Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৭ ১৪২৭ ||  ১৭ রজব ১৪৪২

হাসপাতালে ঠান্ডাজনিত রোগাক্রান্তদের ভিড়

মেসবাহ য়াযাদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৩৭, ২০ জানুয়ারি ২০২১  
হাসপাতালে ঠান্ডাজনিত রোগাক্রান্তদের ভিড়

শীত, ঠান্ডা ও ধুলোবালির কারণে দিন দিন বেড়ে চলেছে ডায়রিয়া, আ্যালার্জি, সর্দি-কাশি, নিউমোনিয়া ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগ। এসব রোগে আক্রান্তের বেশির ভাগই বয়স্ক ও শিশু।
শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) থেকে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। 
বিভিন্ন হাসপাতালে বাড়ছে ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্তের সংখ‌্যা। 
এরকম আবহাওয়ায় অন্যদের তুলনায় শিশুরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে বলে জানান শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. তাহমিনা বেগম। তিনি বলেন, সাধারণত অতিরিক্ত ঠান্ডা লাগার কারণে নিউমোনিয়া হয়। শিশু ও বয়স্কদের জন্য এটি মারাত্মক রোগ। বাংলাদেশে ৫ বছরের নিচে শিশুমৃত্যুর অন্যতম কারণ নিউমোনিয়া। অভিভাবকদের সতর্কতা, সচেতনতার পাশাপাশি সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে শিশুদের এ রোগ থেকে রক্ষা করা সম্ভব। তাই এসময় শিশুদের প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে পরিবারের অন্য সদস্যদের।
চিকিসকেরা জানান, শীতে ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ে, তাই নিউমোনিয়া আর ডাইরিয়া রোগ বাড়ে। তাছাড়া আবহাওয়া শুষ্ক থাকা ও রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে প্রচুর ধুলাবালি হয়, এর কারণে অ‌্যাজমার রোগীদের সমস‌্যা বাড়ে। সর্দির কারণে বাচ্চাদের নাক বন্ধ থাকে, মুখ দিয়ে শ্বাস নেয়, কাশী হয়। তাই শিশু ও বয়স্কদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।এরপরও অসুস্থ হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
এ প্রসঙ্গে অ্যাজমা ও বক্ষ্যব্যাধি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এফ এম সিদ্দিকী বলেন, হাঁপানি বা অ্যাজমা শ্বাসকষ্টের রোগ। এটি শুধু শীতকালে নয় সারা বছরের। তবে শীত মৌসুমে বেড়ে যায়। তাই তীব্র শীত আসার আগেই সতর্কতা ও সচেতন হলে রোগটি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে এবং শিশু আর বয়স্কদের কষ্টের পরিমাণও কম হবে।
মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মনজুর রহমান (গালিব) জানান, ঋতু পরিবর্তনের শুরুতে প্রায় সব লোকই কমবেশি সর্দি কাশিতে ভোগেন। সঙ্গে জ্বরও হয়। নাক দিয়ে পানি ঝরে এবং হাঁচি হয়। হঠাৎ মাথা ব্যথা, শরীর ব্যথা, গলা ব্যথা এগুলোও হতে পারে। ভাইরাসজনিত কারণেও এ ধরনের রোগ দেখা দিতে পারে। সাধারণত যাদের শরীরে অ‌্যান্টিবডি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তারাই এ রোগে বেশি ভোগে। ভাইরাসের আক্রমণে দেহের দুর্বলতার সুযোগে ব্যাকটেরিয়াও আক্রমণ করতে পারে।খুব বেশি জ্বর, গলাব্যথা, কাশি বা শ্বাসকষ্ট হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

 

ঢাকা/মেজবাহ/এসএন 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়