ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ০৭ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

১৮ ঘণ্টা প্রস্রাব চেপে রাখার পরিণতি…

শাহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-২৪ ৮:১৩:২০ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-২৪ ১২:০১:২৬ পিএম
প্রতীকী ছবি

মদ পান করলে সাধারণ সময়ের চেয়ে একটু বেশি প্রস্রাবের বেগ হওয়া স্বাভাবিক। ফলে অধিক পরিমানে মদ পান করলে একাধিকবার প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে হয়। কিন্তু প্রকৃতির ডাকে সাড়া না দিয়ে যদি প্রস্রাব চেপে রাখা হয়, তাহলে কী হবে? চলুন, এই প্রশ্নের উত্তর বইয়ের পাতায় না খুঁজে চীনা এক ব্যক্তির বাস্তব অভিজ্ঞতা শুনি। অ্যালকোহল পানের পর প্রস্রাব চেপে রাখলে শরীরের যে কতটা ক্ষতি হতে পারে, তা কিছুটা হলেও উপলদ্ধি করতে পারবেন।

চীনা ওই ব্যক্তির নাম হু। তার আপত্তির কারণে গণমাধ্যমে প্রকৃত নাম প্রকাশ করা হয়নি। দিন দুয়েক আগে ঝিজিয়াং প্রদেশের ৪০ বছর বয়েসি এই ব্যক্তি নাইট ক্লাবে বসে আকণ্ঠ মদ পান করেন। বাসায় ফিরে নেশাতুর অবস্থায় ঘুমিয়ে পড়েন।

মধ্যরাতে সেই যে নিদ্রা যান, পরের দিনও ঘুম ভাঙেনি তার। একবারও টয়লেটে যাননি। শেষমেশ ১৮ ঘণ্টা পর যখন ঘুম থেকে উঠেন, ততক্ষণে শরীরের অনেক ক্ষতি হয়েছে তার। ঘুম থেকে উঠেই প্রচণ্ড পেট ব্যথায় ছটফট করতে থাকেন হু।

হাসপাতালে ভর্তি করার পর তার পাকস্থলী ও মূত্রথলি স্ক্যান করা হয়। রিপোর্টে দেখা যায়, মূত্রথলির তিন জায়গায় চিড় ধরেছে। চিকিৎসকরা জানান, প্রস্রাবের অতিরিক্ত চাপেই মূত্রথলিতে চিড় ধরেছে। দ্রুত অস্ত্রোপচার না হলে মূত্রথলি ফেটে আরো বড় বিপদ হতে পারে। পরে সফল অস্ত্রোপচার হয় হুর। এ যাত্রায় বেঁচে যান তিনি।

গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চিকিৎসক লিং ইয়ং বলেন—হুকে যখন হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়, তখন তীব্র ব্যথায় কাতরাচ্ছিলেন। ব্যথা এতটা তীব্র ছিল যে, তিনি সোজা হয়ে শুয়েও থাকতে পারছিলেন না। তবে অস্ত্রোপচারের পর আপাতত অনেকটাই সুস্থ তিনি। দুই এক দিনের মধ্যে হাসপাতাল থেকেও ছাড়পত্র পাবেন।

নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েছেন হু। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন তার উপলদ্ধির কথা। হু বলেন—আর যাই হোক, প্রস্রাব চেপে রাখার মতো ভুল আর কেউ করবেন না।



ঢাকা/শান্ত