ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সুন্দরবনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ‘বুলবুল’

নিউজ ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৯ ১১:২৪:০৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১০ ৮:১৭:১৭ এএম

ভারতে পশ্চিমবঙ্গের ঊপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ফ্রেজারগঞ্জ ও সাগরদ্বীপ হয়ে বকখালির কাছাকাছি সেটি আছড়ে পড়ে।

ভারতের আনন্দবাজার জানিয়েছে এটি এখন সুন্দরবন বদ্বীপ অঞ্চলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শনিবার রাত থেকে রোববার সকালের মধ্যে সেটি সুন্দরবন অঞ্চল অতিক্রম করতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আগামী তিন-চার ঘণ্টার মধ্যে স্থলভাগে আছড়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এরপর বুলবুল এগিয়ে যাবে বাংলাদেশের পটুয়াখালীর খেপুপাড়ার দিকে। মধ্যরাত নাগাদ ঝড়টি বাংলাদেশে ঢুকবে বলে আবহাওয়াবিদরা ধারণা করছেন।

পশ্চিমবঙ্গের স্থলভাগে ঢোকার সময় এর গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় প্রায় ১২০ কিলোমিটার। স্থলভাগে আছড়ে পড়ার সময় কিছুটা শক্তি কমে যাবে বুলবুলের। ঝড়টি ঘণ্টায় ১২ কিলোমিটার গতিতে উত্তরপূর্ব দিকে এগোচ্ছে।

এদিকে ঝড়ের প্রভাবে ভারী বৃষ্টি ও দমকা হাওয়ায় কলকাতায় বহু গাছ উপড়ে গেছে। ঝড়ে একজনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে পিটিআই। নিচু এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, বুলবুলের প্রভাবে ওড়িষ্যায় ভারী বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া বইছে।

এর আগে বাংলাদেশে বুলবুলের আঘাতের সতর্ক করে মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া বিভাগ।

উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ১০ (দশ) নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ০৯ (নয়) নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলাহয়েছে। উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ নয় নম্বর মহবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ (চার) নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় অতিক্রমকালে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগু̧না, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা জেলা সমূহ এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ সহ ঘন্টায় ১০০-১২০ কি.মি. বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় ও মুন ফেজ এর প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর,ফেনী, চাঁদপুর, বরগু̧না, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল চেয়ে ৫-৭ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।


ঢাকা/এনএ/নাসিম

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন