ঢাকা, শনিবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সু চির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৪ ৩:২৯:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১৪ ৫:৪৮:৩৬ পিএম

মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর ও ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সু চিসহ দেশটির কয়েক জন শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রথমবারের মতো বিদেশের আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগে আর্জেন্টিনার আদালতে বুধবার এ মামলা দায়ের করা হয়।

‘বৈশ্বিক বিচার অধিক্ষেত্র’ নীতির আওতায় রোহিঙ্গা ও ল্যাটিন আমেরিকার কয়েকটি অধিকার গ্রুপ এ মামলা করেছে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী টমাস ওজেয়া বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, ‘অভিযোগে গণহত্যার পরিকল্পনাকারী, তাদের দোসর ও ধামাচাপা দেওয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি নিষেধাজ্ঞা দাবি করা হয়েছে। আমরা এটি আর্জেন্টিনার মাধ্যমে করেছি কারণ অন্য কোথাও এই অভিযোগ দায়ের করার কোনো সম্ভাবনা নাই।’

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানরা ‘অস্তিত্বের হুমকির’ মুখে দাবি করে মামলায় মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মি অং হ্লাইসহ শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা এবং সু চিসহ রাজনৈতিক নেতাদের বিচার দাবি করা হয়েছে।

বার্মিজ রোহিঙ্গা অর্গানাইজেশন ইউকে’র (বিআরওইউকে) সভাপতি তুন খিন বলেন, ‘দশকের পর দশক ধরে আমাদেরকে বস্তির মধ্যে আবদ্ধ রেখে নির্মূল করতে,দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য ও হত্যার চেষ্টা করেছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ।’

‘বৈশ্বিক বিচার অধিক্ষেত্র’ বিবেচনায় এর আগেও আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা গ্রহণের নজির আছে। স্পেনের প্রাক্তন স্বৈরশাসক ফ্রান্সিসকো ফ্রাঙ্কো ও চীনের ফালুন গং আন্দোলনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মামলা করা হয়েছিল দেশটির আদালতে।

২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় সেনাবাহিনী। প্রাণে বাঁচতে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিতে শুরু করে। এ পর্যন্ত সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে বাংলাদেশে। জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের প্রতিবেদনে রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ, জ্বালাও-পোড়াওয়ের ভয়াবহ বিবরণ তুলে ধরা হয়। এছাড়া রোহিঙ্গাদের ওপর এই নিপীড়নকে ‘জাতিগত নির্মূল অভিযান’ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে প্রতিবেদনে। এরপরও এ বিষয়ে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি এ ব্যাপারে নীরব ভূমিকা পালন করে আসছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।


ঢাকা/শাহেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন