ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

কেজিতে নয়, নিলামে বিক্রি হয় যে তরমুজ

অন্য দুনিয়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪২, ২১ এপ্রিল ২০২২   আপডেট: ১৭:৫৫, ২১ এপ্রিল ২০২২
কেজিতে নয়, নিলামে বিক্রি হয় যে তরমুজ

তরমুজ খেতে পছন্দ করেন না এরকম মানুষের সংখ্যা খুবই কম। কেজিতে তরমুজ বিক্রির কথা হয়তো শুনেছেন, কিন্তু জানেন কি, ডেনসুক প্রজাতির তরমুজ বিক্রি হয় নিলামে।

বিশ্বে প্রায় বারো শ প্রজাতির তরমুজ রয়েছে। কিন্তু সবচেয়ে দামি তরমুজ বলা হয় এটিকে। ডেনসুক ব্ল্যাক তরমুজ বা কালো তরমুজ শুধুমাত্র জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের উত্তরাঞ্চলে পাওয়া যায়। বছরে মাত্র ১০০টি জন্মায়, ফলে জোগানও কম। এমনকি বাজারেও এই প্রজাতির তরমুজগুলো পাওয়া যায় না। প্রতি বছর এই তরমুজ বিক্রির জন্য নিলামের আয়োজন করা হয়। পরবর্তী সময়ে চড়া দাম হেঁকে সেগুলো কেনেন ক্রেতারা। ২০১৯ সালে ৬ হাজার মার্কিন ডলারে বিক্রি হয়েছিল এই তরমুজ। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৫ লাখ টাকার বেশি। করোনা মহামারির কারণে বিশ্ব বাজারে মন্দা দেখা দিলে এই তরমুজের দাম কিছুটা কমেছে। তবে এখনো এটি বিশ্বের দামি ফলের মধ্যে একটি।

কিন্তু কেমন খেতে এই কালো তরমুজ? জানা যায়, বাহিরে উজ্জ্বল কালো রঙের এই তরমুজগুলো অনেক সতেজ এবং অন্য প্রজাতির তুলনায় বেশি মিষ্টি। আর এর মধ্যে বীজও কম।

সাধারণত ডেনসুক তরমুজের প্রথম ফলন থেকে পাওয়া ফলই নিলামে বিক্রি হয়। পরবর্তী ফলন থেকে যে ফল পাওয়া যায় তার দাম তুলনামূলক কম ওঠে। ২৫০ মার্কিন ডলারে পাওয়া যায়।

অন্য দামি ফলের মতো এটি সুন্দর প্যাকেটে মোড়ানো হয়। পাশাপাশি এটি কোথায় চাষ করা হয়েছে প্যাকেটের গায়ে সেটিও উল্লেখ থাকে। সচরাচর উপহার ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করার জন্য এটি দেওয়া হয়। জাপানে এই তরমুজের উৎপাদন বেশি হলেও ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকাতেও এই তরমুজের চাষ হয়।

/মারুফ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়