ঢাকা     রোববার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৫ ১৪২৭ ||  ০১ সফর ১৪৪২

‘যাপিত জীবনের সময়কে কবিতা বানিয়েছি’

সাইফ বরকতুল্লাহ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০২:৩৪, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
‘যাপিত জীবনের সময়কে কবিতা বানিয়েছি’

রাইজিংবিডির স্টলে কবি খোরশেদ খোকন : (ছবি : ছাইফুল ইসলাম মাছুম)

খোরশেদ খোকন। ব্যাংকার হলেও মূলত কবি। এবারের বইমেলায় তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ দিনযাপনের কাব্য প্রকাশিত হয়েছে। মেলার তৃতীয় দিন শুক্রবার সন্ধ্যায় আসেন বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে রাইজিংবিডির স্টলে। এ সময় তার প্রথম বই, বইমেলা এবং সাহিত্যের নানা প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সাইফ বরকতুল্লাহ।

সাইফ বরকতুল্লাহ : এবারের বইমেলায় আপনার কী কী বই বের হয়েছে?
খোরশেদ খোকন : আমার প্রথম কাব্যগ্রন্থ দিনযাপনের কাব্য প্রকাশিত হয়েছে।  গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে বাংলার কবিতা প্রকাশন। প্রচ্ছদ এঁকেছেন ইপন শামসুল। ১৬০ পৃষ্ঠার গ্রন্থটির দাম ৩০০ টাকা।

সাইফ বরকতুল্লাহ : আপনার লেখার বিষয়বস্তু কী?

খোরশেদ খোকন : প্রকৃতি, জীবন, দিনযাপন। যা আমার কাছে শিল্পের মতো। আর এজন্যই এই বইটার নাম  দিনযাপনের কাব্য।

সাইফ বরকতুল্লাহ : আপনি কী নিয়ে বেশি লিখছেন?
খোরশেদ খোকন : কবিতা, ছোট গল্প, স্মৃতিকথা, ভ্রমণ।

সাইফ বরকতুল্লাহ : আপনার লেখালেখি শুরু কখন থেকে?
খোরশেদ খোকন :  ১৯৯০ সালের কথা। তখন স্কুলে পড়তাম। সে সময় ম্যাগাজিন, পত্র-পত্রিকা পড়তাম। তখন থেকেই লেখার চেষ্টা করেছি।

সাইফ বরকতুল্লাহ : আপনি পড়াশুনা করেছেন ফিন্যান্সে আর পেশায় ব্যাংকার। ব্যাংকার হয়েও কবিতা, লেখালেখি চর্চা করছেন?
খোরশেদ খোকন : 
হ্যাঁ ঠিক বলেছেন। আমি বিশ্বাস করি শব্দ মানুষকে কাছে টানে। এটা আমার শব্দের প্রতি একটা টান অথবা কবিতার প্রতি ভালোবাসা।

সাইফ বরকতুল্লাহ : এক কথায় বলবেন- কেন লিখেন?
খোরশেদ খোকন : লিখতে ভালোবাসি।

সাইফ বরকতুল্লাহ : প্রথম বই প্রকাশের অনুভূতি?
খোরশেদ খোকন : অন্যরকম। এটা অসম্ভব ভালোলাগা।

সাইফ বরকতুল্লাহ : দিনযাপনের কাব্য- গ্রন্থটি সম্পর্কে আপনার ভাবনা?
খোরশেদ খোকন : এটা একটা ব্যক্তিগত খেয়াল। আমি আসলে চেষ্টা করেছি নিজের লেখালেখির মাধ্যমে বই নামের একটা বাড়ি বানাতে। আমি জানি, যদি কবিতা নিয়ে না ভাবতাম, তাহলে পড়াশুনার দিনগুলিতে আরো আড্ডাবাজি কিংবা পড়াশুনা করতে পারতাম। অথবা বাসায় আত্মীয়-স্বজন আর বাচ্চাদের আরো বেশি সময় দিতে পারতাম। কিন্তু ছেড়ে তো থাকতে পারলাম না! তাই আমার যাপিত জীবনের সময়কে কবিতা বানাতে চেষ্টা করলাম।

সাইফ বরকতুল্লাহ : নিজের কবিতা সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন?
খোরশেদ খোকন : লেখাগুলো আদৌ কবিতা হতে পারবে কি না- তা আমি জানি না। যদি একবার একটা লেখা পড়ে আবারও পড়ার ইচ্ছা কারো মনে জাগে, তাহলেই ধরে নেব শব্দ নিয়ে আমার এই চেষ্টা বৃথা যায়নি।

সাইফ বরকতুল্লাহ : বইমেলার পরিবেশ কেমন লাগছে ?
খোরশেদ খোকন :  ভালো। বড় পরিসরে মেলা হওয়ায় ইচ্ছে মতো ঘুরা যাচ্ছে।

সাইফ বরকতুল্লাহ : লেখক-প্রকাশক সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিত?
খোরশেদ খোকন : অবশ্যই ভালো হতে হবে। লেখকদের সঙ্গে প্রকাশকের সম্পর্ক ভালো না হলে ভালো বই সম্ভব নয়।

সাইফ বরকতুল্লাহ : পাঠকদের জন্য আপনার কোনো পরামর্শ?
খোরশেদ খোকন : যারা নতুন লিখছেন, তাদের উৎসাহ দিতে হবে। কারণ সমাজ, বাস্তবতা বুঝেই নতুনরা লিখছেন।  আজকের নতুন লেখকেরাই আগামী দিনের কাণ্ডারী।

সাইফ বরকতুল্লাহ : লেখালেখি নিয়ে আপনার পরিকল্পনা?
খোরশেদ খোকন :  ভবিষ্যতে গল্প লেখার ইচ্ছে আছে।

সাইফ বরকতুল্লাহ : আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
খোরশেদ খোকন : আপনাকেও। রাইজিংবিডিকে নিরন্তর  শুভেচ্ছা।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/সাইফ/এসএন

রাইজিংবিডি.কম

আরো পড়ুন  

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়