ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ডালাসেও জারি হলো নাইট কারফিউ

নিউজ ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০১ ৩:৫০:২০ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০১ ৩:৫০:২০ এএম

কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যায় উত্তাল হয়ে উঠেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বিক্ষোভ ও সহিংসতা শুরু হয়েছে টেক্সাসের বাণিজ্যিক ও সাংস্কৃতিক নগরী ডালাসেও। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ডালাস পুলিশ প্রধান রেনে হল রাতেও কারফিউ জারি করেছেন। খবর সিএনএনের।

স্থানীয় সময় আজ রোববার (৩১ মে) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে রাতের কারফিউ (সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা) ঘোষণা দেন রেনে। এই কারফিউ চলবে বেশ কিছুদিন।

তিনি বলেন, ‘এটা এখন আর শান্তিপূর্ণ আন্দোলন নেই। এটাকে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন বলা যায়ও না। আমাদের শহরে এই ধরনের অরাজকতা সহ্য করা হবে না। আমরা বিক্ষোভকারীদের কথা বলছি না, আমরা বলছি দুষ্কৃতিকারীদের কথা। এসব দুষ্কৃতিকারীরা আমাদের এলাকার নয়। তারা ডালাসের বাইরে থেকে এসেছে। এই শহরের প্রতি তাদের সম্মানও নেই, ভালোবাসাও নেই।’

ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে সৃষ্টি হওয়া আন্দোলন দমাতে ইতিমধ্যে বিভিন্ন রাজ্যের ২০টি শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো হয়েছে ৫ হাজার ন্যাশনাল গার্ড। আরো ২ হাজার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তবুও থামছে না বিক্ষোভ। চলেছে ভাঙচুর, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ। পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়া ও মারামারির ঘটনা ঘটছে।

বিক্ষোভের পাশাপাশি লুটতরাজও চালাচ্ছে কিছু মানুষ। নষ্ট করছে মূল্যবান ব্যক্তিগত ও রাষ্ট্রীয় সম্পদ। সে কারণেই দিনে ও রাতে কারফিউ জারি করেছে বিভিন্ন রাজ্য। কিন্তু কারফিউ দিয়েও দমানো যাচ্ছে না বিক্ষোভ।

গেল মঙ্গলবার মিনেসোটার মিনিয়াপোলিস শহরে জালিয়াতির অভিযোগে ৪৬ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর হাতকড়া পরিয়ে গলায় হাঁটু দিয়ে চেপে রাখায় শ্বাসরোধ হয়ে পুলিশি হেফাজতে তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এরপরই শুরু হয় বিক্ষোভ। শুক্রবার পর্যন্ত বিক্ষোভ শান্তিপূর্ণ থাকলেও শনিবার রাত থেকে রূপ নেয় সহিংসতায়।

 

ঢাকা/আমিনুল