ঢাকা     সোমবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৬ ১৪২৭ ||  ০৩ সফর ১৪৪২

‘চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব বাড়ানো দরকার’

নিউজ ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৫৯, ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৭:০৫, ২৯ আগস্ট ২০২০
‘চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব বাড়ানো দরকার’

স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন ও করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব বাড়ানো দরকার বলে মনে অভিমত দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

শনিবার (৮ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫টায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থা উন্নয়ন ফোরাম আয়োজিত ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে বক্তারা এই অভিমত দেন।

বাংলাদেশে চিকিৎসা বর্জ্য নিরাপদ নিষ্কাশনে অব্যবস্থাপনা শীর্ষক ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন বিশ্ব ব্যাংকের সিনিয়র হেলথ স্পেশালিস্ট জিয়া উদ্দিন হায়দার। 

আলোচনায় অংশ নেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউনেটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের চেয়ারম্যান এবং কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মাদ শহীদুল্লাহ, প্রিজম বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক খোন্দকার আনিসুর রহমান এবং সাংবাদিক ও চিকিৎসক নূরুল ইসলাম হাসিব।

চিকিৎসা বর্জ্য যে ঝুঁকি বাড়ায় এবং এটাকে আলাদা করে ব্যবস্থাপনা করতে হবে সেটা সবাই জানেন ও বোঝেন মন্তব্য করে খোন্দকার আনিসুর রহমান বলেন, ২০০৮ সালে একটি আইন পেলেও সেটা অসম্পূর্ণ আইন।  ২০১৩ সালে আমরা একটি খসড়া দেওয়া হয়েছে অথচ আজ পর্যন্ত একটি মিটিং হয়নি।  আমরা মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে দাবি করছি, কিন্তু বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আমাদের যেখানে পৌঁছানোর কথা সেখানে পৌঁছাতে পারিনি।

তিনি বলেন, আইন থাকলেই হবে না।  আমাদের ফ্যাসিলিটিস নাই।  চিকিৎসা বর্জ্য (ব্যবস্থাপনা ও প্রক্রিয়াজাতকরণ) বিধিমালা ২০০৮ বাস্তবায়নের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পরিবেশ মন্ত্রণালয়কে। অথচ হাসপাতালের অনুমোদন দিচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা।  কিন্তু সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার ক্যাপাসিটি বিল্ড আপ করা হয়নি। অনেক সিটি করপোরেশনের জায়গা নাই। সাভার-নারায়ণগঞ্জে রাস্তার দুধারে বর্জ্য ফেলে রাখা হয়। গাজীপুরেরও একই অবস্থা।

অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, আমরা অনেক ভালো কাজ করেছি। কিন্তু স্বাধানীতার ৫০ বছরের মধ্যে ৪০ বছরে চিকিৎসা বর্জ্য নিয়ে কথা বলিনি আবার, যেটুকু কথা হয়েছে তাতে অগ্রগতি এখনো তেমন হয়নি। এমবিবিএস কারিকুলামে আন্ডার গ্রাজুয়েটে যদি পড়ানো হতো, তাহলে চিকিৎসক হবার আগেই একজন শিক্ষার্থী চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব বুঝতো।  নার্স এবং মিডওয়াইফ কারিকুলামেও অন্তর্ভুক্ত করা দরকার ছিল। আমরা তা করছি না। পাস করে আসার পরে আমরা প্রশিক্ষণ দেওয়ার চেষ্টা করছি।

ঢাকা/সাইফ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়