Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

‘নিরাপদ সেবায় আস্থা অর্জন করেছে ই-কমার্স’ 

ডেস্ক রিপোর্ট   || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪৮, ১৩ অক্টোবর ২০২১  
‘নিরাপদ সেবায় আস্থা অর্জন করেছে ই-কমার্স’ 

ই-কমার্স খাত নিয়ে সম্প্রতি অস্থিরতার প্রেক্ষাপটে এখাতের ইতিবাচক বার্তা দেওয়ার লক্ষ্যে ২০টি ই-কমার্স অনলাইন প্রতিষ্ঠান ও ই-ক্যাবের উদ্যোগে সচেতনতামূলক প্রচারণা কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) হোটেল সোনারগাঁয়ে ‘জেনে-বুঝে-শুনে শপিং হবে অনলাইনে’ স্লোগানে কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। 

ই-ক্যাব (ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের ই-কমার্স খাত মানুষের সেবা দিয়ে আস্থা অর্জন করেছে বলে ক্রেতারা এর সেবা নিচ্ছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরু থেকে গত দেড় বছরে  গৃহে থাকা মানুষের নিরাপদ সেবা দিয়ে এই খাতকে বিকশিত করেছে উদ্যোক্তারা। কিন্তু কতিপয় ব্যক্তির মন্দ ব্যবসায়িক কৌশলের জন্য এই সেবাখাত ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে না এবং অন্যান্য বেশিরভাগ ইতিবাচক ও আস্থাশীল প্রতিষ্ঠানে এর প্রভাব পড়তে পারে না।

এতে আরও বলা হয়, ই-কমার্স কোনো প্রতারণা ব্যবসা নয় এবং কোনো ব্যবসায় পণ্য ক্রয়ের মাধ্যমে সেই ব্যবসায় বিনিয়োগ করা যায় না এবং অস্বাভাবিক সময় নিয়ে অযাচিত মূল্যছাড় দিয়ে দীর্ঘস্থায়ী ব্যবসায়িক ধারণা প্রতিষ্ঠা করা যায় না। তাই ক্রেতাদের সঠিক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান থেকে জেনে, শুনে, বুঝে সঠিক পদ্ধতিতে পণ্য ক্রয় করতে হবে।

ওই অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার বলেন, ‘আমরা প্রকৃত ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের সামনে নিয়ে আসতে চাই এবং মন্দ ব্যবসায়িক কৌশল প্রয়োগের পথ খোলা রাখতে চাই না। এ ব্যাপারে বেশ কিছু বিষয়ে ই-ক্যাব সরকারের সঙ্গে কাজ করছে। কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে। অভিযুক্ত অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে।’  

সাংবাদিকদের প্রশ্নোত্তরে ই-ক্যাবের জেনারেল সেক্রেটারি আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, ‘আমরা সমন্বিত অভিযোগ ব্যবস্থাপনা সেবা চালু করার চেষ্টা করছি। এতে সরকারের প্রকল্প এটুআই সহযোগিতা করছে। এর সঙ্গে ক্রেতা, ভোক্তা ও সরকারি এজেন্সিগুলো সম্পৃক্ত হয়ে গেলে সমস্যা অনেকাংশে কমে যাবে।’ 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আজকের ডিল ও বিডিজবসের সিইও ফাহিম মাশরুর। তিনি সাংবাদিকদের ভূমিকার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, গুটিকয়েক প্রতিষ্ঠানের জন্য সকলের বদনাম হতে পারে না। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান ভালো সেবা দিচ্ছে এবং এই কারণে এথাত বিকশিত হচ্ছে। সেবা না পেলে ভোক্তারা এখানে আসতো না। তাই যারা সঠিক সেবা দিচ্ছে, তাদের বিষয়টি ক্রেতা সাধারণকে জানানো উচিত। 

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ‘আদি’র উদ্যোক্তা ফাতেমা আক্তার, ‘পাঠাও’ প্রেসিডেন্ট ফাহিম আহমেদ, ‘একশপ’ প্রধান রেজওয়ানুল হক জামি, ‘পিকাবু’ সিইও মরিন তালুকদার ও ‘যাচাই’ এর সিইও মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ। 

সিনথিয়া/বকুল 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়