ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

চাহিদা নেই, তাই ভারতে পঁচছে পেঁয়াজ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৪ ৮:০৯:০১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৪ ৯:০২:০৪ পিএম

চাহিদা না থাকায় এবার ভারতে পঁচতে শুরু করেছে পেঁয়াজ। তাই ২২ টাকা কেজি দরে মধ্যবিত্তের কাছে পেঁয়াজ পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। খবর আনন্দবাজার অনলাইনের।

গত বছরের শেষ দিকেই ভারতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিল পেঁয়াজের দাম। এখনও ৮০ থেকে ১০০ টাকায় পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে  কোথাও কোথাও। তার মধ্যেই মঙ্গলবার পেঁয়াজের দাম কমানোর ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্র।

চাহিদার কথা মাথায় রেখে গত বছর বিদেশ থেকে এক লাখ ২০ হাজার টন পেঁয়াজ কেনার অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। এর পরিপ্রেক্ষিতে তুরস্ক, মিশর ও আফগানিস্তান থেকে ১৮ হাজার টন পেঁয়াজ এসে পোঁছে ভারতে। কিন্তু মূল্যবৃদ্ধির জেরে এমনিতেই খাদ্যদ্রব্যের বিক্রি কমে গিয়েছে দেশটিতে। তাতে আমদানিকৃত পেঁয়াজ বিক্রি করা যায়নি। তাই শেষমেশ পেঁয়াজের দাম আরও কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয়  খাদ্য সরবরাহ মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান বলেন, ‘মোট ১৮ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানি করা হলেও, এখনও পর্যন্ত মাত্র দুই হাজার টন পেঁয়াজই বিক্রি হয়েছে। এখন ২২ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

রামবিলাস জানান, দেশে আসা ১৮ হাজার টন পেঁয়াজ বিক্রি করা অসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু কেন এমন পরিস্থিতি তৈরি হল? তার জন্য রাজ্যগুলিকেই দুষেছেন তিনি।

রামবিলাসের দাবি, ‘ঘরোয়া বাজারে চাহিদার জোগান দিতে এবং মূল্যবৃদ্ধিতে রাশ টানতেই বিদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। কিন্তু আমদানিকৃত পেঁয়াজ নিতেকিনতে আগ্রহ দেখাচ্ছে না রাজ্যগুলি। এতে আমাদের কী করার আছে? এর পর যেন আমদানিকৃত পেঁয়াজ কেন পচছে, তা নিয়ে আদালতে না যান কেউ।’

এখনও পর্যন্ত অন্ধ্রপ্রদেশ, কেরল, উত্তরপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গই আমদানিকৃত পেঁয়াঁজ কিনেছে বলে  জানিয়েছেন রামবিলাস। আবার শুরুতে আগ্রহ দেখিয়েও অনেক রাজ্য পরে অবস্থান পাল্টেছে বলে জানান তিনি।

ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের সচিব অবিনাশ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, আগামী দু’দিনের মধ্যেই বিদেশ থেকে আরও চার হাজার টন পেঁয়াজ এসে পৌঁছবে। মাসের শেষে এসে পৌঁছবে আরও ১৪ হাজার টন। আরও সাড়ে পাঁচ হাজার টন পেঁয়াজ এসে পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু চাহিদার অভাবে শেষ মুহূর্তে তা বাতিল করা হয়।

 

ঢাকা/শাহেদ

     
 

ট্যাগ :