা খাদ্য ও পশু উৎপাদন করে দেশকে খাদ্য ও পশু উৎপাদনে স্বাবলম্বি করে তুলেছে।  দেশের ১৮৪৩টি অনলাইন শপের মাধ্যমে প্রান্তিক পর্যায়ের ২৪১টি হাট একটি প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হয়েছে।  এতে ই-ক্যাব সার্বিক সহযোগিতা করছে।

মৎস ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ বলেন, সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্ঠা ও সহযোগিতায় দেশ গবাদি পশুর ক্ষেত্রে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে।  গত বছর আমাদের ১ কোটি ১৮ লাখ কোরবানির পশুর চাহিদা ছিল।  কিন্তু করোনার কারণে বিক্রি হয়েছে ৯৪ লাখ পশু।  চলতি বছর ১ কোটি ১৯ লাখ কোরবানিযোগ্য পশু রয়েছে। এ বছর ১৮৪৩টি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে আমরা রেকর্ডসংখ্যক পশু অনলাইনে বিক্রি করতে পারব।

ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার বলেন, সম্পদের সুষম বন্টনে আমরা যদি তথ্য প্রযুক্তিকে ব্যবহার করতে পারি তাহলে এর সুফল প্রান্তিক মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব। ই-ক্যাব পেন্ডামিকের শুরু থেকে ডিজিটাল হাট, লকডাউন ম্যানেজমেন্ট, টিসিবির পণ্য বিক্রি সব বিষয়ে সরকার এবং জনগণের পাশে রয়েছে।

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠান উদ্বোধন শেষে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী স্ক্রো সেবার মাধ্যমে একটি গরু ক্রয় করেন এবং এটি মানবসেবায় দান করেন।  সেই সঙ্গে তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

ঢাকা/সিনথিয়া

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়