Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৮ শা'বান ১৪৪২

পরিবেশ আইন যুগোপযোগী করা হবে: পরিবেশ সচিব 

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:২২, ২৮ জানুয়ারি ২০২১  
পরিবেশ আইন যুগোপযোগী করা হবে: পরিবেশ সচিব 

দেশের পরিবেশ সংরক্ষণ কার্যক্রম আরও কার্যকর করতে পরিবেশ আইন-কানুন, বিধি-বিধান আরও যুগোপযোগী করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব জিয়াউল হাসান।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘মন্টিভিডিও এনভাইরনমেন্টাল ল প্রোগ্রাম’ এর আওতায় অনুষ্ঠিত ‘মেম্বার স্টেট নিড অ্যাসেসমেন্ট সার্ভে’ বিষয়ক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ তথ‌্য জানান।

জিয়াউল হাসান বলেন, জনগণকে সংশ্লিষ্ট বিধি-বিধান জানতে সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। কিন্তু যারা বিধি-বিধান সজ্ঞানে অমান্য করে পরিবেশের ক্ষতি সাধন করবে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

পরিবেশ সংরক্ষণে যুগের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনে নতুন আইনও প্রণয়ন করা হবে বলেও জানান তিনি।

সভায় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ) মো. মনিরুজ্জামান, অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) মিজানুল হক চৌধুরী, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রাণিসম্পদ ব্যবস্থাপনা) ডক্টর ফাহমিদা খানম, মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (প্রশাসন)  ও জাতীয় ফোকাল পয়েন্ট ডক্টর আশফাকুল ইসলাম বাবুল, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজারভেশন অভ নেচার (আইইউসিএন) এর কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ রকিবুল আমীন, প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু, জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) এর প্রোগ্রাম স্পেশালিস্ট আরিফ ফয়সাল এবং বাংলাদেশ এনভায়রনমেন্টাল ল-ইয়ার্স এসোসিয়েশনের (বেলা) লিগ্যাল অ্যাডভাইজার সাইদ আহমেদ কবিরসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

এ সময় ‘মন্টিভিডিও এনভাইরনমেন্টাল ল প্রোগ্রাম’ এর বাংলাদেশের ফোকাল পয়েন্ট ও মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (প্রশাসন) ডক্টর আশফাকুল ইসলাম বাবুল বলেন, বিশ্বব্যাপী পরিবেশ বিষয়ক আইনের উন্নয়ন ও বাস্তবায়নে সহযোগিতার লক্ষ্যে জাতিসংঘ পরিবেশ এসেম্বলির চতুর্থ অধিবেশনে এ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়, যা ২০২০ হতে ২০২৯ সাল পর্যন্ত চলমান থাকবে।  কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশের পরিবেশ সংশ্লিষ্ট আইন উন্নয়ন, বাস্তবায়ন ও সরকারের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে জাতিসংঘ পরিবেশ। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পরামর্শ, কারিগরি সহায়তা ও জনগণের অংশগ্রহণ বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে। সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে কর্মসূচির ৯টি কৌশলগত কার্যক্রম থেকে অগ্রাধিকার নির্ধারণ করে প্রেরণের অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে দেশে পরিবেশ আইন নিয়ে কাজ করে এমন বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনের মতামত সমন্বিতভাবে জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচিতে পাঠানো হবে। পরবর্তীতে অনুমোদিত কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

নঈমুদ্দীন/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে