ঢাকা, বুধবার, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০১ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

পায়ে হেঁটে হাসপাতালে জিরাফ

শাহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৩ ৯:০৩:১৭ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৩ ৯:২২:৪৭ এএম

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্ক আর উদ্বেগের নাম। দিন যত যাচ্ছে, তত এই ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যের সংখ্যা বাড়ছে। সঙ্গে সঙ্গে এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে বিশ্বব্যাপী মানুষের হাস্যকর কর্মকাণ্ডের পরিমানও বাড়ছে। বিশেষ করে চীনে এইসব হাস্যকর কর্মকাণ্ড যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। এসব হাস্যকর কর্মকাণ্ডের ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লেও চীনের মানুষ সেদিকে ভ্রূক্ষেপ করছে না। কারণ যেমন করেই হোক তাদের উদ্দেশ্য প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে বাঁচা।

সম্প্রতি চীনের সিচুয়ান প্রদেশের এক নারী হাসপাতালে জিরাফের কস্টিউম পরে হাজির হয়েছেন। ওই নারীর নাম প্রকাশ করা হয়নি। চীনের ভিডিও শেয়ার করার মাধ্যম পিয়ার ভিডিও সাইটে ওই নারীর নাম সংক্ষেপে ‘এমএস’ উল্লেখ করা হয়েছে। ভিডিওটি ধারণ করেছেন ওই হাসপাতলের এক কর্মী।

ভিডিওতে দেখা যায় এমএস একটি ফোলানো জিরাফের কস্টিউম পরে হাসপাতালে হাজির হয়েছেন। হাস্যকর দেখালেও সেদিকে তার কোনো খেয়াল নেই। তার বাবা ওই হাসপাতালে গলার সংক্রামক রোগের চিকিৎসা নিচ্ছেন। তিনি বাবাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। যাওয়ার সময় তার পরিবার তাকে মুখোশ না পরে জিরাফের কস্টিউম পরার পরামর্শ দিয়েছিল। কারণ তার পরিবার মনে করে, অদ্ভুত দেখালেও এটা তার জন্য যথেষ্ট নিরাপদ। শুধু তাই নয়, জিরাফ দেখে হয়তো ভাইরাস তার থেকে দূরে থাকবে।

ভিডিও সম্পর্কে এমএস বলেন, আমি কয়েকদিন ধরে মুখোশ পরছি। তবে মুখোশগুলো ব্যবহারের সময়সীমা শেষ হয়ে গেছে। তাছাড়া বর্তমানে মুখোশের তীব্র সংকট চলছে। বাজারে কেনার মতো মুখোশও পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাধ্য হয়েই জিরাফ সেজেছি।


ঢাকা/তারা