ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৬ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২২ ১৪২৭ ||  ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সাংকেতিক ভাষায় আন্দোলনের বার্তা দিচ্ছে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থিরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৫০, ৪ জুলাই ২০২০  

চীনের জারি করা নতুন নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার এড়িয়ে আন্দোলনের বার্তা প্রকাশ করেতে সাংকেতিক ভাষা ব্যবহার করছে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থিরা। এভাবে নিষিদ্ধ রাজনৈতিক স্লোগান প্রচার করায় গ্রেপ্তার অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।

গত সপ্তাহে স্বায়ত্ত্বশাসিত নগর হংকংয়ের জন্য জাতীয় নিরাপত্তা আইনের অনুমোদন দেয় চীনের পার্লামেন্ট। আইনটিতে বিচ্ছিন্নতাবাদ, কর্তৃপক্ষকে অবমাননা, সন্ত্রাসবাদ ও জাতীয় নিরাপত্তা বিপন্ন করতে বিদেশি বাহিনীর সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগে কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। তবে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থিদের অভিযোগ, এই আইনের মাধ্যমে হংকংয়ের বাসিন্দাদের বাকস্বাধীনতা ও গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেবে চীন।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার জানিয়েছে, এখন থেকে ‘হংকং স্বাধীন কর, আমাদের সময়ের বিপ্লব’-স্লোগান বেআইনি বলে বিবেচনা করা হবে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে বেইজিংয়ের নিরাপত্তা আইনের বিরুদ্ধে কীভাবে নিরাপদে প্রতিবাদ জানানো যায় সেই আলোচনায় মশগুল এখন হংকংয়ের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও চ্যাট ফোরামগুলো। পুরোপুরি স্বায়ত্ত্বশাসন কিংবা স্বাধীনতার দাবির বার্তা ছড়িয়ে দিতে গণতন্ত্রপন্থিরা সাংকেতিক শব্দ ব্যবহার শুরু করেছে। এমনকি তারা চীনের কমিউনিস্ট পার্টির তত্বকেও ব্যবহার শুরু করেছে।

গত বছর গণতন্ত্রপন্থিদের জমায়েত হওয়ার জনপ্রিয় স্থান ছিল নগরীর ব্যস্ততম জেলা কজওয়ে বে’র একটি সেতু। এখানে একটি ট্রাফিক সিগন্যাল এলাকায় কেউ লিখে রেখেছেন, ‘জেগে ওঠো, দাস হওয়াকে প্রত্যাখ্যান কর।’ এটি নেওয়া হয়েছে চীনের জাতীয় সঙ্গীতের প্রথম বাক্য থেকে। তবে এর মধ্যদিয়ে আন্দোলনের বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন গণতন্ত্রপন্থিরা। কেউ কেউ ল্যাটিন অক্ষর দিয়ে বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। যেমন-‘GFHG, SDGM’। আবার কেউ কেউ সংখ্যা ব্যবহার করছেন। যেমন-৩২১৯ ০২৪৬।


ঢাকা/শাহেদ

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়