ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে ই-কমার্স ক্লাব শুরু

উদ্যোক্তা/ই-কমার্স  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০৮, ১০ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৫:৫৩, ১০ জানুয়ারি ২০২২
ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে ই-কমার্স ক্লাব শুরু

যে পদ্ধতিতে কোনো পণ্য কেনা-বেচা অর্ডার নেওয়া এবং সেই পণ্যের মূল্য পরিশোধ থেকে শুরু করে যাবতীয় বাণিজ্যিক কার্যক্রম অনলাইনে সম্পন্ন করা হয়, তাকেই ই-কমার্স বা ইলেকট্রনিক কমার্স বলে।

এই সংজ্ঞাটি মোটামুটি সবাই জানি। কিন্তু ই-কমার্স ক্লাব কী? শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছে এর প্রয়োজনীয়তা কি? শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই ক্লাবের ভূমিকা কি? শিক্ষার্থীদের ই-কমার্সের প্রতি আগ্রহী করে তোলা যায় কিভাবে? এমন নানান প্রশ্নের উত্তর জানতে ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে আনুষ্ঠানিকভাবে ই-কমার্স ক্লাবের যাত্রা শুরু হলো। 

রোববার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে সাভারের আশুলিয়ায় ইউনিভার্সিটির বোর্ডরুমে কেক ও ফিতা কেটে এই ক্লাবের উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হোসাইন। 

উদ্বোধনী বক্তৃতায় উপাচার্য বলেন, দেশে বর্তমানে অনলাইনের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং বহুল ব্যবহৃত ব্যবসা হচ্ছে ই-কমার্স। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এটি ব্যাপক প্রভাব ফেলছে। এখানে মার্কেটে বা মলে গিয়ে শপিংয়ের সুবিধা পাওয়া না গেলেও গ্রাহকেরা নিজেদের পছন্দমতো প্রয়োজনীয় পণ্যের অর্ডার করতে পারছেন ঘরে বসেই। পছন্দ না হলে তা বদলে নেওয়া বা ফিরিয়ে দেওয়ার সুযোগও থাকছে। আর সে কারণেই অনলাইন কেনাকাটা জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। 

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ই-কমার্স খাতে দক্ষ করে তুলতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনেক বড় ভূমিকা পালন করতে পারে। 

শিক্ষার্থীদের মধ্যে যার যে বিষয়ে আগ্রহ বা দক্ষতা আছে, তার সেই আগ্রহকে কাজে লাগানোর উপযুক্ত প্ল্যাটফর্ম এটি। এই খাতের খুঁটিনাটি জানাতে পারলে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই তারা স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারবে। এই ক্লাব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একইসঙ্গে প্রযুক্তিগত জ্ঞান বাড়াবে, ব্যবসায় আগ্রহী করে তুলবে ও উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে সহায়তা করবে।  

অনুষ্ঠানে ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবু মো. আবদুল্লাহকে সমন্বয়কারী এবং ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী মিফতাউল জান্নাতি সিনথিয়াকে সভাপতি করে ই-কমার্স ক্লাবের ২১ সদস্যের একটি নির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হয়। 

সহকারী অধ্যাপক আবু মো. আব্দল্লাহ বলেন, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে ই-কমার্স ক্লাবের শুভযাত্রায় উপস্থিত থেকে নবীন উদ্যোক্তাদের সফলতার গল্প একদম মন ছুঁয়ে গেছে। আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য জীবন গঠন ও প্রসারের নতুন সম্ভাবনা এসে গেল।

সমন্বয়ক হিসেবে সচেষ্ট থাকব যেন দেশীয় ঐতিহ্য বহনকারী পণ্য নিয়ে কাজ করতে সবাইকে আগ্রহী করে তুলতে পারি।

উল্লেখ্য, দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে এ ধরনের ক্লাব এটাই প্রথম। এই ক্লাব গঠনের মধ্য দিয়ে ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে ক্লাবের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৯।   

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার ড. আবুল বাশার খান, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সাবেক ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রাজিব আহমেদ, ক্লাবের ইন্টারনাল অ্যাডভাইজার ও ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক সাজেদ ফাতেমী এবং স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স বিভাগের ইনচার্জ আতিকুজ্জামান লিমন। 

আরও বক্তব্য দেন ক্লাবের দুই এক্সটারনাল অ্যাডভাইজার-আরিয়া'স কালেকশনের স্বত্ত্বাধিকারী নিগার ফাতেমা ও কাকলী'স অ্যাটায়ারের স্বত্ত্বাধিকারী কাকলী তালুকদার।

বক্তারা ই-কমার্স ক্লাবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের উন্নত ক্যারিয়ার গঠনে সবাইকে ভূমিকা রাখার তাগিদ দেন। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ই-কমার্স ক্লাবের বিভিন্ন দিক ও দেশি পণ্যের সিলেবাস নিয়ে আলোচনা করেন। 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা কয়েকজন নবীন উদ্যোক্তা। তারা হলেন-টেস্টবিডির স্বত্ত্বাধিকারী সালমা নেহা, পরিধান শৈলীর রাকিমুন বিনতে মারুফ জয়া, আওয়ার শেরপুরের প্রতিষ্ঠাতা মো. দেলোয়ার হোসেন, খাদিবিডির স্বত্ত্বাধিকারী প্রতাপ পলাশ ও তেজস্বীর স্বত্ত্বাধিকারী উম্মে সাহেরা এনিকা। 

ঢাকা/সিনথিয়া/টিপু 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়