Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১ ||  বৈশাখ ২৩ ১৪২৮ ||  ২৩ রমজান ১৪৪২

করোনাভাইরাস আজীবন থাকবে, ব্রিটিশ বিজ্ঞানীর সতর্কবার্তা

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১১, ২৩ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
করোনাভাইরাস আজীবন থাকবে, ব্রিটিশ বিজ্ঞানীর সতর্কবার্তা

করোনাভাইরাস কোনও না কোনও রূপে আজীবন থাকবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন সরকারের সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজরি গ্রুপ ফর ইমার্জেন্সিসের একজন সদস্য।

স্যার মার্ক ওয়ালপোর্ট বললেন, এক্ষেত্রে নিয়মিত বিরতিতে টিকা নেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক খবরে এই বিজ্ঞানীর আশঙ্কার কথা তুলে ধরেছে।

ওয়ালপোর্টের বক্তব্যের আগের দিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধানম ঘেব্রেইয়েসাস বলেন, দুই বছরের মধ্যে করোনাভাইরাস মহামারি থেমে যাবে। কারণ স্প্যানিশ ফ্লু দুই বছরের মধ্যে শেষ হয়েছিল।

স্যার ওয়ালপোর্ট তেমন কোনও সম্ভাবনা দেখছেন না। তার মতে বিশ্বে জনসংখ্যা বেশি হওয়ায় ও ভ্রমণের কারণে ভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বিশ্বের জনসংখ্যা এখন ১৯১৮ সালের চেয়ে অনেক বেশি।

বিবিসি রেডিও ফোর’স টুডের অনুষ্ঠানে ওয়ালপোর্ট বলেছেন, মহামারি নিয়ন্ত্রণ করতে হলে সারা বিশ্বের মানুষের জন্য টিকা নিশ্চিত করতে হবে। কিন্তু করোনাভাইরাস গুটিবসন্তের মতো রোগ নয় যে ‘টিকা দিয়ে নির্মূল হবে।’

আশঙ্কার কথা জানিয়ে এই বিজ্ঞানী বলেছেন, ‘এই ভাইরাস আমাদের সঙ্গে আজীবন থাকতে যাচ্ছে, সেটা কোনও না কোনও রূপে এবং নিশ্চিতভাবে বলা যায় লোকজনকে বারবার টিকা নিতে হবে।’ তিনি যোগ করেছেন, ‘সুতরাং, ফ্লুর মতো লোকজনকে নিয়মিত বিরতিতে টিকা নিতে হবে।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস বলেছেন, ১৯১৮ সালের স্প্যানিশ ফ্লু নির্মূল হতে দুই বছর লেগেছিল এবং বর্তমান বিশ্বের উন্নত প্রযুক্তির কারণে করোনাভাইরাসকে বিদায় করতে আরও কম সময় লাগবে। একশ বছর আগের ওই মহামারিতে সারা বিশ্বে অন্তত ৫ কোটি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

অন্যদিকে করোনা মহামারির আট মাসে ৮ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে। সোয়া দুই কোটিরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। তবে পরীক্ষা করা হয়নি কিংবা উপসর্গ নেই এমন আক্রান্তের সংখ্যা আরও বেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওয়ালপোর্ট আরও আশঙ্কা করছেন যে করোনাভাইরাস আবারও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। তবে লকডাউনের পরিবর্তে কিছু সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিয়ে এগোতে হবে। গত কয়েক সপ্তাহে ইউরোপিয়ান দেশগুলোতে সংক্রমণ বাড়ছে। বিশেষ করে যেসব দেশ মহামারি নিয়ন্ত্রণে সফল হয়েছিল, তারাও দ্বিতীয় দফায় সংক্রমিত হচ্ছে। ইউরোপ ও বিশ্বের অন্য দেশগুলোতে এই ঊর্ধ্বগামী সংক্রমণের কারণে উদ্বিগ্ন ওয়ালপোর্ট।

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়