ঢাকা     সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭ ||  ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

চীনের বিউবনিক প্লেগে ‘উচ্চ ঝুঁকি’ নেই: ডব্লিউএইচও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫২, ৭ জুলাই ২০২০  
চীনের বিউবনিক প্লেগে ‘উচ্চ ঝুঁকি’ নেই: ডব্লিউএইচও

চীনে বিউবনিক প্লেগের সম্ভাব্য মহামারি ‘ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ’ করা হচ্ছে এবং এখনই একে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে হচ্ছে না বলে জানালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এক কর্মকর্তা। আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

অভ্যন্তরীণ মঙ্গোলিয়ায় চীনা অঞ্চলের বায়ান্নুর শহরের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ রোববার বিউবনিকে প্লেগ নিয়ে সতর্কতা জারি করে। আগের দিন শহরের একটি হাসপাতালে এই অসুখে আক্রান্ত সন্দেহজনক একজনকে পাওয়া যায়। গত নভেম্বরে সেখানে এই রোগে আক্রান্ত চারজনকে পাওয়া গিয়েছিল, যাদের দুজনের মারাত্মক নিউমোনিয়া হয়েছিল।

মঙ্গলবার জেনেভায় জাতিসংঘের প্রেস ব্রিফিংয়ে ডব্লিউএইচও’র মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেছেন, ‘আমরা চীনের এই সংক্রমণ পর্যবেক্ষণ করছি। চীনা ও মঙ্গোলিয়ান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যৌথভাবে বিষয়টির দিকে আমরা খুব কাছ থেকে নজর রাখছি। চীনে আক্রান্তের সংখ্যা আমরা দেখছি, এটা ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ হয়েছে।’

বিউবনিক প্লেগ নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই বললেন এই কর্মকর্তা, ‘বিউবনিক প্লেগ আমাদের সঙ্গে আছে এবং সবসময় থাকবে, শতবর্ষ ধরে। এই মুহূর্তে আমরা একে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করছি না।’

মধ্যযুগে ব্ল্যাক ডেথ নামে পরিচিতি পাওয়া বিউবনিক প্লেগ উচ্চ মাত্রার সংক্রমণ এবং কখনও কখনও মারাত্মক প্রাণঘাতী হয়ে ওঠে। সাধারণ ইঁদুরের মতো তীক্ষ্ণ দাঁতের বুনো প্রাণীদের মাধ্যমে ছড়ায় এটি।

চীনে এই প্লেগ বিরল এবং চিকিৎসাও রয়েছে। দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন ২০১৪ সাল থেকে এ রোগে অন্তত পাঁচজনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে। সোমবার অভ্যন্তরীণ মঙ্গোলিয়ায় বিউবনিক প্লেগে আক্রান্ত রোগী পাওয়ার খবর জাতিসংঘের সংস্থাকে জানিয়েছে চীন।

এরপরই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে বিবৃতি দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ‘প্লেগ বিরল, যা বিশ্বের কিছু নির্দিষ্ট এলাকায় পাওয়া যায় এবং এখনও তা স্থানীয় হিসেবেই দেখা গেছে। বিউবনিক প্লেগ আক্রান্ত মাছির মাধ্যমে প্রাণী থেকে মানুষের দেহে ছড়ায় এবং বুনো প্রাণীর মৃতদেহ থেকে সরাসরিও ছড়াতে পারে। তবে এটা খুব সহজে মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয় না।’

প্লেগটিতে আক্রান্ত বায়ান্নুরের ওই ব্যক্তির অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গেছে। বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, প্রতিবেশী দেশ মঙ্গোলিয়ায় আরেক সন্দেহজনক রোগী পাওয়া গেছে যার বয়স ১৫ এবং কুকুর দিয়ে শিকার করা একটি মারমটের মাংস খাওয়ার পর থেকে জ্বরে ভুগছেন।


ঢাকা/ফাহিম

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়